Print Date & Time : 22 May 2022 Sunday 12:51 pm

চীনে কেএফসিকে নিষিদ্ধ করার ঘোষণা

শেয়ার বিজ ডেস্ক: খাবারের অপচয় উৎসাহিত করছে ফাস্টফুড চেইন-এমন অভিযোগ তুলে চীনে কেএফসিকে নিষিদ্ধ করার ঘোষণা দিয়েছে দেশটির প্রধান একটি কনজ্যুমার গ্রুপ চায়না কনজ্যুমার অ্যাসোসিয়েশন (সিসিএ)। খবর: বিবিসি।

খাবারের বিক্রি বাড়াতে চীনের খেলনা প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান পপ মার্টের সঙ্গে মিলে কেএফসি গত সপ্তাহে নতুন একটি ‘প্রমোশনাল অফার’ বাজারে এনেছে। এই প্রমোশনাল অফারের লোভে কিছু ক্রেতা পাগলের মতো খাবার কিনবে বলে জানায় সিসিএ।

চীনে কেএফসির প্রথম আউটলেট প্রতিষ্ঠার ৩৫তম বার্ষিকীতে নতুন ওই প্রমোশন চালু করা হয়। বিবিসি থেকে ‘ইয়াম চায়না’ (চীনে কেএফসি) ও পপ মার্টের সঙ্গে এ বিষয়ে জানতে যোগাযোগ করা হলে তাদের পাওয়া যায়নি।

সিসিএ’র বরাত দিয়ে বিবিসি জানায়, পপ মার্টের একটি বিশেষ খেলনা ‘রহস্যময় বাক্স’, যা শিশুদের কাছে বেশ জনপ্রিয়। এ জনপ্রিয়তা লুফে নিয়েছে কেএফসি। প্রতিষ্ঠানটির নতুন প্রমোশনে ক্রেতারা তাদের একটি ‘সেট মিল’ প্যাকেজ কিনলে বড় চোখ ও গোলগাল মুখের ‘ডিমো ডল’র লিমিটেড এডিশন নিতে পারবে।

কেএফসি ‘লিমিটেড এডিশন ব্লাইন্ড বক্স’ দেয়ার মাধ্যমে ক্রেতাদের অযৌক্তিকভাবে তাদের নির্ধারিত খাবার কিনতে উৎসাহিত করছে। কেননা এই খেলনা পেতে ক্রেতাদের একবারে কেএফসির সেট মেন্যুর শতাধিক প্যাকেট কিনতে হবে। যাতে ব্যয় হবে ১০ হাজার ইয়ানের বেশি (এক হাজার ৬৪৯ মার্কিন ডলার)। সেক্ষেত্রে হয় ক্রেতার অন্যদের অর্থ দিয়ে বলবে তাদের জন্য খাবার কিনতে। অথবা তারা খাবার কিনে ফেলে দেবে, এতে হবে অপচয়।

খাবারের অপচয় রোধে চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং ২০২০ সালে ‘ক্লিন প্লেট ক্যাম্পেইন’ নামে বড় ধরনের প্রচার শুরু করেন। তখন শি বলেন, প্রতি বছর যে পরিমাণ খাবার অপচয় হয় তা ‘বিস্ময়কর ও হতাশাজনক’।

কভিড-১৯ মহামারির মধ্যে খাবারের সংকট দেখা দেয়া নিয়ে উদ্বেগ থেকে এ ক্যাম্পেইন শুরু হয়। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এর পক্ষে ব্যাপক প্রচার চালানো হচ্ছে। রেস্তোরাঁগুলোয় ক্রেতারা যতটুকু খেতে পারবে ততটুকু খাবার অর্ডার করতে উৎসাহিত করা হচ্ছে।