সম্পাদকীয়

চেম্বারগুলোয় নির্বাচিত নেতৃত্ব নিশ্চিত করুন

দেশের জেলাগুলোয় ব্যবসা-বাণিজ্যে গতি আনতে এবং শৃঙ্খলা ধরে রাখতে চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজের কার্যক্রম রয়েছে। ব্যবসায়ীদের স্বার্থ সংরক্ষণের পাশাপাশি অর্থনৈতিক নানান কর্মকাণ্ডে এ ধরনের সংগঠন গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে। আমদানি-রফতানি, বাণিজ্য, ঠিকাদারি কাজ ছাড়াও অন্যান্য ব্যবসায়িক কর্মকাণ্ডে চেম্বার সনদ প্রদান করে থাকে। ফলে ব্যবসা-বাণিজ্য ও অর্থনীতিতে চেম্বারের ভূমিকা অনেক। কিন্তু সেখানে যদি নিয়মিত নির্বাচিত নেতৃত্ব না আসে তবে স্বাভাবিকভাবেই সার্বিক কর্মকাণ্ডে স্থবিরতা আসবে। অথচ ঐতিহ্যবাহী যশোর চেম্বারসহ দেশের বেশ কিছু স্থানে নিয়মিত নির্বাচন হচ্ছে না। এ অবস্থা চলতে থাকলে বিরূপ প্রভাব পড়তে পারে।
গতকালের দৈনিক শেয়ার বিজে ‘নির্বাচন না হওয়ায় স্থবির যশোর চেম্বারের কার্যক্রম’ শিরোনামে একটি বিশেষ প্রতিবেদন ছাপা হয়েছে। খবরটিতে বলা হয়েছে, নির্বাচনের মাধ্যমে ক্ষমতা হস্তান্তর না হওয়ায় অচলাবস্থার মধ্যে পড়েছে যশোর চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজের কার্যক্রম। একজন সরকারি কর্মকর্তা প্রশাসক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন সংগঠনটির। কয়েক দফা তফসিল ঘোষণার পরও সেখানে ভোটগ্রহণ হয়নি। ফলে ব্যবসায়ীদের ন্যয়সঙ্গত অনেক দাবিও উপেক্ষিত হচ্ছে বলে তারা মনে করছেন, যা উদ্বেগজনক। দেশের অর্থনীতির মূল চালিকাশক্তি ব্যবসা-বাণিজ্য। এ খাতে শৃঙ্খলা ধরে রাখতে এবং অগ্রগতির স্বার্থে নির্বাচিত নেতৃত্বের হাতেই সংগঠনের নেতৃত্ব থাকা উচিত।
দক্ষিণাঞ্চলের ব্যবসা-বাণিজ্যে যশোর জেলার বিশেষ গুরুত্ব রয়েছে। দেশের সবচেয়ে বড় স্থলবন্দর বেনাপোলের অবস্থান থাকায় সেখানে ব্যবসা-বাণিজ্যেরও বিস্তৃতি ঘটেছে অনেক। কিন্তু সেখানে চেম্বারের কার্যক্রমে এমন অনিশ্চয়তা তৈরি হওয়া হতাশাজনক। খবরেই উল্লেখ করা হয়েছে, যশোর চেম্বারের সর্বশেষ নির্বাচন হয়েছে ২০১১ সালে। এরপর একাধিকবার তফসিল ঘোষণা করলেও নির্বাচন হয়নি। গুরুত্বপূর্ণ একটি চেম্বারের নির্বাচন নিয়ে এভাবে অচলাবস্থা তৈরি হওয়া অগ্রহণযোগ্য।
শুধু যশোর নয়, দেশের অনেক জেলার চেম্বারে এমন অচলাবস্থা চলছে বলে শোনা যায়। এর প্রভাব দেশের অর্থনীতিতেই পড়বে। এভাবে চলতে থাকলে যশোরসহ সব জেলা ও গুরুত্বপূর্ণ ব্যবসা কেন্দ্রগুলোয় ব্যবসায়ীদের মধ্যে হতাশা ও ক্ষোভ দেখা দিতে পারে। এর প্রভাবে শেষে ব্যবসায়ীদের মধ্যে প্রথমে হতাশা এবং পরে তা ক্ষোভে পরিণত হতে পারে। অনেক ব্যবসায়ী ইতোমধ্যে এ নিয়ে সে ধরনের প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছেন। এজন্য পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে যাওয়ার আগেই নির্বাচিত ব্যবসায়ী নেতাদের হাতেই চেম্বারগুলোর দায়িত্ব বুঝিয়ে দেওয়া উচিত। যদিও এ মুহূর্তে কোনো নির্বাচনের পরিকল্পনা নেই বলে সরকার নিয়োজিত প্রশাসক জানিয়েছেন, যা হতাশাজনক। যশোরসহ দেশের চেম্বারগুলোয় দ্রুত নির্বাচিত নেতাদের হাতে দায়িত্ব হস্তান্তরে সরকার ও সংশ্লিষ্টরা দ্রুত উদ্যোগী হবেন বলে আমরা আশা করি।

সর্বশেষ..