প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

চ্যালেঞ্জ সত্ত্বেও রেকর্ড প্রবৃদ্ধি শ্রীলঙ্কা টেলিকম গ্রুপের

শেয়ার বিজ ডেস্ক: শ্রীলঙ্কা টেলিকম গ্রুপ (এসএলটি গ্রুপ) চলতি বছর প্রথম প্রান্তিকে রেকর্ড মুনাফা করেছে। গত বছর একই সময়ের তুলনায় তাদের প্রবৃদ্ধি দাঁড়ায় পাঁচ দশমিক চার শতাংশে (দুই হাজার ৬০০ কোটি রুপি)। খবর: দ্য আইল্যান্ড।

দেশটির অর্থনৈতিক সংকট সত্ত্বেও একই সময় গ্রুপের প্রফিট আফটার ট্যাক্স (পিএটি) হয়েছে রেকর্ড ২৭০ কোটি রুপি। চলতি বছর শুরুতে এসএলটি ডিজিটাল রূপান্তরের ওপর জোর দেয়, স্টেকহোল্ডারদের লভ্যাংশ দেয় এবং স্বয়ংক্রিয় প্রক্রিয়াগুলো চালু রাখে। একই সঙ্গে দেশের প্রয়োজনে পাশেও থাকছে।

এসএলটি গ্রুপের ইবিআইটিডিএ (আর্নিংস বিফোর ইন্টারেস্ট, সুদ, কর ও অবচয়) রেকর্ড ৯ দশমিক ৯ শতাংশ লাভ করেছে। ওয়াইওওয়াই প্রবৃদ্ধি দাঁড়িয়েছে এক হাজার ৭০ কোটি রুপিতে। ইবিআইটিডিএ মার্জিন হয়েছে ৪১ শতাংশ, যা গত বছর ছিল ৩৯ দশমিক ৪ শতাংশ। এ প্রান্তিকে গ্রুপের প্রফিট বিফোর ট্যাক্স (পিবিটি) হয়েছে ৩০৫ কোটি রুপি। ব্রডব্যান্ড রাজস্ব বেড়ে যাওয়ায় গ্রুপের প্রাথমিক রাজস্ব বেড়েছে। ন্যাশনাল ফাইবারাইজেশন প্রোগ্রামের আওতায় চলমান ফাইবার এক্সপ্যানশন প্রজেক্ট ও ৪জি/এলটিই নেটওয়ার্কের সম্প্রসারণ ও আপগ্রেড থেমে থাকলেও তাদের মুনাফায় নেতিবাচক প্রভাব পড়েনি। ফাইবারাইজেশন সম্প্রসারণে বিনিয়োগ ও অপটিক্যাল ফাইবারের সমস্যা সমাধানে প্রথম প্রান্তিকে গ্রুপটি ক্রেতার চাহিদা পূরণ করতে সক্ষম হয়েছে। গ্রুপের অধীন পিইও টিভি-এর রাজস্ব বেড়েছে এ সময়। একই সময় ‘ক্যারিয়ার ডমেস্টিক সার্ভিস’-এর মানও বেড়েছে এ সময়।

এসএলটি গ্রুপের চেয়ারম্যান রোহান ফার্নান্দো বলেন, ২০২২ সালের প্রথম প্রান্তিক আমাদের ধারণার চেয়ে বেশি চ্যালেঞ্জের ছিল। যদিও এসএলটি-মোবিটেলের সামগ্রিক কর্মক্ষমতা আমাদের পোর্টফোলিওর স্থিতিশীলতা ও সক্ষমতা প্রমাণ করে দিয়েছে। ২০২২ সালের বাকি সময় আমরা জাতি ও জনগণের জন্য ডিজিটাল সেতুবন্ধ করার ব্যাপারে আশাবাদী। আমরা বছরজুড়ে স্টেকহোল্ডারদের একই সেবা দিয়ে

যেতে চাই। বিচক্ষণ আর্থিক শৃঙ্খলাও আমাদের সাফল্যের অন্যতম কারণ হিসেবে বিবেচিত। এসএলটি গ্রুপ প্রথম প্রান্তিকে শ্রীলঙ্কা সরকারকে ৪০২ কোটি রুপি দিয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ করসহ শুল্কও।

এসএলটি গ্রুপের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ললিথ সেনেভিরাত্নে বলেন, আমরা নেটওয়ার্ক ও ডিজিটাল সক্ষমতাসহ উদীয়মান প্রযুক্তিগুলোর মানোন্নয়নে ধারাবাহিকভাবে বিনিয়োগ করে যাচ্ছি। এসএলটির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা জানাকা আবেসিংগে মন্তব্য করেন, ব্যবসায়িক প্রবৃদ্ধি বজায় রাখতে আমরা সঠিক পথে রয়েছি এবং আর্থিকভাবে লাভবান হচ্ছি। ধারাবাহিকভাবে আমরা ব্রডব্যান্ড সেবা, ফাইবারাইজেশন ও ব্যান্ডওয়াইডথ ক্রেতার হার বাড়িয়েছি।

গ্রুপের মোবাইল ফোন অপারেটর মোবিটেল (প্রা.) লিমিটেড টেকসই রাজস্ব করেছে। প্রথম প্রান্তিকে তাদের আয় হয়েছে এক হাজার ১৬০ কোটি রুপি। মোবিটেলের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা চন্দিকা ভিথারেনা বলেন, এই অপ্রত্যাশিত সময়ও আমরা মুনাফা বাড়িয়ে চলেছি যাতে দেশবাসী সহজে যোগাযোগ রক্ষা করতে পারেন।

এসএলটি গ্রুপ শ্রীলঙ্কার চরম অর্থনৈতিক সংকট কাটিয়ে ওঠতে কিছু কৌশল বাস্তবায়ন করতে চায়।

এদিকে দেশটির প্রধানমন্ত্রী রনিল বিক্রমাসিংহে জানান, দেশে মাত্র এক দিনের মতো পেট্রল মজুত রয়েছে। এছাড়া বলা হচ্ছে, দিনে প্রায় ১৫ ঘণ্টা বন্ধ থাকতে পারে বিদ্যুৎ পরিষেবা। পেট্রলের অভাবে ভেঙে পড়তে চলেছে সেদেশের পরিবহন ব্যবস্থা। তার প্রভাব পড়তে চলেছে দেশের খাদ্যসামগ্রী, ওষুধসহ বিভিন্ন নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের ওপর। তবে শ্রীলঙ্কার নতুন ক্যবিনেট আশা করছে, তাড়াতাড়ি এই সংকট কাটিয়ে ওঠা সম্ভব হবে। প্রধানমন্ত্রী বলেন, আগামী দুই মাস আমাদের সবচেয়ে কঠিন সময়। সেই সময়ের মোকাবিলা করতে নিজেদের প্রস্তুত থাকতে হবে আমাদের। বহু চ্যালেঞ্জ আসবে আমাদের সামনে। অনেক ত্যাগ স্বীকার করে এই কঠিন সময় সামাল দিতে হবে। এই পরিস্থিতিতে এসএলটির মতো প্রতিষ্ঠানগুলোকে দেশ ও জনগণের পাশে পাওয়ার আশা করছে দেশটির সরকার।