জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী আজ

আশিকুল ইসলাম, জবি: জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় (জবি) ১৭তম বর্ষে পদার্পণ করতে যাচ্ছে আজ। ২০০৫ সালের ২০ অক্টোবর পূর্ণাঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে যাত্রা করে পুরান ঢাকার ঐতিহ্যবাহী শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানটি। কিন্তু এ দেড় দশকেও নানা সংকটের সমাধান হয়নি। তারপরও সংকট সঙ্গী করে আধুনিক বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে প্রতিষ্ঠা পাওয়ার পথে হেঁটে চলেছে এ উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি।

জানা গেছে, বুড়িগঙ্গা তীরে প্রতিষ্ঠানটির যাত্রা হয়েছিল ১৮৫৮ সালে, ব্রাহ্মদের স্কুল হিসেবে। ১৮৭২ সালে এর নাম বদলে রাখা হয় জগন্নাথ স্কুল। পরে তা কলেজে উন্নীত হয়। প্রতিষ্ঠানটি ২০০৫ সালে জাতীয় সংসদে ‘জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় আইন, ২০০৫’ পাসের মাধ্যমে একটি পূর্ণাঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ে রূপান্তরিত হয়। ২০০১-০২ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থীরা প্রথম জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে শিক্ষাসনদ লাভ করেন। জবির অধীন ২০০৫-০৬ শিক্ষাবর্ষ থেকে শিক্ষার্থী ভর্তি হওয়ার সুযোগ পায়। বর্তমানে বিশ্ববিদ্যালয়ে ছয়টি অনুষদে ৩৬টি বিভাগ ও দুটি ইনস্টিটিউটে প্রায় ৬৭৯ শিক্ষক, ১৩ হাজার ১৬৫ শিক্ষার্থী ও ৬৮৬ কর্মকর্তা-কর্মচারী রয়েছেন।

বিশ্ববিদ্যালয়টি মাত্র ১১ দশমিক ১১ একর জমির ওপর প্রতিষ্ঠিত। অবশ্য ২০১৯ সালের ৯ অক্টোবর কেরানীগঞ্জে বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন ক্যাম্পাস নির্মাণের

জন্য ভূমি অধিগ্রহণ ও উন্নয়ন প্রকল্পে এক হাজার ৯২০ কোটি ৯৪ লাখ ৩৯ হাজার টাকার প্রকল্প অনুমোদন পেয়েছে। কিন্তু দুই বছর পার হলেও ভূমি অধিগ্রহণ ছাড়া প্রকল্পে নেই কোনো অগ্রগতি।

স্থানীয় প্রভাবশালীদের ক্ষমতার অপব্যবহারের ফলে তৎকালীন সময়ের সবচেয়ে বেশি আবাসিক হল থাকা জগন্নাথ কলেজ থেকে হাতছাড়া হয় সব আবাসিক হল। উপাচার্য ও কোষাধ্যক্ষ থেকে শুরু করে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের এখন পর্যন্ত আবাসনের কোনো ব্যবস্থা নেই। তবে এরই মধ্যে নির্মিত হয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রীদের জন্য বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হল। শুরু হয়েছে ছাত্রীদের ওঠানোর প্রক্রিয়াও।

শিক্ষক-শিক্ষার্থীর অনুপাত ইতিবাচক থাকলেও শ্রেণিকক্ষ সংকট রয়ে গেছে। শিক্ষার্থীদের যাতায়াতের জন্য দুই শিফটের দাবি করা হলেও তা কার্যকর করা হয়নি।

প্রতিবছর ২০ অক্টোবর ‘জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় দিবস’ পালন করা হয়। তবে এবার সরকারি ছুটি থাকায় আগামীকাল দিবসটি উদ্যাপন করা হবে। প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে এদিন সকাল ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের শহিদ মিনার চত্বরে জাতীয় পতাকা ও বিশ্ববিদ্যালয়ের পতাকা উত্তোলন এবং জাতীয় সংগীত পরিবেশনের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠান শুরু হবে। এরপর বেলুন ও পায়রা উড়িয়ে বিশ্ববিদ্যালয় দিবসের উদ্বোধন শেষে সকাল ১১টা ২০ মিনিটে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে অস্থায়ী টিকা ক্যাম্পের উদ্বোধন করবেন উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. ইমদাদুল হক।

পরে দুপুর ১২টায় ভার্চুয়াল প্ল্যাটফর্মে আলোচনা সভা হবে। এতে প্রধান অতিথি থাকবেন উপাচার্য। বিশেষ অতিথি থাকবেন ট্রেজারার অধ্যাপক ড. কামালউদ্দীন আহমদ। এছাড়া আলোচনা সভায় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, কর্মকর্তা ও অন্যরা সংযুক্ত থাকবেন।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন   ❑ পড়েছেন  ৯০  জন  

সর্বশেষ..