সারা বাংলা

জাবিতে র‌্যাগিংয়ের অভিযোগ

প্রতিনিধি, জাবি: জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) সাংবাদিকতা ও গণমাধ্যম অধ্যয়ন বিভাগের ৪৮তম ব্যাচের শিক্ষার্থীদের রাতের আঁধারে কেন্দ্রীয় খেলার মাঠে নিয়ে র‌্যাগিংয়ের অভিযোগ উঠেছে একই বিভাগের ৪৭তম ব্যাচের শিক্ষার্থীদের বিরুদ্ধে। গত সোমবার রাত ১০টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর আ স ম ফিরোজ-উল-হাসানের কাছে এ বিষয়ে মৌখিক অভিযোগ দেন ভুক্তভোগীরা।
৪৮তম ব্যাচের শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, সোমবার বিভাগের আয়োজনে জেএমএস প্রিমিয়ার লিগ শুরু হয়। ৪৮তম আবর্তনের সব শিক্ষার্থীকে মাঠে যেতে বলে ৪৭তম আবর্তনের শিক্ষার্থীরা। কিন্তু ৪৮তম আবর্তনের মাত্র ২০-২৫ জন শিক্ষার্থী মাঠে যায়। সবাই মাঠে না যাওয়ার কারণে রাত ৮টায় তাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় খেলার মাঠে ডেকে নেয় ৪৭তম আবর্তনের শিক্ষার্থীরা। এ সময় ৪৮তম আবর্তনের শিক্ষার্থীদের অকথ্য ভাষায় গলিগালাজ ও কান ধরে দাঁড় করিয়ে রাখেন তারা। পরে ৪৭তম আবর্তনের শিক্ষার্থী রাইসুল ইসলাম উত্তেজিত হয়ে ৪৮তম আবর্তনের এক শিক্ষার্থীর দিকে জুতা নিক্ষেপ করেন। এ সময় অনেক শিক্ষার্থীকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করা হয়। পরে প্রক্টরের কাছে কোনো অভিযোগ করতে নিষেধ করে রাত পৌনে ১০টায় ৪৭তম আবর্তনের শিক্ষার্থীরা সেখান থেকে চলে যান।
খবর পেয়ে রাত ১০টায় ঘটনাস্থলে যান বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর। এ সময় ৪৮তম আবর্তনের শিক্ষার্থীরা প্রক্টরের কাছে মৌখিকভাবে অভিযোগ দেন। তারা জানান, শহীদ সালম বরকত হলের তানভীর হোসেন, হারুনুর রশিদ, বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর হলের এনামুল হক তামীম, মওলানা ভাসানী হলের রাইসুল ইসলাম রাজু, তাওসিফ আবদুল্লাহ, স্টিব সলগা রেমা, জাকির হোসেন জীবন, মাহবুবুর রহমান, বেগম খালেদা জিয়া হলের সারা বিনতে সালাহ, প্রীতিলতা হলের সায়মা লিমা, ফাবিয়া বিনতে হক ১২ জন শিক্ষার্থী র‌্যাগিংয়ের ঘটনায় জড়িত ছিলেন।
এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর আ স ম ফিরোজ-উল-হাসান বলেন, ‘বিভাগের সভাপতি এবং এক শিক্ষার্থীর ফোন পেয়ে আমরা তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থলে যাই। আমরা উপস্থিত হওয়ার আগেই ৪৭তম আবর্তনের শিক্ষার্থীরা পালিয়ে যায়। পরে আমরা ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীদের অভিযোগ শুনি।’
এ ব্যাপারে সাংবাদিকতা ও গণমাধ্যম অধ্যায়ন বিভাগের সভাপতি সহযোগী অধ্যাপক শেখ আদনান ফাহাদ বলেন, ‘রাতেই ঘটনা জেনেছি। আমারা উভয় ব্যাচের সঙ্গে বসেছি। ভুক্তভোগীদের লিখিত দিতে বলেছি। আর বিষয়টি প্রক্টরিয়াল টিম তদন্ত করবে। আমরা বিভাগের পক্ষ থেকে তদন্তে সর্বাত্মক সহযোগিতা করব।

 

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..