স্পোর্টস

জিম্বাবুয়েকে বেশিদূর এগোতে দেননি শাহাদাত

ক্রীড়া প্রতিবেদক: গেল অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপেই বল হাতে কারিশমা দেখিয়েছিলেন। সে ধারাবাহিকতা সফরকারী জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে একমাত্র প্রস্তুতি ম্যাচের প্রথম দিনেও ধরে রাখেন শাহাদাত হোসেন। তাই তো উদ্বোধনী জুটি ভালো শুরুর পরও সেটা ধরে রাখতে পারেনি ক্রেইগ আরভিনের দল। বলতে গেলে অতিথিরা এদিন বেশিদূর এগোতে পারেনি মূলত শাহাদাতের ঘূর্ণি বলের কারণে।

বিকেএসপির ৩ নম্বর মাঠে গতকাল দুদিনের প্রস্তুতি ম্যাচের প্রথম দিন শেষে জিম্বাবুয়ে করে ৭ উইকেটে ২৯৭ রান। উইকেটে রয়েছেন কার্ল মুম্বা ৫৪ ও আইন্সলে ২৫ রানে। বিসিবি একাদশের শাহাদাত হোসেন ৩টি উইকেট নিয়েছেন মাত্র ১৮ রানে।

টস না করেই গতকাল আগে বল হাতে নামে বিসিবি একাদশ। কিন্তু প্রথম সেশনে নিজেদের ঠিক মেলে ধরতে পারেনি মুকিদুল-শরিফুল-সুমন খানরা। সে সুযোগে সফরকারী দলের দুই ওপেনার কেভিন কাসুজা ও প্রিন্স মাসভাউরি ২৮ ওভারে স্কোর বোর্ডে ৯৫ রান তুলেন। বিরতির পরই অবশ্য ৪৫ রানে মাসভাউরিকে ফিরিয়ে দেন অধিনায়ক আল-আমিন জুনিয়র। তাতে ১০৫ রানের বিপজ্জনক জুটি ভাঙে। অন্য প্রান্তে থাতা কাসুজাও ৫১ রানে অপরাজিত থেকে মাঠ ছেড়েছিলেন অসুস্থ হয়ে। রিটায়ার্ড হার্ট হয়ে ফিরে যাওয়া কাসুজা আবার ব্যাটিংয়ে নেমেও সুবিধা করতে পারেননি। ৭০ রান করে রান আউট হয়ে ফেরেন এ ব্যাটসম্যান।

গতকাল আক্রমণে এসেই জিম্বাবুয়ে অধিনায়ক ক্রেইগ আরভিনকে ফিরিয়ে দেন শাহাদাত। এদিকে ৪ রানের মধ্যে ব্রায়ান মুজিঙ্গানিয়ামাকে ড্রেসিংরুমে পাঠান পেসার শরিফুল ইসলাম। ১২৯ রানে ৩ উইকেট হারানো জিম্বাবুয়ে এরপরও ম্যাচে ফেরার চেষ্টা করছিল। কিন্তু ৩ বলের মধ্যে চাকাভা ও মুতুমবোজিকে এলবিডব্ল– করে ফেরান শাহাদাত। প্রথম ৬ ওভারে মাত্র ৫ রান দিয়ে তিন উইকেট নেন এ অফস্পিনার।

চা বিরতির পর প্রতিরোধ গড়েন তিমিসেন মারুমা ও কার্ল মুম্বা। ২২৬ রানের মারুমাকে ফিরিয়ে বিপজ্জনক এ জুটি ভাঙেন আল-আমিন জুনিয়র। তার বলে রিশাদ আহমেদের হাতে ক্যাচ দেন মারুমা। ফেরার আগে তিনি করেন ২ চার ও ১ ছয়ে ৩৪ রান। তাতে ভাঙে মারুমা-মুম্বার ৪৯ রানের জুটি। এরপর নিরাপদেই দিনেই বাকি সময় পার করে দেন মুম্বা ও আইন্সলে। আজ ম্যাচের দ্বিতীয় ও শেষ দিনে সকাল ৯টা ৩০ মিনিটে ফের মাঠে নামবে তারা।

প্রস্তুতি ম্যাচে আগে সাধারণত টেস্ট স্কোয়াডের বেশ কয়েকজনকে রাখা হয় দলে। কিন্তু জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে নিজেদের সে অভ্যাস থেকে সরে এসেছে বিসিবি। একদম তরুণদের সুযোগ করে দেওয়া হয়েছে দুই দিনের এ ম্যাচে। তারপরও গতকাল শাহাদাত-আল আমিনরা দেখিয়েছেন- সুযোগ পেলে আমরাও পারি।

সংক্ষিপ্ত স্কোর: (১ম দিন শেষে)

জিম্বাবুয়ে ২৯১/৭ (৯০), মাসভাউরি ৪৫, কাসুজা ৭০, মুজিঙ্গানিয়ামা ১৭, আরভিন ১০, মারুমা ৩৪, চাকাভা ১৩, মুতুমবোজি ০, মুম্বা ৫৪*, আইন্সলে ২৫*; মুগ্ধ ১১-৩-৩৯-০, শরিফুল ১৫-৫-৪৫-১, সুমন ১৩-৪-২৯-০, বিপ্লব ১৯-১-৭৭-০, আল আমিন ১২-০-৪০-২, রিশাদ ১২-৩-২৬-০, শাহাদাত ৮-২-১৬-৩।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..