কোম্পানি সংবাদ পুঁজিবাজার

জিরো কুপন বন্ড ছাড়বে বিডি ফাইন্যান্স

নিজস্ব প্রতিবেদক: আর্থিক প্রতিষ্ঠান খাতের কোম্পানি বাংলাদেশ ফাইন্যান্স অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট কোম্পানি (বিডি ফাইন্যান্স) লিমিটেডের পরিচালনা পর্ষদ ২০০ কোটি টাকার জিরো কুপন বন্ড ছাড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

প্রাপ্ত তথ্যমতে, ব্যবসা সম্প্রসারণ এবং অর্থায়নের উৎস হিসেবে বাংলাদেশ ফাইন্যান্স অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট কোম্পানি ২০০ কোটি টাকার জিরো কুপন বন্ড ইস্যু করবে। বন্ডের নাম হবে বিডি ফাইন্যান্স ফার্স্ট জিরো কুপন বন্ড। বন্ডটি অরূপান্তযোগ্য, সম্পূর্ণ পরিশোধযোগ্য, অসুরক্ষিত জিরো কুপন বন্ড। তিন বছরমেয়াদি বন্ডটির ইস্যু মূল্য ১০ লাখ টাকা। ম্যানডেটেড লিড অ্যারেঞ্জার হিসেবে কাজ করছে সিটি ব্যাংক ক্যাপিটাল রিসোর্স লিমিটেড। বন্ডটির ট্রাস্টি সন্ধানী লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি এবং ডিসকাউন্টিং রেট সাত থেকে সাড়ে সাত শতাংশ।

এদিকে গতকাল ডিএসইতে কোম্পানিটির শেয়ারদর শূন্য দশমিক ৯৫ শতাংশ বা ২০ পয়সা কমে প্রতিটি সর্বশেষ ২০ টাকা ৮০ পয়সায় হাতবদল হয়, যার সমাপনী দরও ছিল ২০ টাকা ৮০ পয়সা। দিনজুড়ে ২০ লাখ ৮৫ হাজার ৯১১ শেয়ার ৭০১ বার হাতবদল হয়, যার বাজারদর চার কোটি ৩৫ লাখ ৫০ হাজার টাকা। দিনভর শেয়ারদর সর্বনি¤œ ২০ টাকা ৫০ পয়সা থেকে সর্বোচ্চ ২১ টাকা ৩০ পয়সায় হাতবদল হয়। গত এক বছরে শেয়ারদর ছয় টাকা ৯০ পয়সা থেকে ২৮ টাকা ৯০ পয়সার মধ্যে ওঠানামা করে।

চলতি হিসাববছরের তৃতীয় প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর, ২০২০) শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) বেড়েছে আর্থিক প্রতিষ্ঠান খাতের খাতের কোম্পানি বাংলাদেশ ফাইন্যান্স অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট কোম্পানি লিমিটেডের।

প্রাপ্ত তথ্যমতে, তৃতীয় প্রান্তিকে ইপিএস হয়েছে ৫৫ পয়সা, যা আগের বছর একই সময় ছিল ৯ পয়সা লোকসান। অর্থাৎ আগের বছরের তুলনায় ইপিএস বেড়েছে ৬৪ পয়সা। মূলত শেয়ারে বিনিয়োগ থেকে ক্যাপিটাল গেইন হওয়ায় ইপিএস বেড়েছে।

আর প্রথম তিন প্রান্তিকে (জানুয়ারি-সেপ্টেম্বর, ২০২০) ইপিএস হয়েছে এক টাকা দুই পয়সা, আগের বছর ছিল ১৪ পয়সা। এছাড়া ২০২০ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর তারিখে শেয়ারপ্রতি সম্পদমূল্য দাঁড়িয়েছে ১৭ টাকা ৩৯ পয়সা, যা ২০১৯ সালের ৩১ ডিসেম্বরে ছিল ১৬ টাকা ৩৭ পয়সা। তিন প্রান্তিকে শেয়ারপ্রতি নগদ অর্থপ্রবাহ হয়েছে দুই টাকা ৯৮ পয়সা, আগের বছর একই সময়ে ছিল ২৭ পয়সা (লোকসান)।

৩১ ডিসেম্বর ২০১৯ সমাপ্ত হিসাববছরের জন্য কোম্পানিটি ১২ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে। আলোচিত সময়ে শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে এক টাকা ১২ পয়সা এবং ৩১ ডিসেম্বর তারিখে শেয়ারপ্রতি সম্পদমূল্য (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ১৬ টাকা ৩৭ পয়সা। আগের বছর একই সময় যা ছিল যথাক্রমে এক টাকা ৬৮ পয়সা ও ১৫ টাকা ২৫ পয়সা। আর এই হিসাববছরে শেয়ারপ্রতি নগদ অর্থপ্রবাহ হয়েছে ৯৭ পয়সা, আগের বছর যা ছিল এক টাকা ৬৪ পয়সা। ঘোষিত লভ্যাংশ বিনিয়োগকারীদের সম্মতিক্রমে অনুমোদনের জন্য আগামী ১০ ডিসেম্বর বেলা ১১টায় অনলাইনে বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) অনুষ্ঠিত হবে।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..