Print Date & Time : 23 June 2021 Wednesday 4:55 pm

জীবাশ্ম জ্বালানি খাতে এডিবির বিনিয়োগ বন্ধের দাবি

প্রকাশ: May 1, 2021 সময়- 01:47 am

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম: বাংলাদেশের জ্বালানি খাতে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকের (এডিবি) বিনিয়োগ শুধু দেশকে দেনায় জর্জরিত করছে না বরং পরিবেশ ও জলবায়ুর মারাত্মক ক্ষতিসাধন করছে। স্বাধীনতার পর থেকে এ পর্যন্ত এডিবি বাংলাদেশের জ্বালানি খাতে প্রায় ছয় দশমিক ১৩ বিলিয়ন ডলার বা প্রায় ৫২ হাজার কোটি টাকা বিনিয়োগ করেছে যার ৯৮ শতাংশই জীবাশ্ম জ্বালানি খাতে। বিগত ১০ বছরে সব মিলিয়ে ৯ হাজার ৪০০ মেগাওয়াট ক্ষমতাসম্পন্ন ১২টি বিদ্যুৎকেন্দ্রে বিনিয়োগ করেছে এডিবি, যা প্রতি বছর গড়ে ১৯ দশমিক তিন মিলিয়ন টন কার্বন নির্গমনের জন্য দায়ী।

চট্টগ্রামের চান্দগাঁওয়ে গতকাল বাংলাদেশ বৈদেশিক দেনাবিষয়ক কর্মজোট (বিডব্লিউজিইডি) ও আইএসডিই বাংলাদেশের যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তারা এসব কথা বলেন।

তারা বলেন, বাংলাদেশে বৈশ্বিক উষ্ণতার ভয়াবহ বিপর্যয় রোধে তেল, গ্যাস ও কয়লাভিত্তিক জীবাশ্ম জ্বালানির উন্নয়ন প্রকল্পে এডিবির সহায়তা বন্ধ করতে হবে। পরিবেশ ও জলবায়ু সুরক্ষায় তারা অবিলম্বে নতুন জীবাশ্ম জ্বালানির উৎপাদন ও এ-সংক্রান্ত অবকাঠামোর উন্নয়ন প্রকল্পে বিনিয়োগ বন্ধের আহ্বান জানিয়েছেন। সে সঙ্গে নবায়নযোগ্য জ্বালানি খাতের বিনিয়োগ বাড়ানোর দাবি জানান। তবে সৌরশক্তি ও বায়ুশক্তির মতো নবায়নযোগ্য জ্বালানি খাতে গতি আনাই জলবায়ু রক্ষার জন্য যথেষ্ট পদক্ষেপ নয় বলে মন্তব্য করেন।

বক্তারা আরও বলেন, আগামী ৩ থেকে ৫ মে এডিবির বার্ষিক সধারণ সভা অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। এ সভায় এডিবির নতুন জ্বালানি নীতিবিষয়ক আলোচনা অনুষ্ঠিত হবে। প্যারিস চুক্তিতে স্বাক্ষরকারী সংস্থা হিসেবে পৃথিবীর তাপমাত্রা বৃদ্ধি এক দশমিক পাঁচ ডিগ্রির মধ্যে রাখার জন্য অবশ্যই এডিবির জ্বালানি নীতিতে সুস্পষ্ট এবং বাস্তবসম্মত প্রতিফলন ঘটাতে হবে।

বক্তারা বলেন, এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকের অর্থায়নে বাস্তবায়িত বেশিরভাগ প্রকল্পে স্থানীয় পরিবেশ ও মানুষের জীবন-জীবিকার বিষয়টি উপেক্ষা করা হয়েছে। অনৈতিকভাবে জমি দখল, ন্যায্য ক্ষতিপূরণ না দেয়া, সাধারণ মানুষকে হয়রানি এবং বৈশ্বিক জলবায়ু সমস্যাকে গুরুত্ব না দিয়েই এডিবির বিনিয়োগে বেশ কয়েকটি বিদ্যুৎ প্রকল্প চলছে বলে তারা দাবি করেন। বক্তারা বাংলাদেশের শতভাগ নবায়নযোগ্য জ্বালানি নিশ্চিত করার জন্য এডিবির জোর উদ্যোগের আহ্বান জানান।

সমাবেশে সংহতি জানিয়ে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন কনজ্যুমার অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (ক্যাব) কেন্দ্রীয় ভাইস প্রেসিডেন্ট এসএম নাজের হোসাইন। ইশিকা ফাউন্ডেশনের জহুরুল ইসলামের সঞ্চালনায় আলোচনায় অংশ নেন ক্যাব বিভাগীয় সাধারণ সম্পাদক কাজী ইকবাল বাহার ছাবেরী, দক্ষিণ জেলা কৃষক লীগের সভাপতি আতিকুর রহমান চৌধুরী, কলামিস্ট মোহাম্মদ মুসা খান, উত্তর জেলা কৃষক লীগের দপ্তর সম্পাদক সেলিম সাজ্জাদ, জেলা স্কাউটসের সহসভাপতি অধ্যাপক শাহনেওয়াজ আলী মির্জা, জেলা সামাজিক উদ্যোক্তা পরিষদের যুগ্ম সম্পাদক মুহাম্মদ জানে আলম, প্রজš§ চট্টগ্রামের প্রধান নির্বাহী চৌধুরী জসিমুল হক, শিশু বিশেষজ্ঞ ডা. নাজমুস সাকিব, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ছাত্রনেতা মাহবুবুর রহমান, জাতীয় আবৃতি শিল্পী মেজবাহ চৌধুরী, কৃষিবিদ আরিফুল ইসলাম, সিএসডিএফের শাহীন আকতার ও আইএসডিইয়ের আরিফুল ইসলাম প্রমুখ।