প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

জেমিনি সি ফুডের দর বেড়েছে ৬২.০৬%

নিজস্ব প্রতিবেদকঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) তালিকাভুক্ত কোম্পানি জেমিনি সি ফুড লিমিটেড গত সপ্তাহে দরবৃদ্ধির তালিকায় শীর্ষে উঠে এসেছে। আলোচিত সময়ে কোম্পানিটির শেয়ারদর বেড়েছে ৬২ দশমিক শূন্য ছয় শতাংশ। ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

সূত্রমতে, গত সপ্তাহে কোম্পানিটির প্রতিদিন গড় লেনদেন হয়েছে সাত কোটি ৯ লাখ ২২ হাজার ২০০ টাকা। সপ্তাহ শেষে মোট লেনদেনের পরিমাণ ৩৫ কোটি ৪৬ লাখ ১১ হাজার টাকা।

সর্বশেষ কার্যদিবসে শেয়ারদর ৬৪ দশমিক ১২ শতাংশ বা ৩৮৬ টাকা ৮০ পয়সা বেড়ে প্রতিটি সর্বশেষ ৯৯০ টাকায় হাতবদল হয়, যার সমাপনী দর ছিল ৯৯৯ টাকা ৪০ পয়সা। দিনজুড়ে তিন লাখ ২৩ হাজার ৭৯৩টি শেয়ার মোট সাত হাজার ৯৯৯ বার হাতবদল হয়, যার বাজারদর ৩২ কোটি ৬৯ লাখ ১৯ হাজার টাকা। দিনজুড়ে শেয়ারদর সর্বনি¤œ ৮০৫ টাকা থেকে দুই হাজার টাকায় হাতবদল হয়। এক বছরে শেয়ারদর ৫২১ টাকা ১০ পয়সা থেকে দুই হাজার টাকার মধ্যে ওঠানামা করে। ১৯৮৫ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হয় ‘এ’ ক্যাটাগরির এ কোম্পানি।

২০১৭ সালের ৩০ জনু সমাপ্ত হিসাববছরের আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা করে ১২৫ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে। ওই সময় শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১৩ টাকা ছয় পয়সা ও শেয়ারপ্রতি সম্পদমূল্য (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ২৬ টাকা তিন পয়সা। এটি আগের বছর একই সময় ছিল যথাক্রমে ১৩ টাকা ৮১ পয়সা ও ২১ টাকা ৪৫ পয়সা। আগামী ১৮ ডিসেম্বর বেলা ১১টা ১৫ মিনিটে নিউ সেলিব্রিটি কনভেনশন সেন্টার, ৩বি, সাতমসজিদ রোড, ধানমন্ডি, ঢাকায় বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) অনুষ্ঠিত হবে। এজন্য রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে আগামী ১৬ নভেম্বর।

দুই কোটি টাকা অনুমোদিত মূলধনের বিপরীতে পরিশোধিত মূলধন এক কোটি ৬৫ লাখ টাকা। কোম্পানির রিজার্ভের পরিমাণ ৭১ লাখ টাকা। কোম্পানিটির মোট ১৬ লাখ ৫০ হাজার শেয়ার রয়েছে। ডিএসইর সর্বশেষ তথ্যমতে, কোম্পানির মোট শেয়ারের মধ্যে উদ্যোক্তা ও পরিচালকদের কাছে রয়েছে ৩৯ দশমিক ৬০ শতাংশ শেয়ার, প্রাতিষ্ঠানিক তিন দশমিক ৮৬ শতাংশ ও সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছে বাকি ৫৬ দশমিক ৫৪ শতাংশ শেয়ার রয়েছে।

তালিকার দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে সাফকো স্পিনিং মিলস লিমিটেড। এ কোম্পানির শেয়ারদর বেড়েছে ৩৬ দশমিক ৬০ শতাংশ। আলোচ্য সপ্তাহে কোম্পানিটির প্রতিদিন গড়ে চার কোটি ৫৮ লাখ ১৪ হাজার ৮০০ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। আর পুরো সপ্তাহে লেনদেন হয়েছে ২২ কোটি ৯০ লাখ ৭৪ হাজার টাকার শেয়ার।

সর্বশেষ কার্যদিবসে শেয়ারদর ১০ শতাংশ বা এক টাকা ৯০ পয়সা বেড়ে প্রতিটি সর্বশেষ ২০ টাকা ৯০ পয়সায় হাতবদল হয়, যার সমাপনী দর ছিল ২০ টাকা ৯০ পয়সা। দিনজুড়ে ৬৮ লাখ ২৬ হাজার ২৬৭টি শেয়ার মোট তিন হাজার ৮২ বার হাতবদল হয়, যার বাজারদর ১৪ কোটি আট লাখ ৭২ হাজার টাকা। দিনজুড়ে শেয়ারদর সর্বনি¤œ ২০ টাকা ১০ পযসা থেকে ২০ টাকা ৯০ পয়সায় হাতবদল হয়। এক বছরে শেয়ারদর ১০ টাকা ১০ পয়সা থেকে ২১ টাকার মধ্যে ওঠানামা করে।

কোম্পানিটির মোট দুই কোটি ৭৯ লাখ ৮৮ হাজার ৯০৬টি শেয়ার রয়েছে। ডিএসইর সর্বশেষ তথ্যমতে, মোট শেয়ারের মধ্যে উদ্যোক্তা ও পরিচালকদের ৩০ শতাংশ শেয়ার, প্রাতিষ্ঠানিক এক দশমিক ৩৮ শতাংশ ও সাধারণ বিনিয়োগকারীর কাছে ৬৮ দশমিক ৬২ শতাংশ শেয়ার রয়েছে।

তালিকার তৃতীয় স্থানে থাকা মুন্নু জুট স্টাফলারস লিমিটেডের শেয়ারদর বেড়েছে ১৯ দশমিক ২৬ শতাংশ। আলোচ্য সপ্তাহে কোম্পানিটির প্রতিদিন গড়ে এক কোটি পাঁচ লাখ ছয় হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। আর পুরো সপ্তাহে পাঁচ কোটি ২৫ লাখ ৩০ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে।

সর্বশেষ কার্যদিবসে শেয়ারদর সাত দশমিক ৪৯ শতাংশ বা ৬০ টাকা ৬০ পয়সা বেড়ে প্রতিটি সর্বশেষ ৮৬৯ টাকা ৩০ পয়সায় হাতবদল হয়, যার সমাপনী দর ছিল ৮৬৯ টাকা ৩০ পয়সা। দিনজুড়ে ২৮ হাজার ৩১০টি শেয়ার মোট এক হাজার ১৪ বার হাতবদল হয়, যার বাজারদর দুই কোটি ৪০ লাখ ৯৭ হাজার টাকা। কোম্পানিটির মোট চার লাখ শেয়ার রয়েছে। ডিএসইর সর্বশেষ তথ্যমতে, মোট শেয়ারের মধ্যে উদ্যোক্তা ও পরিচালকদের ৫৪ দশমিক ৭৩ শতাংশ শেয়ার, প্রাতিষ্ঠানিক ছয় দশমিক ৯৪ শতাংশ, বিদেশি দশমিক ৩৬ শতাংশ ও সাধারণ বিনিয়োগকারীর কাছে ৩৭ দশমিক ৯৭ শতাংশ শেয়ার রয়েছে।

তালিকায় থাকা অন্য কোম্পানিগুলো মধ্যে রংপুর ফাউন্ড্রির ১৫ দশমিক ৩৪ শতাংশ, বাংলাদেশ ন্যাশনাল ইন্স্যুরেন্স কোম্পানির ১২ দশমিক ৪৪ শতাংশ, মুন্নু সিরামিকসের ১২ শতাংশ, স্টাইলক্রাফটের ১০ দশমিক ৯৪ শতাংশ, ওয়াটা কেমিক্যালসের ১০ দশমিক ৫৭ শতাংশ, এপেক্স ফুডসের ১০ দশমিক ২৪ শতাংশ এবং রংপুর ডেইরি অ্যান্ড ফুড প্রোডাক্টসের ১০ দশমিক ২৪ শতাংশ দর বেড়েছে।