বিশ্ব সংবাদ

জ্বালানি তেলের চাহিদা প্রবৃদ্ধির পূর্বাভাস কমাল ওপেক

শেয়ার বিজ ডেস্ক: বিশ্বজুড়ে অর্থনৈতিক মন্দার পরিপ্রেক্ষিতে ২০২০ সালে জ্বালানি তেলের চাহিদা প্রবৃদ্ধির পূর্বাভাস কমানো হয়েছে। গত বুধবার জ্বালানি তেল উত্তোলনকারী দেশগুলোর সংস্থা ওপেক এ তথ্য প্রকাশ করে। সংস্থাটি জানিয়েছে, চাহিদার অতিরিক্ত অপরিশোধিত তেল উত্তোলন বন্ধ করার দিকেও নজর দেওয়া হচ্ছে। খবর: রয়টার্স।
ওপেকের মাসিক প্রতিবেদনে তেল উত্তোলনকারী দেশগুলো জানিয়েছে, জ্বালানি তেলের চাহিদা ১০ লাখ আট হাজার ব্যারেল বাড়তে পারে। আগের পূর্বাভাস অনুযায়ী এ পরিমাণ দিনে প্রায় ৬০ হাজার ব্যারেল কম। প্রতিবেদনে ইঙ্গিত দেওয়া হয়েছে, বাজারে উদ্বৃত্ত তৈরি হতে পারে।
যুক্তরাষ্ট্র ও চীনের মধ্যে চলমান বাণিজ্যযুদ্ধের কারণে জ্বালানি তেলের চাহিদা কমেছে। এছাড়া যুক্তরাজ্যের ব্রেক্সিট প্রক্রিয়া নিয়ে সৃষ্ট অনিশ্চয়তাও এক্ষেত্রে বড় ভূমিকা রাখছে। ফলে ওপেক ও এর সহযোগী দেশগুলো জ্বালানি তেলের উত্তোলন সমন্বয় কিংবা কমিয়ে আনার ব্যাপারে নতুন নীতি গ্রহণ করেছে। ইরাক জানিয়েছে, তেলের উত্তোলন আরও কমানো হবে কি না সে বিষয়ে আলোচনায় বসবেন মন্ত্রীরা।
ওপেকের প্রতিবেদন অনুযায়ী, আগামী বছর প্রবৃদ্ধি হতে পারে তিন দশমিক এক শতাংশ। যদিও এর আগে পূর্বাভাস করা হয়েছিল তিন দশমিক দুই শতাংশ। আগামী বছর যুক্তরাষ্ট্রের মতো শক্ত প্রতিদ্বন্দ্বী দেশগুলোর বাড়তি সরবরাহের কারণে জ্বালানি তেলের বাজার প্রভাবিত হতে পারে বলে সংস্থাটি মনে করছে।
ওপেক, রাশিয়া ও অন্য জ্বালানি তেল উত্তোলনকারী দেশগুলো গত জানুয়ারিতে একটি চুক্তিতে পৌঁছায়। সে অনুযায়ী প্রতিদিন ১২ লাখ ব্যারেল তেল কম উত্তোলন করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়। এছাড়া ওপেক প্লাস নামের ওই জোট চুক্তি ২০২০ সালের মার্চ পর্যন্ত বর্ধিত করে। চুক্তিটি পর্যালোচনা করার জন্য একটি কমিটি ফের সভায় মিলিত হচ্ছে।

সর্বশেষ..