প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

ঝালকাঠিতে আমনে চিটা

শেয়ার বিজ ডেস্ক: ঝালকাঠিতে শীষ বের হওয়ার সময় প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারণে মাঠের অধিকাংশ গাছ মাটিতে শুয়ে পড়ায় বেশিরভাগ ধানই চিটা হয়ে গেছে। ফলে আমন ফলনে বিপর্যয়ের আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। খবর পরিবর্তন।

চলতি মৌসুমে ঝালকাঠি জেলায় ৫০ হাজার ৭৭৫ হেক্টর জমিতে আমন আবাদ হয়েছে। যা থেকে উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ৯৪ হাজার ১৬৯ মেট্রিক টন। ঝালকাঠিতে এখন চলছে আমন ধান কাটার উৎসব। কৃষকরা সোনালি ধান ঘরে তুলতে ব্যস্ত। চলছে ধান কাটা ও মাড়াইয়ের কাজ। তবে তাদের মুখে নেই হাসি। নভেম্বর মাসে শীষ আসার সময় দু’দফা নি¤œচাপের প্রভাবে আগাম জাতের ধানগাছ মাটিতে শুয়ে পড়েছিল। এতে এই জাতের ধানে আর্ধেকেরও বেশি চিটা হয়ে গেছে। বাড়াইকরণ গ্রামের কৃষক মোফাজ্জেল হোসেন জানান, ১৫ হাজার টাকা খরচ করে বিঘাপ্রতি আট থেকে ১০ হাজার টাকা ক্ষতির আশঙ্কা করছেন তারা। কৃষক দেলোয়ার হোসেনের অভিযোগ, কৃষি বিভাগের লোকজন মাঠে না গিয়েই অফিসে বসে কাগজে-কলমে ধানের বাম্পার ফলন দেখান। এছাড়া সরকারি সহায়তাও প্রকৃত কৃষক পাননি বলে অভিযোগ রয়েছে স্থানীয় কৃষি বিভাগের বিরুদ্ধে। ঝালকাঠি কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের উপ-পরিচালক শেখ আবু বকর সিদ্দিক চিটার কথা স্বীকার করলেও কৃষকের অভিযোগ অস্বীকার করে জানান, মাঠকর্মীরা নিয়মিত কৃষকের সঙ্গে যোগাযোগ রক্ষা করে চলেছেন।