সারা বাংলা

ঝিনাইদহে সন্ত্রাসীদের অত্যাচারে একটি পরিবার ভিটেছাড়ার অভিযোগ

প্রতিনিধি, ঝিনাইদহ: ঝিনাইদহ সদর উপজেলার মান্দারতলা গ্রামে সন্ত্রাসীদের অত্যাচারে একই পরিবারের ৩০ সদস্য ঘরবাড়ি ছেড়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন। গতকাল বৃহস্পতিবার ঝিনাইদহ প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করা হয়।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন মান্দারতলা গ্রামের মোশাররফ হোসেন। লিখিত বক্তব্যে তিনি দাবি করেন, তাদের দখলে থাকা ২৬ শতক জমি অবৈধভাবে গ্রাস করার জন্য মান্দারতলা গ্রামের শহিদুল ইসলাম ও তার লোকজন চেষ্টা করলে ঝিনাইদহের একটি আদালতে মামলা করা হয়। আদালত নালিশি জমিতে শান্তি শৃঙ্খলা বজায় রাখার জন্য ঝিনাইদহ সদর থানাকে ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দেন।
থানা পুলিশ আসামিদের প্রতি নোটিস জারি করলে গত ১ মে দুপুরে জুড়ান মোল্লার ছেলে আবদুল কুদ্দুস, পাতা মোল্লা, জাহিদুল, শহিদুলের ছেলে শান্তি, জাহিদুলের ছেলে হƒদয়, আবদুল কুদ্দুসের ছেলে টোকন, তোফাজ্জলের ছেলে আরিফুল ও জাফর অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে আমাদের বাড়িতে প্রবেশ করে জোরপূর্বক বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দেয়। আমরা থানায় অভিযোগ দিলেও পুলিশ কোনো ব্যবস্থা নেয়নি।
লিখিত বক্তব্যে উল্লেখ করা হয়, এ সব সন্ত্রাসীদের পৃষ্ঠপোষক হচ্ছে মান্দারতলা গ্রামের শহিদুল ইসলাম। তার অত্যাচারে মানুষ অতিষ্ঠ হলেও ভয়ে কেউ মুখ খোলে না। এখন ধান কাটার মৌসুম, অথচ মাঠের ধান কাটতে দিচ্ছে না সন্ত্রাসী শহিদুল। থানায় শহিদুলের বিরুদ্ধে অভিযোগ দিলেও পুলিশ তা গ্রহণ করছে না। উল্লিখিত সন্ত্রাসীদের অনেকের নামে থানায় মামলা থাকলেও তাদের গ্রেফতার করা হচ্ছে না বলেও লিখিত বক্তব্যে দাবি করা হয়।
শহিদুল ও তার সন্ত্রাসী বাহিনী ১৮৬ নং রূপদাহ মৌজার ২২৯৮, ২২৯৭ ও ২৩৯৯ দাগের ২৬ শতক জমি রেজিস্ট্রি করে না দিলে তারা আমাদের হত্যা করার হুমকি দিচ্ছে। সংবাদ সম্মেলন করার পরেও যদি প্রশাসন আমাদের সুরক্ষা না দেয় তবে পরিবারটির ৩০ সদস্য নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর কাছে যাবেন বলে জানানো হয়।
এ সময় ঘরবাড়ি ছাড়া পরিবারের সদস্যদের মধ্যে ইউনুস আলী, আকলিমা খাতুন, আমিরুল মোল্লা, সালেহা খাতুন, মোছা. বেগম ও সোহাগী খাতুন উপস্থিত ছিলেন।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..