বিশ্ব সংবাদ

টাইগ্রেতে চূড়ান্ত হামলার প্রস্তুতি ইথিওপিয়ার সেনাদের

শেয়ার বিজ ডেস্ক : তিন সপ্তাহ ধরে ইথিওপিয়ার সেনাবাহিনীর সঙ্গে বিদ্রোহী টাইগ্রে পিপলস লিবারেশন ফ্রন্টের (টিপিএলএফ) লড়াই চলছে। টিপিএলএফের বিরুদ্ধে চূড়ান্ত আঘাত হানার জন্য তৈরি হচ্ছে সেনারা। ইথিওপিয়ার সরকারি মুখপাত্র জানিয়েছেন, টাইগ্রের রাজধানীকে ঘিরে ফেলেছে সেনারা। এদিকে টাইগ্রে সমস্যা নিয়ে প্রথমবারের মতো বৈঠকে বসার কথা জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদ। খবর: এএফপি ও রয়টার্স।

প্রধানমন্ত্রী আগেই টিপিএলএফকে লড়াই থামিয়ে সেনার কাছে আত্মসমর্পণের জন্য ৭২ ঘণ্টা সময় দিয়েছেন। সেই অনুরোধ না মানলে যে সেনা রাজধানীতে ঢুকে টিপিএলএফএর বিরুদ্ধে অভিযান চালাবে, তা পরিষ্কার করে দিয়েছেন সরকারি মুখপাত্র।

একই সঙ্গে শুরু হয়েছে সাধারণ মানুষের পালানো। জাতিসংঘের হিসাব, টাইগ্রে থেকে ৪০ হাজার মানুষ চলে গিয়েছেন সুদানে। জাতিসংঘের উদ্বাস্তবিষয়ক সংস্থা এখন তাদের খাবার ও অস্থায়ী মাথা গোঁজার ব্যবস্থা করার চেষ্টা করছে। এটা একটা বড় চ্যালেঞ্জ। কারণ, উদ্বাস্তু স্রোত বাড়ছে।

টাইগ্রের নেতারা অবশ্য দাবি করেছেন, তারা সেনার হুমকির কাছে মাথানত করবেন না। মানুষ টাইগ্রের জন্য প্রাণ দিতে প্রস্তুত। ইথিওপিয়া সরকারের দাবি মেনে আত্মসমর্পণ করা হবে না। এদিকে প্রধানমন্ত্রী আবে সোমবার বলেছেন, বিরোধ যে জায়গায় গেছে, সেখান থেকে পিছিয়ে আসা সম্ভব নয়। তাই তিনিও তার পরিকল্পনা থেকে পিছিয়ে আসছেন না।

টাইগ্রে সমস্যা নিয়ে প্রথমবারের মতো বৈঠকে বসতে যাচ্ছে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদ। গতকাল মঙ্গলবার বিকালে ইথিওপিয়ার উত্তরাঞ্চলের ওই রাজ্যের চলমান সংঘর্ষ নিয়ে আলোচনা হওয়ার কথা রয়েছে।

২০১৮ সালে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে আবি আহমেদ ক্ষমতায় আসার পর আফ্রিকার এ দেশে রাজনৈতিক অবস্থার আমূল পরিবর্তন শুরু করেন। প্রতিবেশী ইরিত্রিয়ার সঙ্গে দুই দশক ধরে চলা রক্তক্ষয়ী সংঘাতের অবসান ঘটে তারই হাত ধরে।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..