প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

টাঙ্গাইলে দুই মাদক কারবারির যাবজ্জীবন কারাদণ্ড

প্রতিনিধি, টাঙ্গাইল: টাঙ্গাইলে ভারতীয় ফেনসিডিল পাচারের দায়ে দুই মাদক কারবারিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। গতকাল সোমবার দুপুরে টাঙ্গাইলের প্রথম অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. মাসুদ পারভেজ এ রায় দেন। দণ্ডিতরা হলেন পটুয়াখালীর দুমকি উপজেলার শ্রীরামপুর গ্রামের মৃত নুর মোহাম্মদ সিকদারের ছেলে মো. দুলাল (৪০) এবং একই উপজেলার দুমকি সাতানি গ্রামের মান্নান হাওলাদারের ছেলে রিপন (২৬)।

টাঙ্গাইলের অতিরিক্ত সরকারি কৌঁসুলি মনিরুল ইসলাম খান জানান, ২০১৩ সালের ১ সেপ্টেম্বর মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের একটি দল টাঙ্গাইল শহরের বাইপাস সড়কের কান্দিলা এলাকায় উত্তরবঙ্গ থেকে ঢাকাগামী একটি মাইক্রোবাস তল্লাশি করে। এসময় ওই মাইক্রোবাসের আরোহী দুজনের কাছ থেকে ৬০০ বোতল নিষিদ্ধ ভাতরীয় ফেনসিডিল উদ্ধার করে। মাদকদ্রব্য অধিদপ্তরের পরিদর্শক শাহীনুল কবির বাদি হয়ে ওই দুইজনের বিরুদ্ধে মামলা করেন। পরে তাদের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগ দেয়া হয়।’

তিনি আরও জানান, ওই মামলার ৯ সাক্ষীর মধ্যে ছয়জনের সাক্ষ শেষে আদালত আজ (গতকাল) এ রায় ঘোষণা করেন। দণ্ডিত মো. দুলাল জামিনে মুক্ত হওয়ার পর থেকে পলাতক রয়েছেন। আর রায় ঘোষণার পর অপর আসামি রিপনকে টাঙ্গাইল জেলা কারাগারে পাঠানো হয়।’

ভারতীয় নিষিদ্ধ ফেনসিডিলসহ আটক ২: টাঙ্গাইলের নাগরপুরে ৬০২ বোতল ভারতীয় নিষিদ্ধ ফেনসিডিলসহ দুই মাদক কারবারিকে আটক করেছে র‌্যাব। এ সময় দুটি প্রাইভেটকার জব্দ করা হয়। গতকাল টাঙ্গাইলের র‌্যাব-১২, সিপিসি-৩-এর কোম্পানি কমান্ডার লে. কমান্ডার আব্দুল্লাহ আল মামুন এ তথ্যটি নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে রোববার সকালে উপজেলার সহবতপুর গ্রাম থেকে তাদের আটক করা হয়।

আটককৃতরা হলেন যশোরের বেনাপোল উপজেলার ভবেরবেড় গ্রামের বাবুল হোসেনের ছেলে সোহেল রানা (২৮) ও একই উপজেলার দুর্গাপুর গ্রামের মৃত মমতাজ আলীর ছেলে রিয়াজুল ইসলাম (৪৪)।

র‌্যাব কমান্ডার জানান, ‘গোপন তথ্যের ভিত্তিতে তিনি জানতে পারেন যশোরের বেনাপোল থেকে ভুয়া সাংবাদিকতার পরিচয়ে ৭১ টিভির স্টিকার লাগিয়ে প্রাইভেটকারযোগে ৬০২ বোতল ভারতীয় নিষিদ্ধ ফেনসিডিল টাঙ্গাইলের দিকে নিয়ে আসা হচ্ছে। পরে নাগরপুর উপজেলার সহবতপুর গ্রাম থেকে তাদের দুজনকে আটক ও দুটি প্রাইভেটকার জব্দ করা হয়।’

তিনি আরও জানান, ‘আটককৃতদের জিজ্ঞাসাবাদ করলে তারা জানায়, দীর্ঘদিন ধরে মাদকদ্রব্য ফেনসিডিল সীমান্তবর্তী বিভিন্ন জেলা থেকে সংগ্রহ করে তারা দেশের বিভিন্ন জেলায় মাদক ব্যবসায়ীদের কাছে চাহিদা অনুযায়ী বিক্রি করছে। ওই মাদকের চালান তারা টাঙ্গাইলে বিক্রির উদ্দেশ্যে নিয়ে এসেছিল।