প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

টাটার নতুন চেয়ারম্যান নটরাজন চন্দ্রশেখরন

শেয়ার বিজ ডেস্ক : ভারতের অন্যতম বৃহৎ শিল্পগোষ্ঠী টাটার নতুন চেয়ারম্যানের হিসেবে নটরাজন চন্দ্রশেখরনের নাম ঘোষণা করা হয়েছে। তিনি টাটা গোষ্ঠীর অধীন টাটা কনসালট্যান্সি সার্ভিসেসের (টিসিএস) প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক। তিনি এ বছরের ২১ ফেব্রুয়ারি দায়িত্ব নেবেন। খবর এনডিটিভি ও টাইমস অব ইন্ডিয়ার।
গত বছরের অক্টোবরে টাটা সন্সের চেয়ারম্যান পদ থেকে সাইরাস মিস্ত্রির অপসারণের পরই চন্দ্রশেখরনকে প্রতিষ্ঠানটির অন্যতম পরিচালক করা হয়েছিল। সাইরাস মিস্ত্রির অপসারণের তিন মাসের মাথায় গতকাল বৃহস্পতিবার পরবর্তী চেয়ারম্যান হিসেবে চন্দ্রশেখরনের নাম ঘোষণা করা হলো।
এক বিবৃতিতে ৫৩ বছর বয়সী নটরাজন চন্দ্রশেখরন বলেন, ‘টাটা গ্রুপে এখন আমরা একটি বিভক্তি বিন্দুতে রয়েছি। আমি আমার বিশাল দায়িত্ব ও ভূমিকার ব্যাপারে সচেতন। টাটায় যে নৈতিকতা ও মূল্যবোধ রয়েছে, তার ওপর ভিত্তি করে গ্রুপের অগ্রগতিতে সাহায্য করাই হবে আমার প্রচেষ্টা।’
টিসিএস এ মুহূর্তে সবচেয়ে লাভজনক প্রতিষ্ঠান। প্রতিষ্ঠানটিকে লাভজনক করার অন্যতম কারিগর এই নটরাজন চন্দ্রশেখরন। ২০০৯ সাল থেকে তাঁর নেতৃত্বে টিসিএস সাফল্য পাচ্ছে।
২০১৬ সালের ২৪ অক্টোবর টাটা সন্সের বোর্ডের এক বৈঠক হয়। বৈঠকে ২০১২ সাল থেকে দায়িত্ব পালন করা সাইরাস মিস্ত্রিকে চেয়ারম্যান পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়। আগের চেয়ারম্যান রতন টাটাকে অন্তর্র্বর্তী চেয়ারম্যান করা হয়। সে সময় স্থায়ী চেয়ারম্যান বেছে নেওয়ার জন্য করা হয় সার্চ কমিটি। সেই কমিটিতে ছিলেন রতন টাটা, বেণু শ্রীনিবাসন, অমিত চন্দ্র, রনেন সেন ও লর্ড কুমার ভট্টাচার্য। এদের মধ্যে লর্ড কুমার ভট্টাচার্য ছাড়া সবাই টাটা সন্সের বোর্ড সদস্য। এ কমিটির সুপারিশেই গত বৃহস্পতিবার নটরাজন চন্দ্রশেখরনকে টাটার পরবর্তী চেয়ারম্যান মনোনীত করা হয়েছে।
চন্দ্রশেখরনের পুরো কর্মজীবনই কেটেছে টিসিএসে। ১৯৮৭ সালে যোগ দেওয়ার পর ২০০৯ সালে সংস্থার সিইও-এমডি। তিনি যোগ দেওয়ার সময় সংস্থার কর্মীসংখ্যা ছিল পাঁচশ। এখন তা ৩ লাখ ৭১ হাজার। বছরে ব্যবসার অঙ্ক ১ লাখ ১০ হাজার কোটি টাকারও বেশি। গত আট বছরে তার নেতৃত্বেও টিসিএসের উন্নতি হয়েছে দ্রুতগতিতে।
এক বিবৃতিতে টাটা সন্স জানিয়েছে, ‘টিসিএসের কর্ণধার হিসেবে নেতৃত্বের আদর্শ উদাহরণ তৈরি করেছেন চন্দ্র। আমাদের বিশ্বাস, তিনি ধরে রাখবেন তার মূল্যবোধ ও ঐতিহ্য।’
চন্দ্রশেখরনও বলেছেন, দেড়শ বছরের পুরনো গোষ্ঠীর কর্ণধার হিসেবে যে রতন টাটা তার ওপর আস্থা রেখেছেন, সে কারণে তিনি কৃতজ্ঞ ও সম্মানিত। টাটা সন্স চালাতে গিয়ে সমাজের উন্নয়নে টাটা ট্রাস্টসের অবদানও তার মাথায় থাকবে বলে জানিয়েছেন তিনি।
সম্প্রতি সাইরাস মিস্ত্রি যেভাবে লাগাতার রতন টাটা ও টাটা ট্রাস্টসের বিরুদ্ধে আক্রমণ করছেন, তাতে চন্দ্রশেখরনের এ মন্তব্য তাৎপর্যপূর্ণ।

যুক্তরাষ্ট্রে এক লাখ নতুন চাকরির ঘোষণা অ্যামাজনের
শেয়ার বিজ ডেস্ক

বিশ্বের সবচেয়ে বড় অনলাইন রিটেইলার প্রতিষ্ঠান অ্যামাজন ডটকম যুক্তরাষ্ট্রে এক লাখের বেশি নতুন চাকরি সৃষ্টির ঘোষণা দিয়েছে। প্রতিষ্ঠানটি সফটওয়্যার ডেভেলপমেন্ট থেকে স্টোর কিপার পদে এসব নতুন কর্মসংস্থান সৃষ্টি করবে। খবর রয়টার্স।
অ্যামাজন বলছে, আগামী দেড় বছরে তারা যুক্তরাষ্ট্রে এই নতুন চাকরির সুযোগ সৃষ্টি করার পরিকল্পনা নিয়েছে। এছাড়া যুক্তরাষ্ট্রে তারা স্থায়ী কর্মীর সংখ্যা ৫০ শতাংশ বাড়ানোর পরিকল্পনা করেছে। তবে আগামী ১৮ মাসে এ সংখ্যা বেড়ে দুই লাখ ৮০ হাজারে দাঁড়াবে।
এক বিবৃতিতে অ্যামাজন জানিয়েছে, নতুন চাকরির এই সুযোগ দেশের সব মানুষ নিতে পারবে। সব ধরনের অভিজ্ঞতা, শিক্ষা ও দক্ষতার লোকজনের জন্য চাকরির সুযোগ থাকবে।
সম্প্রতি অ্যামাজন গুদাম তৈরিতে অনেক অর্থ ব্যয় করেছে, যাতে তারা গ্রাহকের চাহিদা পূরণে পর্যাপ্ত পণ্য মজুদ রাখতে পারে এবং অর্ডার দেওয়ার সঙ্গে সঙ্গে দ্রুত ও কম দামে তা গ্রাহকের কাছে পৌঁছে দিতে পারে। যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডা, টেক্সাস ও ক্যালিফোর্নিয়ায় কোম্পানিটি নতুন এ কর্মসংস্থান সৃষ্টি করবে, যেখানে অ্যামাজনের প্রধান শপিং ক্লাব থেকে পণ্য পাঠাতে দুদিন সময় প্রয়োজন হয়। নতুন লোক নিয়োগের পর এ সময় আরও কমে আসবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।
ই-কমার্স মার্কেট বিশেষজ্ঞ কলিন গিলিস জানিয়েছেন, ‘অ্যামাজনের নতুন কর্মসংস্থান সৃষ্টির পরিকল্পনা আশানুরূপ। অ্যামাজন ই-কমার্স খাতের প্রবৃদ্ধিতে প্রতিনিয়ত ভালো করছে এবং সাধারণ রিটেইলার প্রক্রিয়া থেকে প্রতিষ্ঠান ধীরে ধীরে বেরিয়ে আসছে।’
অ্যামাজন কর্তৃপক্ষ গত অক্টোবর মাসে জানিয়েছিল, তারা নর্থ আমেরিকার জনগণের চাহিদা পূরণে আরও ২৬টি প্রদর্শনী কেন্দ্র নির্মাণ করবে, যার অধিকাংশ নির্মাণাধীন।
এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে প্রতিষ্ঠানটির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা জেফ বেজোস বলেন, ‘অ্যামাজনের প্রধান কার্যালয় থেকে শুরু করে যুক্তরাষ্ট্রের কমিউনিটি পর্যায়ে নতুন এসব কর্মসংস্থান সৃষ্টি করা হবে। এর আগে কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে অ্যামাজন কখনও প্রতিশ্রুতি ভঙ্গ করেনি।’
প্রতিষ্ঠানটির মুখপাত্র সেন স্পাইসার সাংবাদিকদের বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্রের নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট দেশটির কয়েকটি প্রযুক্তি কোম্পানির প্রধানদের সঙ্গে বসেছিলেন এবং যুক্তরাষ্ট্রে তাদের কর্মসংস্থান বাড়ানোর আহ্বান জানিয়েছেন।’
নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প যুক্তরাষ্ট্রের অভ্যন্তরে ব্যবসা ও কর্মসংস্থান বাড়াতে আগেই ব্যবসায়িক নেতাদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে রেখেছেন। তার এই আহ্বানের মধ্যেই মার্কিন রিটেইল জায়ান্ট যুক্তরাষ্ট্রে এক লাখ নতুন চাকরি সৃষ্টির পরিকল্পনার কথা জানালো।
ট্রাম্পের আহ্বানে সাড়া দিয়ে অ্যামাজন নতুন চাকরি সৃষ্টির পরিকল্পনা নিয়েছে কি না, তা জানায়নি প্রতিষ্ঠানটি। তবে অ্যামাজনের সিদ্ধান্তের বিষয়ে কৃতিত্ব নিতে একটুও দেরি করেননি ট্রাম্পের মুখপাত্র শিন স্পিসার।
গত ৮ নভেম্বর যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনের আগে দেশে নতুন কর্মসংস্থান সৃষ্টির প্রতিশ্রুতি ছিল রাজনৈতিক ইস্যুর সবচেয়ে বড় বিষয়। ডোনাল্ড ট্রাম্পের সমালোচনার পর ফোর্ড মোটরস কোম্পানি মেক্সিকোতে ১ দশমিক ৬ বিলিয়ন ডলারের ব্যবসার পরিকল্পনা করেছে। ফলে মিশিগানে কোম্পানিটির মাধ্যমে সাতশ কর্মসংস্থান সৃষ্টি হবে।
ট্রাম্প ২০ জানুয়ারি যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব নেবেন। দেশের ভেতরে কর্মসংস্থান সৃষ্টি ও আউটসোর্সিং কমানোর অঙ্গীকার করেছেন ট্রাম্প।
গত বুধবার ডোনাল্ড ট্রাম্প ঘোষণা করেছিলেন, ‘আমি এ যাবতকালের সবচেয়ে বড় কর্মসংস্থান সৃষ্টিকারী হতে চলেছি।’
এ সময় ট্রাম্প অ্যামাজনের সমালোচনা করে বলেন, ‘বৃহৎ এ প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানটি সরকারকে ঠিকমতো ট্যাক্স দেয় না।’

তেল থেকে সরে আসছে সৌদি অর্থনীতি
শেয়ার বিজ ডেস্ক

সৌদি আরবের মন্ত্রিসভা ব্যাপক অর্থনৈতিক সংস্কারের এক প্রস্তাব অনুমোদন করেছে, যার মধ্য দিয়ে তেল বিক্রির ওপর দেশটির নির্ভরশীলতার অবসান ঘটবে। খবর আল-অ্যারাবিয়া।
সৌদি আয়ের ৭০ শতাংশ আসে জ্বালানি তেল থেকে। তবে বিশ্বব্যাপী তেলের দাম মুখ থুবড়ে পড়েছে।
এ সংস্কার পরিকল্পনার একটি অংশ হচ্ছে রাষ্ট্রায়ত্ত তেল সংস্থা আরামকোদরের শেয়ার বিক্রি করে একটি আর্থিক তহবিল গড়ে তোলা।
এ পরিকল্পনা ঘোষণা করতে গিয়ে উপ-যুবরাজ
মোহাম্মদ বিন সালমান মন্তব্য করেন, তার দেশ তেল সম্পর্কে বুঁধ হয়ে পড়েছে।
সৌদি নিউজ চ্যানেল আল-আরাবিয়াকে ভিশন-২০৩০ সম্পর্কে বর্ণনা করতে গিয়ে তিনি বলেন, ২০২০ সালের মধ্যে তার দেশের তেলের ওপর নির্ভরশীলতার অবসান ঘটবে। সৌদি সংস্কার পরিকল্পনায় যা থাকছে: আরামকোর পাঁচ শতাংশ শেয়ার বিক্রি করা হবে, যার মূল্য দুই দশমিক পাঁচ ট্রিলিয়ন ডলার। এ বিক্রি থেকে যে তহবিল গঠিত হবে তার আকার দুই ট্রিলিয়ন ডলার।
নতুন ভিসা প্রথা চালু করা হবে, যার মধ্য দিয়ে মুসলমান ও আরবরা সৌদি আরবে দীর্ঘ মেয়াদে কাজ করতে পারবেন। খনি ও সমরাস্ত্র প্রস্তুত খাতে বিনিয়োগ করা হবে। কাজের ক্ষেত্রে নারীদের অংশগ্রহণ বাড়ানো হবে।

ব্যবসা প্রসারে চীনের শাওমি
শেয়ার বিজ ডেস্ক
চলতি বছর থেকে ব্যবসা ব্যাপকভাবে প্রসারের ঘোষণা দিয়েছে চীনের স্মার্টফোন নির্মাতা প্রতিষ্ঠান শাওমি। আগামী তিন বছরে প্রতিষ্ঠানটি দেশ ও বিদেশে এক হাজার স্টোর খোলার পরিকল্পনা করছে। খবর রয়টার্স।
শাওমির পক্ষ থেকে বলা হয়, ব্যবসার কিছু জায়গায় রদবদল করা হয়েছে। দেশের বাইরে ব্যবসা আরও বাড়ানোর জন্যও কাজ করছে প্রতিষ্ঠানটি। ২০১৭ সালে আরও ২০০টি মি হোম স্টোর খোলার পরিকল্পনা রয়েছে প্রতিষ্ঠানটির। আর সামনের তিন বছরের মধ্যেই এক হাজার স্টোর খোলার পরিকল্পনা করা হয়েছে।
কম দামে স্মার্টফোনসহ অন্যান্য পণ্য বাজারে এনে অল্প সময়েই ভালো জনপ্রিয়তা পেয়েছে চীনা প্রতিষ্ঠান শিয়াওমি।

মরোক্কোয় বোরকা পরা ও বিক্রতে নিষেধাজ্ঞা
শেয়ার বিজ ডেস্ক

চাদ, মিসরের পর এবার মরক্কো। আফ্রিকার তৃতীয় দেশ হিসেবে বোরকা নিষিদ্ধ করতে চলেছে এ মুসলিম রাষ্ট্র। পাশাপাশি বোরকা তৈরি ও কেনাবেচাও নিষিদ্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে দেশটির সরকার। খবর সিএনএন।
মরক্কোর স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা যায়, নিরাপত্তাব্যবস্থা আরও জোরদার করতে বোরকার ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। শুধু বোরকা পরাই নয়, তৈরি ও বেচাকেনাও নিষিদ্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার।
স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা জানান, ‘বোরকা পরা, তৈরি করা এবং আমদানি-রফতানি সম্পূর্ণভাবে নিষিদ্ধ করা হচ্ছে। মরক্কোর সব শহরেই একই নিয়ম বলবৎ হবে।’ কিন্তু কেন হঠাৎ করেই এ সিদ্ধান্ত? তিনি বলেন, ‘অনেক দুষ্কৃতকারী বোরকাকে সহজ আড়াল হিসেবে ব্যবহার করে। আততায়ীরা বোরকার আড়ালে থেকে অনেক দুষ্কর্ম করে অনায়াসেই। তাই দেশের সুরক্ষা ব্যবস্থা জোরদার করতে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।’
মরক্কোর বর্তমান রাজা ষষ্ঠ মোহাম্মদও নেকাব বা বোরকাজাতীয় সম্পূর্ণ ঢাকা পোশাকের বিপক্ষে। উদারমনস্ক মোহাম্মদ চান মেয়েরা হিজাব বা খিমারজাতীয় পোশাক পরুন। তবে কাসাব্লাঙ্কার মতো মরক্কোর বেশ কিছু এলাকা এখনও বেশ গোঁড়া। এখনও এসব অঞ্চলে নারীদের বোরকার মতো সারা শরীর ঢাকা পোশাক ছাড়া অন্য কিছু পরার অধিকার নেই।
ইতোমধ্যে মরক্কো সরকারের এ নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানিয়েছে কট্টরপন্থি সালাফি সংগঠন। এ পদক্ষেপ সফল হলে নেকাবের ক্ষেত্রেও নিষেধাজ্ঞা জারি হতে পারে বলে শোনা যাচ্ছে। তবে এ বিষয়ে প্রশাসনের তরফে কিছু জানানো হয়নি। প্রশাসনের এ সিদ্ধান্তের পর সালাফি নেতা শেখ হাসান কেট্টানি ফেসবুকে রীতিমতো হুমকি দিয়ে লেখেন, ‘এমনটা করা হলে বিপর্যয়
নেমে আসবে।’

সিঙ্গাপুরে শেয়ার ছাড়ছে মালয়েশিয়ার পাপ্পারিচ রেস্টুরেন্ট
শেয়ার বিজ ডেস্ক
সিঙ্গাপুরে প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) মাধ্যমে মূলধন বাড়ানোর কথা বিবেচনা করছে মালয়েশিয়ার রেস্টুরেন্ট চেইন পাপ্পারিচ। খবর ব্ল–মবার্গ নিউজ।
মালয়েশিয়াভিত্তিক চেইন রেস্টুরেন্টটি সাতায় ও লাকসার মতো স্থানীয় কুইজিনগুলো পরিবেশন করে থাকে। এটি শেয়ার বিক্রি করে সিঙ্গাপুরের বাজার থেকে কমপক্ষে ২০০ মিলিয়ন সিঙ্গাপুর ডলার (১৪০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার) তুলতে চায়।
পাপ্পারিচ ২০০৬ সালে মালয়েশিয়ায় যাত্রা শুরু করে। এখন যুক্তরাষ্ট্র, চীন, অস্ট্রেলিয়া, ইন্দোনেশিয়া, দক্ষিণ কোরিয়া, ব্রুনেই, হংকং, তাইওয়ান, নিউজিল্যান্ডসহ বিশ্বের বিভিন্ন স্থানে চেইন রেস্টুরেন্টটির ১০৬টি আউটলেট রয়েছে। পাপ্পারিচ মালয়েশিয়া চলতি বছরের মধ্যেই আইপিওর মাধ্যমে তহবিল সংগ্রহ প্রক্রিয়া সম্পন্ন করবে।
এর আগে সিঙ্গাপুর থেকে আইপিওর মাধ্যমে তহবিল সংগ্রহ করেছে পাপ্পারিচের দেশি প্রতিদ্বন্দ্বী এবিআর হোল্ডিং। কোম্পানিটি
চেইন রেস্টুরেন্ট সোয়েনসেনস পরিচালনা করে।