প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

টাটা-মিস্ত্রি দ্বন্দ্ব: এবার শিল্পপতি ওয়াদিয়াকে সরালো টাটা স্টিল

 

শেয়ার বিজ ডেস্ক: আরও ঘোলাটে হচ্ছে টাটা গ্রুপ বনাম সাইরাস মিস্ত্রির লড়াই। মিস্ত্রির দুই সংস্থা শাপুরজি ও পালোনজি ট্রাইব্যুনালে টাটা গ্রুপের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করার একদিন পরই গতকাল সাইরাসের ‘সমর্থক’ হিসেবে পরিচিত শিল্পপতি নুসলি ওয়াদিয়াকে ইন্ডিপেনডেন্ট ডিরেক্টর পদ থেকে সরিয়ে দিলো টাটা স্টিল। খবর টাইমস অব ইন্ডিয়া।

পাশাপাশি গোষ্ঠীর আরেক সংস্থা টাটা গ্লোবাল বেভারেজেসের পর্ষদ থেকে দু দিনে পদত্যাগ করলেন দুজন ইন্ডিপেনডেন্ট ডিরেক্টর ড্যারিয়াস প্যান্ডোলে ও অনলজিৎ সিংহ। প্যান্ডোলে জেএম ফিন্যান্সিয়াল ইনভেস্টমেন্ট ম্যানেজার্সের এমডি-সিইও। আর অনলজিৎ সিংহ ম্যাক্স ইন্ডিয়ার চেয়ারম্যান। টাটা গ্লোবালের চেয়ারম্যান পদ থেকে ১৫ নভেম্বর মিস্ত্রিকে সরিয়ে দেওয়া হলেও ছয়জন ইন্ডিপেনডেন্ট ডিরেক্টরের মধ্যে এ দুজন ভোট দেন সাইরাসকেই বহাল রাখার পক্ষে।

টাটা সন্স থেকে সরে যেতে বাধ্য হওয়া সাইরাস মিস্ত্রির ‘সমর্থক’ বলেই ইন্ডিপেনডেন্ট ডিরেক্টর হিসেবে সংস্থায় ওয়াদিয়ার ডিরেক্টর পদ খারিজ করতে এদিন শেয়ারহোল্ডারদের বিশেষ সাধারণ সভা বা ইজিএম ডেকেছিল টাটা স্টিল। সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, বৈঠকে সংস্থার কর্ণধার হিসেবে ফিরে আসা রতন টাটার পক্ষে বিপুল সমর্থন মেলে জামশেদপুর থেকে আসা সংস্থার সাধারণ কর্মী-শেয়ারহোল্ডারদের কাছ থেকে। খারিজ হয়ে যায় ওয়াদিয়ার ডিরেক্টর পদ। টাটা স্টিলে মূল সংস্থা টাটা সন্সের অংশীদারি ৩১ দশমিক ৫ শতাংশ। বাকি দুই সংস্থা টাটা মোটরস, টাটা কেমিক্যালস থেকেও ইন্ডিপেনডেন্ট ডিরেক্টর হিসেবে তাকে সরাতে ইজিএম ডাকা হয়েছে এ সপ্তাহেই।

ওয়াদিয়া অবশ্য এদিনের বৈঠকে হাজির হননি। তার আগে শেয়ারহোল্ডারদের কাছে তার পক্ষে ভোট দিতে আর্জি জানান তিনি। নিজের সমর্থনে টাটা সন্সের দিকে আঙুল তুলে তার যুক্তি ছিল, ‘আমাকে সরানোটা এখানে বড় ব্যাপার নয়। একটি সংস্থায় সব শেয়ারহোল্ডারের স্বার্থরক্ষার জন্য ইন্ডিপেনডেন্ট ডিরেক্টর রাখার যে নিয়ম রয়েছে, সেটাকেই প্রশ্নের মুখে ফেলে দিয়েছে এ ঘটনা। ইন্ডিপেনডেন্ট ডিরেক্টরদের যদি একটি সংস্থার প্রোমোটার খেয়ালখুশি মতো সরিয়ে দিতে পারেন, তাহলে তাদের মালিকপক্ষের হুকুম মেনে চলা ছাড়া আর কোনো ভূমিকা থাকবে না।’

প্রসঙ্গত, ইতোমধ্যে টাটাদের বিরুদ্ধে আইনি পথে হেঁটেছেন নুসলি ওয়াদিয়া। তিনি তিন হাজার কোটি রুপির মানহানির মামলা করেছেন রতন টাটা, টাটা সন্স ও কিছু ডিরেক্টরের বিরুদ্ধে।

ট্রাইব্যুনালে আনা মামলায় সাইরাস টাটা গোষ্ঠীতে খারাপ পরিচালনার যে অভিযোগ এনেছেন, তার জবাবও দিয়েছে টাটা সন্স।

সংস্থার মুখপাত্র বলেন, ‘আমি হতবাক। অর্ধসত্য, অসত্য মিলিয়ে-মিশিয়ে অভিযোগ এনেছেন মিস্ত্রি। অসৎ উদ্দেশ্য না থাকলে গোষ্ঠীকে এভাবে দোষ দেওয়া সম্ভব নয়। বিশেষ করে তিনি নিজেই যখন সেখানে ছিলেন।’