দিনের খবর প্রচ্ছদ প্রথম পাতা বাজার বিশ্লেষণ

টানা দরপতনে বাজার ফের উল্টোপথে

রুবাইয়াত রিক্তা: ছয় কার্যদিবস ধরে পতন চলছে পুঁজিবাজারে। টানা পতনে বাজার ফের কিছুদিন পূর্বের অবস্থানে নেমে যাওয়ার পথে। গতকাল সূচকের বড় পতনের পাশাপাশি ৭০ শতাংশ কোম্পানির দরপতন হয়। বাজার মূলধন একদিনে কমেছে প্রায় সাড়ে পাঁচ হাজার কোটি টাকা। ব্যাংক খাতের ঋণ-আমানতের সুদহার কমে যাওয়াসহ বিভিন্ন গুজবের কারণে এ খাতে গত কয়েকদিন ধরে ব্যাপক দরপতন চলছে। সে সঙ্গে গ্রামীণফোন ও অন্যান্য বহুজাতিক কোম্পানিগুলোর দরপতন বাজারে ব্যাপক নেতিবাচক প্রভাব ফেলেছে। যার কারণে লেনদেন নেমে এসেছে ৫০০ কোটি টাকার ঘরে। গতকাল সব খাতেই বড় দরপতন হয়েছে। কোনো খাতই ভালো অবস্থানে ছিল না। শতভাগ নেতিবাচক ছিল টেলিযোগাযোগ, সিরামিক, পাট, বিবিধ, কাগজ ও মুদ্রণ, চামড়া শিল্প, ভ্রমণ ও অবকাশ খাত।

মোট লেনদেনের এক পঞ্চমাংশ বা ২০ শতাংশ লেনদেন হয় ওষুধ ও রসায়ন খাতে। এ খাতে ৬৫ শতাংশ কোম্পানি দরপতনে ছিল। সেন্ট্রাল ফার্মার প্রায় ১৩ কোটি টাকা লেনদেন হয়। দর বেড়েছে এক টাকা ২০ পয়সা। কোম্পানিটি দর বৃদ্ধির শীর্ষে উঠে আসে। সিলভা ফার্মার ১২ কোটি ৭৫ লাখ টাকা লেনদেন হয়। দর বেড়েছে ৫০ পয়সা। কোম্পানিটি দর বৃদ্ধির শীর্ষ দশে অবস্থান করে। ইন্দোবাংলা ফার্মার ১১ কোটি ৬২ লাখ টাকা লেনদেন হয়, দরপতন হয় ২০ পয়সা। ওরিয়ন ফার্মার ১১ কোটি ৪৫ লাখ টাকা লেনদেন হয়, দরপতন হয় এক টাকা ৭০ পয়সা। ফারকেমিক্যাল ইন্ডাস্ট্রিজের ১১ কোটি টাকা লেনদেন হয়, দর বেড়েছে ৬০ পয়সা। এরপরে ১৬ শতাংশ লেনদেন হয় বস্ত্র খাতে। এ খাতে ৫৮ শতাংশ কোম্পানির দরপতন হয়। ভিএফএস থ্রেড ডায়িংয়ের ১৬ কোটি ৬৭ লাখ টাকা লেনদেন হয়। দর বেড়েছে ৮০ পয়সা। আর্গন ডেনিমসসের দর সাড়ে তিন শতাংশ বেড়ে দর বৃদ্ধিতে নবম অবস্থানে উঠে আসে। প্রকৌশল খাতে লেনদেন হয় ১৫ শতাংশ। এ খাতে ৬৭ শতাংশ কোম্পানির দরপতন হয়। ন্যাশনাল পলিমারের ১১ কোটি ৩৩ লাখ টাকা লেনদেন হয়। দর বেড়েছে ৪০ পয়সা। সাড়ে সাত শতাংশ বেড়ে বেঙ্গল উইন্ডসর, সাড়ে পাঁচ শতাংশ বেড়ে অলিম্পিক এক্সেসরিজ দর বৃদ্ধির শীর্ষ দশের তালিকায় উঠে আসে। ব্যাংক খাতে লেনদেন সামান্য বাড়লেও মাত্র তিনটি কোম্পানির দর ইতিবাচক ছিল। ৩০ কোটি ৭৮ লাখ টাকা লেনদেন হয়ে ব্র্যাক ব্যাংক শীর্ষে থাকলেও এক টাকা ১৯ পয়সা দরপতন হয়। টেলিযোগাযোগ খাতের গ্রামীণফোনের ১১ কোটি ২৫ লাখ টাকা লেনদেন হয়। দরপতন হয় ১২ টাকা ১০ পয়সা। জ্বালানি খাতে পাঁচটি কোম্পানির দর বেড়েছে। সাড়ে সাত শতাংশ বেড়ে ইন্ট্রাকো রিফুয়েলিং দর বৃদ্ধিতে তৃতীয় অবস্থানে ছিল। চতুর্থ অবস্থানে থাকা আইটি খাতের ড্যাফোডিল কম্পিউটার্সের দর তিন টাকা ৬০ পয়সা বেড়েছে। এছাড়া ফিনিক্স ফাইন্যান্স ফার্স্ট এবং আইসিবি এএমসিএল সোনালী ব্যাংক ফার্স্ট মিউচুয়াল ফান্ড দর বৃদ্ধির শীর্ষ দশের তালিকায় অবস্থান করে নেয়। বহুজাতিক কোম্পানিগুলোর মধ্যে ম্যারিকো ও গ্লাক্সোস্মিথক্লাইন ছাড়া সবগুলোর কোম্পানি দরপতনে ছিল। 

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..