প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

টানা বৃদ্ধির পর দাম কমছে মালয়েশিয়ার পাম অয়েলের

 

শেয়ার বিজ ডেস্ক: উৎপাদনে ঘুরে দাঁড়ানো ও দুর্বল চাহিদায় ঊর্ধ্বমুখী ধারায় থাকা মালয়েশিয়ার পাম অয়েলের দাম চলতি সপ্তাহে কমতে শুরু করেছে। গতকাল মঙ্গলবার দ্বিতীয় দিনের মতো দাম কমেছে এ ভোজ্যতেলের। খবর বিজনেস রেকর্ডার।

বুরসা মালয়েশিয়া ডেরিভেটিভস এক্সচেঞ্জে গতকাল পাম অয়েলের দাম কমেছে দশমিক এক শতাংশ। আগামী সেপ্টেম্বরে সরবরাহ চুক্তিতে এদিন প্রতি টন পাম অয়েল বিক্রি হয়েছে দুই হাজার ৫৩৫ রিঙ্গিত বা ৫৯১ ডলার ৮৭ সেন্টে। গতকাল সব মিলে ১০ হাজার ৬৭১ লট (প্রতি লটে ২৫ টন) পাম অয়েল লেনদেন হয়েছে।

সাধারণত ডলারের বিপরীতে মালয়েশিয়ার রিঙ্গিতের দামের ওঠানামার ওপর বিদেশি ক্রেতাদের কাছে পাম অয়েলের চাহিদা নির্ভর করে। আর এ কারণেই পণ্যটির দামে প্রভাব ফেলে। তবে এবার দর বৃদ্ধির জন্য রিঙ্গিত দায়ী নয়।

কুয়ালালামপুরভিত্তিক ব্যবসায়ীরা জানিয়েছেন, উৎপাদন বাড়ছেÑএমন সম্ভাবনায় গতকাল বাজার নি¤œমুখী ছিল। এছাড়া চাহিদা কম থাকার কারণেও দামে প্রভাব পড়েছে।

গত মাসে ঈদের ছুটির কারণে কয়েক দিন কার্যদিবস বন্ধ থাকায় শ্রমিক সংকটে মালয়েশিয়ার পাম অয়েলের উৎপাদন কম ছিল। বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম পাম অয়েল উৎপাদনকারী দেশটিতে গত মাসে উৎপাদন আট দশমিক পাঁচ শতাংশ কমে এক দশমিক ৫১ মিলিয়ন টনে পৌঁছেছে। গত মাসে ভোজ্যতেলটির রফতানিও আট দশমিক চার শতাংশ কমে এক দশমিক ৩৮ মিলিয়ন টনে পৌঁছেছে।

তবে চলতি মাসে উৎপাদন বৃদ্ধি পাওয়ার কথা বলছেন সংশ্লিষ্টরা। আর এতেই পণ্যটির দাম কমতে শুরু করেছে।