প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

টালিউডে আসছে ঋতুপর্ণর জ্যেষ্ঠপুত্র

শোবিজ ডেস্ক: ভারতীয় প্রখ্যাত চলচ্চিত্রকার ঋতুপর্ণ ঘোষের গল্পভাবনাকে এবার চলচ্চিত্রে রূপ দিতে যাচ্ছেন টালিউডের আরেক কিংবদন্তি কৌশিক গঙ্গোপাধ্যায়।
‘জ্যেষ্ঠপুত্র’ নামে এ চলচ্চিত্র নিয়ে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেছিলেন বালিগঞ্জের ‘উৎসব’ বাড়িতে। সেখানেই জানানো হয়েছে, আগামী ৫ ডিসেম্বর থেকে শুটিং শুরু হচ্ছে বোলপুরে।
সেখানে উপস্থিত ছিলেন কৌশিক গঙ্গোপাধ্যায়, প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়, সুরিন্দর সিংহ, নিসপাল সিংহ রানে, ইন্দ্রনীল ঘোষ। কিছুদিন আগে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ‘সুরিন্দর ফিল্মস’ ও ‘এনআইডিয়াস’-এর পেজ থেকে একটি কার্ড পোস্ট করা হয়। যেখানে লেখা ছিল ‘জ্যেষ্ঠপুত্র’। সেখানে ঋতুপর্ণ ঘোষ, প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায় ও কৌশিক গঙ্গোপাধ্যায়ের স্বাক্ষর রয়েছে। তখন থেকেই আলোচনার সূত্রপাত।
কৌশিক জানালেন, ‘আর একটি প্রেমের গল্প’ তৈরির সময় ঋতুপর্ণর ইন্দ্রানী পার্কের বাড়িতে তিনি প্রতিদিন যেতেন। সে সময়ই একটি ভাবনার কথা কৌশিককে বলেছিলেন ঋতুপর্ণ। তখন ‘অটোগ্রাফ’ তৈরি হচ্ছিল। সে কারণে এ ছবিটি করতে চাননি। পরে ঋতুপর্ণর পিতৃবিয়োগের সময় খুব কাছ থেকে তাকে দেখেছিলেন কৌশিক। তিনি বলেন, ‘এ গল্পের ভাবনা ঋতু দা’র। পরে বুম্বাদাকে বলেছিলাম। বুম্বাদাকেই ঋতু দা ভেবেছিল। ফলে সবটা জানত ও। আমি চিঙ্কু দা’র (ইন্দ্রনীল ঘোষ) কাছে গিয়ে বলেছিলাম এটা আমি করতে চাই। চিঙ্কু দা আমার হাতে তুলে দিয়ে বলেছিলেন নিজের মতো করে করো। আর আজ আমার বলতে দ্বিধা নেই, এর রয়্যালটি বাবদ একটা পয়সা নেননি তিনি।’
অনস্ক্রিন ‘জ্যেষ্ঠপুত্র’ প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়। এ একটি মাত্র চরিত্র কাস্ট করেছিলেন ঋতুপর্ণ স্বয়ং। এ ছবির কনিষ্ঠ পুত্রের ভূমিকায় দেখা যাবে ঋত্বিক চক্রবর্তীকে।
এ ছবির প্রযোজনার সঙ্গে যুক্ত থাকতে পেরে খুশি নিসপাল সিংহ রানে। তিনি বলেন, ‘এ প্রজেক্টটি করতে পেরে, এর সঙ্গে যুক্ত থাকতে পেরে আমরা গর্বিত।’ আগামী ৫ ডিসেম্বর থেকে বোলপুরে শুরু হবে এ ছবির শুটিং। তবে এ মুহূর্তে প্রসেনজিৎ ও ঋত্বিক বাদে ছবির অন্য কোনো অভিনেতা-অভিনেত্রীর নাম প্রকাশ করেননি পরিচালক। ঋতুপর্ণ চলে যাওয়ার পর এ প্রথম কোনো ছবির সঙ্গে তিনি ওতপ্রোতভাবে জড়িয়ে থাকবেন। বাঙালির আবেগের সঙ্গে জড়িয়ে থাকা একটি নাম ঋতুপর্ণ ঘোষ।
কৌশিক বললেন, ‘আমরা এ সময়ের পরিচালকরাও বাঙালির আবেগ। মূল ভাবনাটা ঋতু দা’র। ওর কিছু নোটও আমি পড়েছি। তবে কাহিনি, চিত্রনাট্য, সংলাপ সবই আমার। না হলে এটা আমার ছবি হতো না। আমি এমন একটা ছবি করার চেষ্টা করব, যেটা দেখে ঋতু দা’রও ভালো লাগত। আর আগামী পয়লা বৈশাখে এ ছবির হোর্ডিং, পোস্টার, টাইটেলে ঋতু দা’র নাম থাকবেÑএটাই সবচেয়ে আনন্দের।’