বাণিজ্য সংবাদ

‘ট্যানারি স্থানান্তর না হওয়ার দায় বিসিকেরও’

নিজস্ব প্রতিবেদক: সরকার এবং আদালতের পক্ষ থেকে সাভার চামড়া শিল্প নগরীতে কারখানা স্থানান্তরের আদেশ দেওয়ার পরও তা করতে না পারার জন্য শুধু কারখানা মালিক দায়ী নয়; এর জন্য বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প করপোরেশনও (বিসিক) দায়ী বলে অভিযোগ করেছেন সংশ্লিষ্টরা। গতকাল রোববার রাজধানীর একটি হোটেলে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এমন দাবি জানান বাংলাদেশ ট্যানার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি শাহীন আহমেদ।

শাহীন আহমেদ বলেন, ২০০৩ সাল থেকে সাভারে চামড়া শিল্পনগরী স্থাপনের কাজ করছে বিসিক। সেখানে এখনও কাজ শেষ করতে পারেনি সংস্থাটি। সাভার চামড়া শিল্প অঞ্চলের কাজ শেষ করতে আরও প্রায় এক বছর সময় লাগবে। তবু হাজারীবাগ থেকে কারখানা সরাতে আমাদের চাপ দিচ্ছে সরকার। আর কারখানা স্থানান্তর করতে না পারার সব দোষ দেওয়া হচ্ছে ট্যানারি মালিকদের।
কারখানা দ্রুত স্থানান্তরের জন্য কয়েকটি দাবি উপস্থাপন করেন তিনি। দাবিগুলো হলোÑ বিসিকের অব্যবস্থাপনার বিচার বিভাগীয় তদন্ত করতে হবে; হাজারীবাগের জমিতে ডিজাইন প্লান পাসের ওপর নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করতে হবে; যারা চামড়া শিল্পনগরীতে প্লট পাননি তাদের প্লট দিতে হবে; অবিলম্বে শিল্পনগরীতে গ্যাস-বিদ্যুৎসহ সব সংযোগ নিশ্চিত করতে হবে; চামড়া শিল্পনগরীতে অসম্পূর্ণ সুযোগ-সুবিধা ও স্থাপনা বিষয়ে প্রকৃত তথ্য সবার সামনে উপস্থাপন এবং শিগগির কাজ শেষ করতে হবে।
এছাড়া শিল্পোদ্যোক্তারা যাতে ঋণ সুবিধা পান সে উদ্দেশ্যে শিল্পনগরীর প্লটের মালিকানা দলিল রেজিস্ট্রেশনের কাজও দ্রুত শেষ করতে হবে।
শাহীন আহমেদ বলেন, হাজারীবাগের চামড়া শিল্পের কার্যক্রম বন্ধ হয়ে গেলে প্রায় ৫০ লাখ লোক বেকার হবে। আমরা আদালতের রায় মেনে নিচ্ছি। তবে আমাদের দাবি মানা হলে সব সংযোগ বিচ্ছিন্নের জন্য পরিবেশ অধিদফতরকে স্বাগত জানাবো। তিনি আরও বলেন, আগামী ৫ এপ্রিল পর্যন্ত সব কর্মসূচি স্থগিত করা হলো। আগামী ৮ এপ্রিল এ শিল্প-সংশ্লিষ্ট সবার অংশগ্রহণে জনসভা করা হবে।
প্রসঙ্গত, হাজারীবাগের ট্যানারি স্থানান্তরের জন্য আগামী ৬ এপ্রিল পর্যন্ত সময় বেঁধে দিয়েছে সর্বোচ্চ আদালত। এ সময়ের মধ্যে স্থানান্তর করা না হলে হাজারীবাগে থাকা ট্যানারিগুলোর গ্যাস-বিদ্যুৎ-পানি সংযোগ বিচ্ছিন্ন করতে আদেশ জারি করা হয়েছে।

সর্বশেষ..