বিশ্ব সংবাদ

ট্রাম্পের অভিশংসন বিচার বিলম্বিত করার অনুরোধ রিপাবলিকানদের

শেয়ার বিজ ডেস্ক : যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিরুদ্ধে সিনেটে অভিশংসন বিচার শুরুর ক্ষেত্রে বিলম্ব করার জন্য ডেমোক্র্যাটদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন রিপাবলিকানরা। আত্মপক্ষ সমর্থনে ট্রাম্পকে প্রস্তুতি নেয়ার জন্য কমপক্ষে দুই সপ্তাহ সময় দেয়ার অনুরোধ জানানো হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার নিজেদের মধ্যে এক ভার্চুয়াল বৈঠকে রিপাকলিকান সিনেটের মিচ ম্যাককনেল এ তথ্য জানান। খবর : রয়টার্স।

সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের আইনসভা ক্যাপিটল ভবনে উগ্র ট্রাম্প-সমর্থকদের হামলার পর বিদায়ী প্রেসিডেন্টকে নির্ধারিত সময়ের আগেই পদ থেকে সরাতে ডেমোক্র্যাটরা প্রতিনিধি পরিষদে অভিশংসন প্রস্তাব উত্থাপন করেন। ১৩ জানুয়ারি সে প্রস্তাবের পক্ষে-বিপক্ষে ভোটাভুটি হয়। ২৩২-১৯৭ ভোটে পাস হয় প্রস্তাবটি। ১০ রিপাবলিকানও এতে সমর্থন দেন। এর মধ্য দিয়ে দ্বিতীয়বারের মতো কংগ্রেসের নিম্নকক্ষে অভিশংসিত হন ট্রাম্প। চূড়ান্ত অভিশংসনের জন্য প্রস্তাবটি সিনেটে পাঠাতে হবে। সেখানে বিচারপ্রক্রিয়ার পর দুই-তৃতীয়াংশ ভোটে পাস করাতে হবে এটি।

২০ জানুয়ারি জো বাইডেন দায়িত্ব নেয়ার পর এবার উচ্চকক্ষ সিনেটেও ট্রাম্পের বিরুদ্ধে বিচার প্রক্রিয়া শুরু করতে যাচ্ছেন ডেমোক্র্যাটরা। কোনো প্রেসিডেন্টের মেয়াদ শেষ হওয়ার পর তার বিরুদ্ধে সিনেটে অভিশংসন বিচার শুরুর ঘটনা এটাই প্রথম। ডেমোক্র্যাটরা কত দ্রুততার সঙ্গে অভিশংসন প্রস্তাবটি সিনেটে পাঠাবেন তা এখনও নিশ্চিত নয়। তবে এ নিয়ে জোর প্রস্তুতি চলছে। বৃহস্পতিবার রিপাবলিকান সিনেটরদের সঙ্গে বৈঠকে অংশ নেন মিচ ম্যাককনেল। তখন তিনি বলেন, আগামী ২৮ জানুয়ারি পর্যন্ত যেন সিনেটে অভিশংসন প্রস্তাব না পাঠানো হয়, সে ব্যাপারে হাউস ডেমোক্র্যাটদের প্রতি অনুরোধ জানিয়েছেন তিনি। সেক্ষেত্রে বিচার-পূর্ববর্তী আত্মপক্ষ সমর্থন ও যুক্তি-তর্ক উপস্থাপনের ক্ষেত্রে ১১ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত সময় পাবেন ট্রাম্প। এর মানে হলো, সিনেটে তখন অভিশংসন বিচার প্রক্রিয়া শুরু হতে ফেব্রুয়ারির মাঝামাঝি হয়ে যাবে। এরই মধ্যে সিনেটে সংখ্যাগরিষ্ঠতা হারিয়েছেন রিপাবলিকানরা। সেক্ষেত্রে সময় বাড়ানোর ব্যাপারে ডেমোক্র্যাট মেজরিটি লিডার চাক শুমারের সিদ্ধান্তের জন্য অপেক্ষা করতে হবে তাদের।

এক বিবৃতিতে ম্যাককনেল বলেন, ‘সিনেট রিপাবলিকানরা এ নীতিতে দৃঢ়ভাবে ঐক্যবদ্ধ যে সিনেটের ইনস্টিটিউশন, প্রেসিডেন্টের কার্যালয় এবং সাবেক প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প নিজেও একটি পূর্ণাঙ্গ ও স্বচ্ছ প্রক্রিয়ার দাবিদার, যা তার অধিকার এবং গুরুতর বাস্তব, আইনি ও সংকটে থাকা সাংবিধানিক প্রশ্নগুলোর প্রতি শ্রদ্ধাশীল থাকবে।’

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..