সম্পাদকীয়

ডলারের বাজার যেন অস্থিতিশীল না হয়

স্থানীয় বাজারে ডলারের চাহিদা বেড়েছে। এ জন্য বাংলাদেশ ব্যাংক পাঁচ মাস পর ডলারের বিপরীতে টাকাকে দুর্বল করে নতুন আন্তঃব্যাংক ডলারের দর ঘোষণা করেছে। কিন্তু এই দর বিভিন্ন ব্যাংকে বিভিন্ন অঙ্কে নির্ধারিত হতে দেখা গেছে। দেশের বাজারে ডলারের দামে অস্থিতিশীলতা নানারকম চোরাকারবারিসহ সার্বিক অর্থ কাঠামোকে অস্থির করে তুলতে পারে। আমদানি ও বৈদেশিক ঋণ পরিশোধে গুনতে হতে পারে আরও বেশি টাকা। ফলে জনসাধারণ এর প্রত্যক্ষ কিংবা পরোক্ষ প্রভাব দারুণভাবে সহ্য করতে বাধ্য হবে। বাজারভিত্তিক মুদ্রা বিনিময় ব্যবস্থায় ডলারের দাম নির্দিষ্ট করা না গেলেও পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে কর্তৃপক্ষকে এখনই কিছু শর্তারোপের উদ্যোগ নিতে হবে।
বিদেশ ভ্রমণ কিংবা বিদেশে পরিবারের কেউ থাকলেই কেবল ডলারের খোঁজ রাখে মানুষ; কিন্তু তার প্রভাব সাধারণ যাপিত জীবনেও পড়তে থাকে। ডলারের বিপরীতে টাকা দুর্বল হয়ে পড়েছে বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতে বড় বড় আমদানির দায় পরিশোধের সময় ঘনিয়ে আসা, পুনঃঅর্থায়নের সুবিধাযুক্ত প্রকল্পে বাংলাদেশ ব্যাংকের অর্থায়ন অনুমোদন নাকচ করা, বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের অনুমোদনসাপেক্ষ বিদেশি ঋণ সময়মতো না আসার মতো বিভিন্ন কারণে। কেননা, এসব পরিপ্রেক্ষিতে ডলারের চাহিদা বেড়ে গেছে। আমদানি দায় পরিশোধে ডলারের চাহিদা বাড়লে দেশের রিজার্ভ যেভাবে প্রভাবিত হবে, ঠিক একইভাবে দেশের শিল্পপ্রতিষ্ঠান থেকে শুরু করে জনসাধারণের পকেট কাটা পড়বে। চলতি অর্থবছরে আমদানি ব্যয় বাড়লেও সে হারে রফতানি আয় বাড়েনি। সৃষ্টি হয়েছে বাণিজ্য ঘাটতি। পণ্য বাণিজ্যে ঘাটতি গত অর্থবছরের তুলনায় এবার কমলেও সেবা খাতে ঘাটতির পরিমাণ বেড়েছে। তাই আমদানি ব্যয়জনিত ডলারের দাম বৃদ্ধিকে চক্রায়িত ব্যবস্থা বিবেচনায় সমন্বিত সমাধানের ব্যবস্থা নিতে হবে। তবে ডলারের দাম কমাতে বাণিজ্য ঘাটতি কমাতেই হবে। ডলারের দাম বৃদ্ধিতে ব্যাংকগুলোর কারসাজির ইতিহাসও বাংলাদেশে রয়েছে। গত বছরে সারা বিশ্বে যখন ডলারের দাম কমেছিল, সে সময় আমাদের দেশে ডলারের দাম বেড়েছে। দেখা গেছে, কিছু ব্যাংক ডলার আটকে রেখে কৃত্রিম সংকট তৈরি করে। এমন পরিস্থিতি মোকাবিলায় যথাযথ উদ্যোগ নিতে হবে। তবে ডলারের ওপর চাপ কমাতে সরকার অন্যান্য দেশের সঙ্গে স্থানীয় মুদ্রায় দ্বিপক্ষীয় বাণিজ্য চালাতে পারে। উপরন্তু, স্বর্ণের আমদানি কমিয়ে ডলার নির্গমন কমানোসহ আমদানি ব্যয় ও বিদেশি সেবা খরচ কমানো এবং ডলার লগ্নি বাড়িয়েও ডলারের দাম নিয়ন্ত্রণে কিছুটা সুবিধা সৃষ্টি হতে পারে।
তবে দেশের বাজারভিত্তিক মুদ্রা বিনিময় ব্যবস্থায় অস্থিতিশীলতা নিয়ন্ত্রণে ব্যাংকগুলোকে আন্তঃব্যাংক দরের চেয়ে আমদানিতে দর বাড়াতে দেওয়া যাবে না। এমনকি প্রয়োজনে ব্যাংকের মুদ্রাব্যবস্থায় নজরদারি বাড়াতে হবে।

সর্বশেষ..