ডায়াবেটিস চিকিৎসায় গাইডলাইন অ্যাপ

প্রকাশ: নভেম্বর ১৩, ২০১৯ সময়- ১০:৪৯ অপরাহ্ন

চিকিৎসাসেবার মান উন্নয়নের লক্ষ্যে বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো সরকারস্বীকৃত ডায়াবেটিস চিকিৎসা গাইডলাইন চালু করা হয়েছে। বাংলাদেশ ডায়াবেটিক সমিতি (বাডাস) ও স্বাস্থ্য অধিদফতরের নন-কমিউনিকেবল ডিজিস কন্ট্রোল প্রোগ্রাম যৌথভাবে এ ‘ডায়াবেটিস কেয়ার বাডাস গাইডলাইন, ২০১৯’ প্রণয়ন করেছে। একই সঙ্গে স্বাস্থ্যসেবায় ডিজিটাল প্রযুক্তির ব্যবহার ও চিকিৎসকদের সুবিধায় অ্যাপভিত্তিক ডায়াবেটিস চিকিৎসা সহায়িকা ‘ডায়াবেটিস জার্নি’ চালু করা হয়েছে। নতুন গাইডলাইনের ওপর ভিত্তি করে অ্যাপটি তৈরি করেছে নভো নরডিস্ক ও বাডাস।

গত মঙ্গলবার রাজধানীর ঢাকা ক্লাবে আয়োজিত একটি অনুষ্ঠানে এ গাইডলাইন ও অ্যাপটির সূচনা হয়।

বাডাসের সভাপতি অধ্যাপক এ কে আজাদ খান বলেন, গাইডলাইনটি ডায়াবেটিক রোগীদের চিকিৎসা রূপরেখার মান উন্নয়নে ভূমিকা রাখবে। অ্যাপটি রোগের ধরন ও রোগীদের প্রয়োজন বুঝে সঠিক চিকিৎসা পরামর্শ দিতে চিকিৎসকদের জন্য সহায়ক হবে।

বাডাসের সাধারণ সম্পাদক মো. সায়েফ উদ্দীন বলেন, সব নাগরিকের স্বাস্থ্য সুরক্ষা ও মানসম্মত সেবা নিশ্চিত করা জরুরি। বাডাস বাংলাদেশে ডায়াবেটিস চিকিৎসা ও সেবা ব্যবস্থাপনায় ইতিবাচক পরিবর্তন আনার লক্ষ্যে নিরলস কাজ করছে।

নভো নরডিস্কের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আনান্দ শেঠী বলেন, ডায়াবেটিস কেয়ারে বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় প্রতিষ্ঠান হিসেবে নভো নরডিস্ক স্বাস্থ্যসেবায় ডিজিটাল পদ্ধতি প্রবর্তনে আগ্রহী। ডায়াবেটিস জার্নি অ্যাপ ও দেশের প্রথম জাতীয় ডায়াবেটিক রোগী নিবন্ধন এ ডিজিটালাইজেশনের বড় উদাহরণ।

বাংলাদেশে নিযুক্ত ডেনমার্কের রাষ্ট্রদূত উইনি এস্ট্রাপ পিটারসেন বলেন, টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে অসংক্রামক ব্যাধিগুলোকে মোকাবিলা করতে হবে। সরকার অগ্রাধিকারের ভিত্তিতে এ ব্যাধিগুলো নিয়ে কাজ করছে। বাংলাদেশে নভো নরডিস্কের ইনসুলিন উৎপাদনব্যবস্থা ডায়াবেটিক রোগীদের মানসম্মত ইনসুলিন প্রাপ্তির সুযোগ নিশ্চিত করবে।

অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বারডেম জেনারেল হাসপাতালের অ্যান্ডোক্রাইনোলজি বিভাগের অধ্যাপক ফারুক পাঠান, স্বাস্থ্য অধিদফতরের নন-কমিউনিকেবল ডিজিজ কন্ট্রোল প্রোগ্রামের সহকারী পরিচালক আবদুল আলিম, বাডাসের সেন্টার ফর গ্লোবাল হেলথ রিসার্চের সমন্বয়ক বিশ্বজিৎ ভৌমিক, নভো নরডিস্কের হেড অব মেডিক্যাল অ্যান্ড কোয়ালিটি মোহাম্মাদ মাহবুবুর রহমান ও হেড অব কমার্শিয়াল অ্যাফেয়ার্স মো. তানবির সজীব প্রমুখ।