প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

ডিএসইতে গত সপ্তাহে দৈনিক গড় লেনদেন ২১ শতাংশ বেড়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদক: ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) গত সপ্তাহজুড়ে সিংহভাগ কোম্পানির শেয়ারদর কমলেও সূচকের ইতিবাচক প্রবণতা দেখা গেছে; একইসঙ্গে দৈনিক গড় লেনদেন ২০ দশমিক ৭২ শতাংশ বেড়েছে। অন্যদিকে গেল সপ্তাহের বাজার মূলধন বেড়েছে এক দশমিক ২৫ শতাংশ। আগের সপ্তাহে পাঁচ কার্যদিবস লেনদেন হয়েছে আর গত সপ্তাহে পাঁচ কার্যদিবস লেনদেন হয়।

সাপ্তাহিক বাজার পর্যালোচনায় দেখা গেছে, ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ২৯ দশমিক ৭৮ পয়েন্ট বা শূন্য দশমিক ৪৩ শতাংশ বেড়ে সাত হাজার ১৭ দশমিক ২৩ পয়েন্টে স্থির হয়। ডিএসইএস বা শরিয়াহ্ সূচক ২৯ দশমিক ৫৬ পয়েন্ট বা দুই দশমিক শূন্য এক শতাংশ বেড়ে এক হাজার ৫০১ দশমিক ৭১ পয়েন্টে পৌঁছায়। অন্যদিকে ডিএস৩০ সূচক ১৩ দশমিক ২২ পয়েন্ট বা শূন্য দশমিক ৫১ শতাংশ বেড়ে দুই হাজার ৬১৬ দশমিক ৩০ পয়েন্টে স্থির হয়। মোট ৩৮৯টি কোম্পানির শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট লেনদেন হয়। এর মধ্যে দর বেড়েছে ১৪৬টির, কমেছে ২১৯টির এবং অপরিবর্তিত ছিল ১৯ কোম্পানির শেয়ারদর। লেনদেন হয়নি পাঁচটির। দৈনিক গড় লেনদেন হয় এক হাজার ৫৬৬ কোটি ৪৮ লাখ ৮০ হাজার ২৬ টাকা। আগের সপ্তাহে দৈনিক গড় লেনদেন হয় এক হাজার ২৯৭ কোটি ৬৩ লাখ এক হাজার ৩৩৮ টাকা। এক সপ্তাহের ব্যবধানে দৈনিক গড় লেনদেন বেড়েছে ২০ দশমিক ৭২ শতাংশ।

গেল সপ্তাহে ডিএসইতে মোট টার্নওভার বা লেনদেনের পরিমাণ দাঁড়ায় সাত হাজার ৮৩২ কোটি ৪৪ লাখ ১২৮ টাকা। আগের সপ্তাহে যা ছিল ছয় হাজার ৪৮৮ কোটি ১৫ লাখ ছয় হাজার ৬৮৯ টাকা। অর্থাৎ সপ্তাহের ব্যবধানে ডিএসইতে টার্নওভার বেড়েছে, যা শতাংশের হিসেবে ২০ দশমিক ৭২ শতাংশ।

ডিএসইতে গত সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবস রোববার বাজার মূলধন ছিল পাঁচ লাখ ৫৮ হাজার ৩১ কোটি ৯৪ লাখ টাকা। শেষ কার্যদিবসে যার পরিমাণ ছিল পাঁচ লাখ ৬৪ হাজার ৯৯৬ কোটি ৯৬ লাখ টাকা। অর্থাৎ সপ্তাহের ব্যবধানে বাজার মূলধন বেড়েছে এক দশমিক ২৫ শতাংশ।

গত সপ্তাহে ডিএসইর টপটেন গেইনার তালিকার শীর্ষে উঠে আসে ফারইস্ট ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেড। আলোচিত সময়ে কোম্পানিটির শেয়ারদর বেড়েছে ৪৩ দশমিক ৯২ শতাংশ। গত সপ্তাহে কোম্পানিটির প্রতিদিন গড় লেনদেন হয়েছে ৩৬ কোটি দুই লাখ ৩৪ হাজার টাকার শেয়ার। সপ্তাহ শেষে মোট লেনদেনের পরিমাণ দাঁড়ায় ১৮০ কোটি ১১ লাখ ৭০ হাজার টাকা।

তালিকার দ্বিতীয় স্থানে থাকা রংপুর ফাউন্ড্রি লিমিটেডের শেয়ারদর বেড়েছে ৪২ দশমিক শূন্য চার শতাংশ।

এর পরের অবস্থানগুলোয় থাকা যথাক্রমে এগ্রিকালচারাল মার্কেটিং কোম্পানি লিমিটেডের শেয়ারদর বেড়েছে ৩৭ দশমিক ৬৯ শতাংশ। বুসন্ধরা পেপার মিলস লিমিটেডের শেয়ারদর বেড়েছে ৩২ দশমিক ২৩ শতাংশ। পঞ্চম অবস্থানে থাকা আরএকে সিরামিকস লিমিটেডের ২৩ দশমিক ৫০ শতাংশ বেড়েছে। গত সপ্তাহে কোম্পানিটির প্রতিদিন গড় লেনদেন হয়েছে ২৭ কোটি ৫৯ লাখ ৯৯ হাজার ৪০০ টাকার শেয়ার। তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেডের ২১ দশমিক ২৭ শতাংশ শেয়ারদর বেড়েছে। বাংলাদেশ শিপিং করপোরেশনের ২০ দশমিক ৩৬ শতাংশ। তাওফিকা ফুডস অ্যান্ড লাভেলো আইসক্রিম পিএলসির ১৮ দশমিক ৮১ শতাংশ। আনোয়ার গ্যালভানাইজিং লিমিটেডের ১৭ দশমিক ৮৭ শতাংশ, এবং ওয়াটা কেমিক্যালস লিমিটেডের ১৪ দশমিক ৯৮ শতাংশ শেয়ারদর বেড়েছে। গত সপ্তাহে লেনদেনের শীর্ষে উঠে আসে বাংলাদেশ এক্সপোর্ট-ইমপোর্ট কোম্পানি লিমিটেড (বেক্সিমকো)। আর লেনদেনের এ তালিকার দ্বিতীয় অবস্থানে উঠে আসে পাওয়ার গ্রিড কোম্পানি অব বাংলাদেশ লিমিটেড।