প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

ডিএসইতে গত সপ্তাহে দৈনিক গড় লেনদেন ২৪ শতাংশ কমেছে

নিজস্ব প্রতিবেদক: ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) গত সপ্তাহজুড়ে সিংহভাগ কোম্পানির শেয়ারদর পতনের পাশাপাশি সূচকের নেতিবাচক প্রবণতা দেখা গেছে; একইসঙ্গে দৈনিক গড় লেনদেন ২৪ দশমিক ৪৯ শতাংশ কমেছে। অন্যদিকে গত সপ্তাহের বাজার মূলধন কমেছে দশমিক ৩৭ শতাংশ। আগের সপ্তাহে চার কার্যদিবস লেনদেন হয়েছে, আর গত সপ্তাহে ৫ কার্যদিবস লেনদেন হয়।

সাপ্তাহিক বাজার পর্যালোচনায় দেখা গেছে, ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ২০ দশমিক ২৭ পয়েন্ট বা দশমিক ৩২ শতাংশ কমে ৬ হাজার ২৩৭ দশমিক ৯৮ পয়েন্টে স্থির হয়। ডিএসইএস বা শরিয়াহ্ সূচক ৯ দশমিক ৩৩ পয়েন্ট বা দশমিক ৬৭ শতাংশ কমে এক হাজার ৩৭৩ দশমিক ৭১ পয়েন্টে পৌঁছায়। অন্যদিকে ডিএস৩০ সূচক ৯ দশমিক ২৯ পয়েন্ট বা দশমিক ৪০ শতাংশ কমে দুই হাজার ৩০৭ দশমিক ৩৯ পয়েন্টে স্থির হয়। মোট ৩৯৩টি কোম্পানির শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট লেনদেন হয়। এর মধ্যে দর বেড়েছে ১৬১টির, কমেছে ১৯৫টির এবং অপরিবর্তিত ছিল ৩১ কোম্পানির শেয়ারদর। লেনদেন হয়নি ৬টির। দৈনিক গড় লেনদেন হয় ৬১০ কোটি ৮৪ লাখ ৭১ হাজার ৮২৪ টাকা। আগের সপ্তাহে দৈনিক গড় লেনদেন হয় ৮০৮ কোটি ৯৩ লাখ ৩৯ হাজার ৪৩১ টাকা। এক সপ্তাহের ব্যবধানে দৈনিক গড় লেনদেন কমেছে ২৪ দশমিক ৪৯ শতাংশ।

গত সপ্তাহে ডিএসইতে মোট টার্নওভার বা লেনদেনের পরিমাণ দাঁড়ায় ৩ হাজার ৫৪ কোটি ২৩ লাখ ৫৯ হাজার ১২০ টাকা, আগের সপ্তাহে যা ছিল ৩ হাজার ২৩৫ কোটি ৭৩ লাখ ৫৭ হাজার ৭২৫ টাকা। অর্থাৎ সপ্তাহের ব্যবধানে ডিএসইতে টার্নওভার কমেছে, যা শতাংশের হিসেবে ৫ দশমিক ৬১ শতাংশ।

ডিএসইতে গত সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবস রোববার বাজার মূলধন ছিল পাঁচ লাখ ৯ হাজার ৮৭২ কোটি ১৭ লাখ, শেষ কার্যদিবসে যার পরিমাণ ছিল পাঁচ লাখ ৮ হাজার ২ কোটি ৫০ লাখ টাকা। অর্থাৎ সপ্তাহের ব্যবধানে বাজার মূলধন কমেছে দশমিক ৩৭ শতাংশ।

গত সপ্তাহে ডিএসইর টপটেন গেইনার তালিকার শীর্ষে উঠে আসে এসইএমএল লেকচার ইকুয়িটি ম্যানেজমেন্ট ফান্ড। আলোচিত সময়ে কোম্পানিটির ইউনিটদর বেড়েছে ১৬ দশমিক ৮৫ শতাংশ। গত সপ্তাহে কোম্পানিটির প্রতিদিন গড় লেনদেন হয়েছে ৪৯ লাখ ২৫ হাজার ২০০ টাকার শেয়ার। সপ্তাহ শেষে মোট লেনদেনের পরিমাণ দাঁড়ায় ২ কোটি ৪৬ লাখ ২৬ হাজার টাকা। তালিকার দ্বিতীয় স্থানে থাকা লুব-রেফ (বাংলাদেশ) লিমিটেডের শেয়ারদর বেড়েছে ১৩ দশমিক ৫২ শতাংশ। এর পরের অবস্থানগুলোয় থাকা যথাক্রমে জিএসপি ফাইন্যান্স কোম্পানি (বাংলাদেশ) লিমিটেডের শেয়ারদর বেড়েছে ১৮ দশমিক ০৫ শতাংশ। প্যারামাউন্ট টেক্সটাইল লিমিটেডের শেয়ারদর বেড়েছে ১২ দশমিক ৬৬ শতাংশ। পঞ্চম অবস্থানে থাকা রেনউইক যজ্ঞেশ্বর অ্যান্ড কোং (বিডি) লিমিটেডের ১২ দশমিক ২৪ শতাংশ শেয়ারদর বেড়েছে। পরের অবস্থানগুলোয় থাকা ভিএফএস থ্রেড ডায়িং লিমিটেডের ১১ দশমিক ৪২ শতাংশ। কাসেম ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের ৮ দশমিক ৫৯ শতাংশ। ন্যাশনাল ফিড মিল লিমিটেডের ৮ দশমিক ২৮ শতাংশ। সিলভা ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডের ৭ দশমিক ৫২ শতাংশ এবং মাইডাস ফাইন্যান্সিং লিমিটেডের ৬ দশমিক ২৫ শতাংশ শেয়ারদর বেড়েছে।

গত সপ্তাহে লেনদেনের শীর্ষে উঠে আসে বাংলাদেশ এক্সপোর্ট ইমপোর্ট কোম্পানি লিমিটেড (বেক্সিমকো)। সপ্তাহজুড়ে কোম্পানিটির এক কোটি ৭৬ লাখ ৫৮ হাজার ৭৮৪টি শেয়ার ২৩০ কোটি ৫১ লাখ ৩৯ হাজার টাকায় লেনদেন হয়, যা মোট লেনদেনের ৭ দশমিক ৫৫ শতাংশ। সপ্তাহজুড়ে শেয়ারটির দর ১ দশমিক ৭৪ শতাংশ বেড়েছে। আর লেনদেনের এ তালিকার দ্বিতীয় অবস্থানে উঠে আসে আইপিডিসি ফাইন্যান্স লিমিটেড। সপ্তাহজুড়ে কোম্পানিটির ২ কোটি ৮৫ লাখ ১৮ হাজার ৭৬৬টি শেয়ার ১৩৪ কোটি ৬১ লাখ ৪৩ হাজার টাকায় লেনদেন হয়, যা মোট লেনদেনের ৪ দশমিক ৪১ শতাংশ। সপ্তাহজুড়ে শেয়ারটির দর ৩ দশমিক ৪৪ শতাংশ বেড়েছে।