কোম্পানি সংবাদ

ডিএসইতে বেশিরভাগ শেয়ারের দরপতন, সূচকে মিশ্র প্রবণতা

নিজস্ব প্রতিবেদক: বেশিরভাগ শেয়ারের দর পতনে গতকাল সূচকের মিশ্র প্রবণতায় লেনদেন হয়েছে।  ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) ৫৫ শতাংশ কোম্পানির দরপতনে প্রধান সূচক ও ডিএস৩০ সূচক কমলেও বেড়েছে ডিএসই শরিয়াহ্ সূচক। তবে লেনদেন বেড়ে প্রায় ৪০০ কোটির কাছাকাছি পৌঁছেছে। লেনদেনের শুরুতে সূচকের উত্থান হয়। তবে আধঘণ্টার মধ্যে পতন নেমে আসে। এর মধ্যে সামান্য ব্যবধানে বারবার ওঠানামা করতে করতে শেষ পর্যন্ত ডিএসইএক্স সূচকের পতন হয়। অন্যদিকে চিটাগং স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) বেশিরভাগ শেয়ারের দরপতন সত্ত্বেও সব সূচক ইতিবাচক ছিল। তবে লেনদেন কমেছে।       

বাজার পর্যবেক্ষণে দেখা গেছে, গতকাল ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স দুই দশমিক ২৮ পয়েন্ট বা দশমিক শূন্য চার শতাংশ কমে  চার হাজার ৭৭৯ দশমিক ১৮ পয়েন্টে অবস্থান করে।

ডিএসইএস বা শরিয়াহ্ সূচক তিন দশমিক ৯৬ পয়েন্ট বা দশমিক ৩৬ শতাংশ বেড়ে                 এক হাজার ৯৪ দশমিক ৭৭ পয়েন্টে অবস্থান করে। আর ডিএস৩০ সূচক দশমিক শূন্য তিন পয়েন্ট বা দশমিক শূন্য শূন্য দুই শতাংশ কমে এক হাজার ৬৬৪ দশমিক ৩১ পয়েন্টে অবস্থান করে। গতকাল ডিএসইর বাজার মূলধন ১৭৪ কোটি টাকা কমে দাঁড়িয়েছে তিন লাখ ৫৯ হাজার ৯৯৭ কোটি টাকায়। ডিএসইতে লেনদেন হয় ৩৯২ কোটি ৫০ লাখ টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয়েছিল ২৯৬ কোটি ৬৩ লাখ ৪৩ হাজার টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। এ হিসেবে লেনদেন বেড়েছে ৯৫ কোটি ৮৬ লাখ টাকা। এদিন ১৩ কোটি ২৯ লাখ ৩৪ হাজার ২৪৬ শেয়ার এক লাখ ২৫ হাজার ৫৪৩ বার হাতবদল হয়। লেনদেন হওয়া ৩৫৪ কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ১২৮টির, কমেছে ১৯৪টির এবং অপরিবর্তিত ছিল ৩২টির দর।

গতকাল টাকার অঙ্কে লেনদেনের শীর্ষে উঠে আসে ন্যাশনাল টিউবস। কোম্পানিটির ১২ কোটি ৪৫ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। দর কমেছে সাড়ে সাত টাকা। এরপর ওয়াটা  কেমিক্যালের ১১ কোটি ৫৮ লাখ টাকা লেনদেন হয়। দর বেড়েছে ১৯ টাকা। সোনার বাংলা ইন্স্যুরেন্সের ৯ কোটি ৪৬ লাখ টাকা লেনদেন হয়। দর অপরিবর্তিত ছিল। ন্যাশনাল পলিমারের আট কোটি ৮৫ লাখ টাকা লেনদেন হয়, দর বেড়েছে চার টাকা। ফরচুন শুজের সাত কোটি ৮৮ লাখ টাকা লেনদেন হয়, দর বেড়েছে ১০ পয়সা। এছাড়া উত্তরা ব্যাংকের ছয় কোটি ৭৮ লাখ টাকা লেনদেন হয়। সুহƒদ ইন্ডাস্ট্রিজের ছয় কোটি ৬৩ লাখ টাকা, মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংকের ছয় কোটি ৬০ লাখ টাকা, খুলনা পাওয়ারের সাড়ে ছয় কোটি টাকা ও লংকাবাংলা ফাইন্যান্সের ছয় কোটি ২১ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়।

৯ দশমিক ৪২ শতাংশ বেড়ে দর বৃদ্ধির শীর্ষে উঠে আসে অগ্রণী ইন্স্যুরেন্স। সি পার্ল রিসোর্টের দর সাত দশমিক ৭৬ শতাংশ, প্রভাতী ইন্স্যুরেন্সের সাত দশমিক ৩৬ শতাংশ, সিটি জেনারেল ইন্স্যুরেন্সের ছয় দশমিক ৪৩ শতাংশ, স্ট্যান্ডার্ড সিরামিকের ছয় দশমিক ৩৭ শতাংশ, পেনিনসুলা চিটাগংয়ের ছয় শতাংশ, সেন্ট্রাল ইন্স্যুরেন্সের পাঁচ দশমিক ৯৮ শতাংশ, এসিআই লিমিটেডের পাঁচ দশমিক ৮০ শতাংশ, প্যারামাউন্ট ইন্স্যুরেন্সের পাঁচ দশমিক ৭৮ শতাংশ, ইউনাইটেড ইন্স্যুরেন্সের দর পাঁচ দশমিক ৭০ শতাংশ বেড়েছে।  

৯ দশমিক ২৪ শতাংশ দর কমে শীর্ষে উঠে আসে রিজেন্ট টেক্সটাইল। সালভো  কেমিক্যালের ৯ দশমিক শূন্য ৯ শতাংশ, বসুন্ধরা পেপার মিলের আট দশমিক ৩৯ শতাংশ, ভ্যানগার্ড এএমএল বিডি মিউচুয়াল ফান্ডের সাত দশমিক ৯৩ শতাংশ, মেঘনা কনডেন্সড মিল্কের সাত দশমিক ৬৯ শতাংশ, তোসরিফা ইন্ডাস্ট্রিজের সাত দশমিক ২৫ শতাংশ, মুন্নু সিরামিকের ছয় দশমিক ৯১ শতাংশ, মোজাফফর হোসেন স্পিনিংয়ের ছয় দশমিক ৮৯ শতাংশ, সেন্ট্রাল ফার্মাসিউটিক্যালসের ছয় দশমিক ৮১ শতাংশ ও ইউনাইটেড এয়ারের দর ছয় দশমিক ৬৬ শতাংশ কমেছে।  

অন্যদিকে সিএসইতে গতকাল সিএসসিএক্স মূল্যসূচক সাত দশমিক ৯৫ পয়েন্ট বা দশমিক শূন্য ৯ শতাংশ বেড়ে আট হাজার ৮২৯ দশমিক ৬২ পয়েন্টে এবং সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ১১ দশমিক ৫৮ পয়েন্ট বা দশমিক শূন্য সাত শতাংশ বেড়ে ১৪ হাজার ৫৩১ দশমিক ৯৭ পয়েন্টে অবস্থান করে। গতকাল সর্বমোট ২৫৪ কোম্পানি এবং মিউচুয়াল ফান্ডের শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়। এর মধ্যে দর বেড়েছে ৯১টির, কমেছে ১৩৬টির এবং অপরিবর্তিত ছিল ২৭টির দর।

সিএসইতে এদিন ৩০ কোটি ১১ লাখ ৭৬ হাজার ৯৫৭ টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট লেনদেন হয়। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয়েছিল ৩৪ কোটি ১৪ লাখ ৮৪ হাজার ৬৫০ টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। এ হিসেবে লেনদেন কমেছে চার কোটি টাকা।

সিএসইতে লেনদেনের শীর্ষে অবস্থান করে যমুনা ব্যাংক। কোম্পানিটির পাঁচ কোটি সাত লাখ টাকা লেনদেন হয়। সিলকো ফার্মার চার কোটি ৩৯ লাখ টাকার, প্যারামাউন্ট টেক্সটাইলের তিন কোটি ৮৪ লাখ টাকার, স্কয়ার ফার্মার তিন কোটি ৪৬ লাখ টাকার, জেনারেশন নেক্সটের এক কোটি ২৫ লাখ টাকার, ডরিন পাওয়ারের এক কোটি ছয় লাখ টাকার, লংকাবাংলা ফাইন্যান্সের ৫০ লাখ টাকার, মার্কেন্টাইল ইন্স্যুরেন্সের ৪৯ লাখ টাকার, ভিএফএস থ্রেডের ৩৭ লাখ টাকার, কপারটেকের ৩৩ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়।  

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..