কোম্পানি সংবাদ

ডিএসইতে বেশিরভাগ শেয়ারদর ও লেনদেন কমলেও সূচক ইতিবাচক

 

নিজস্ব প্রতিবেদক: ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) গতকাল বেশিরভাগ শেয়ারের দরপতন হয়। সেই সঙ্গে আগেরদিনের থেকে লেনদেন কমেছে। তা সত্ত্বেও সব কয়টি সূচক ইতিবাচক অবস্থানে দেখা যায়। যদিও প্রধান সূচক নামমাত্র ইতিবাচক ছিল। লেনদেনের শুরুতেই সূচকের উত্থান হলেও ১৫ মিনিটের মধ্যে বিক্রির চাপ বাড়লে সূচকের পতন হয়। পৌনে ১২টার দিকে ফের ওঠার চেষ্টা করে। এরপর প্রায় সমান্তরাল গতিতে থেকে সামান্য ব্যবধানে ওঠানামা করে। শেষ পর্যন্ত দশমিক ডিএসইএক্স সূচক ৬৭ পয়েন্ট বা শূন্য এক শতাংশ ইতিবাচক থাকে। বাকি দুই সূচকের সামান্য উত্থান হয়। গতকাল দর বেড়েছে প্রায় সাড়ে ৩১ শতাংশ কোম্পানির। কমেছে ৬১ শতাংশ কোম্পানির দর। অন্যদিকে চিটাগং স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) বেশিরভাগ শেয়ারদর ও লেনদেন কমেছে। সূচকের ছিল মিশ্র প্রবণতা।
বাজার পর্যবেক্ষণে দেখা গেছে, গতকাল ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স দশমিক ৬৭ পয়েন্ট বা দশমিক শূন্য এক শতাংশ বেড়ে পাঁচ হাজার ১৩৩ দশমিক ৯৩ পয়েন্টে অবস্থান করে।
ডিএসইএস বা শরিয়াহ সূচক দুই দশমিক ৭৫ পয়েন্ট বা দশমিক ২৩ শতাংশ বেড়ে এক হাজার ১৭৬ দশমিক ৪৮ পয়েন্টে অবস্থান করে। আর ডিএস ৩০ সূচক তিন দশমিক ৩৫ পয়েন্ট বা দশমিক ১৮ শতাংশ বেড়ে এক হাজার ৮৩৯ দশমিক ৫৪ পয়েন্টে অবস্থান করে। গতকাল ডিএসইর বাজার মূলধন তিন লাখ ৮৪ হাজার ৭৪২ কোটি ৩৩ লাখ ৯১ হাজার ৫৩৫ টাকা হয়। ডিএসইতে গতকাল লেনদেন হয় ৪০৬ কোটি টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয়েছিল ৪৬৭ কোটি ৯৩ লাখ টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। এ হিসাবে লেনদেন কমেছে ৬১ কোটি ৯২ লাখ টাকা। এদিন ১৫ কোটি ৪৬ লাখ ৮৩ হাজার ১১৫টি শেয়ার এক লাখ ২১ হাজার ৩৪৪ বার হাতবদল হয়। লেনদেন হওয়া ৩৫১ কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ১১১টির, কমেছে ২১৪টির, অপরিবর্তিত ছিল ২৬টির দর।
গতকাল টাকার অঙ্কে লেনদেনের শীর্ষে উঠে আসে ইউনাইটেড পাওয়ার। কোম্পানিটির প্রায় সাড়ে ২১ কোটি টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। দর বেড়েছে পাঁচ টাকা ৪০ পয়সা। বাংলাদেশ শিপিং করপোরেশনের ১৯ কোটি শূন্য ৯ লাখ টাকা লেনদেনের পাশাপাশি দর বেড়েছে সাড়ে তিন টাকা। তৃতীয় অবস্থানে থাকা ফরচুন সুজের ১৬ কোটি ৬১ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। দর বেড়েছে এক টাকা ১০ পয়সা। মুন্নু সিরামিকের ১০ কোটি ৪৯ লাখ টাকার, এসইএমএল লেকচার ইকুইটি ম্যানেজমেন্ট ফান্ডের আট কোটি ২২ লাখ টাকার, সিঙ্গার বিডির সাত কোটি ৮৯ লাখ টাকা, বীকন ফার্মার সোয়া সাত কোটি টাকা, প্রাইম ফাইন্যান্স ফার্স্ট মিউচুয়াল ফান্ডের সাত কোটি ১৩ লাখ টাকা, জেএমআই সিরিঞ্জের সাত কোটি ১১ লাখ টাকা, প্রাইম লাইফ ইন্স্যুরেন্সের পৌনে সাত কোটি টাকার শেয়ার লেনদেন হয়।
প্রায় ১০ শতাংশ বেড়ে দরবৃদ্ধির শীর্ষে উঠে আসে বিডি অটোকার ও ইউনাইটেড ইন্স্যুরেন্স। মুন্নু সিরামিকের দর ৯ দশমিক ৬৬ শতাংশ, লিগ্যাসি ফুটওয়্যারের দর আট দশমিক ৩৬ শতাংশ, মুন্নু স্টাফলার্সের দর সাত দশমিক ৪৮ শতাংশ, দেশ গার্মেন্টসের দর সাত দশমিক ৪৮ শতাংশ, ইনটেক অনলাইনের দর পাঁচ দশমিক ৭৬ শতাংশ, ইস্টার্ন কেবলস্রে দর পাঁচ দশমিক ৬৪ শতাংশ, বাংলাদেশ শিপিং করপোরেশনের দর পাঁচ দশমিক ৩৮ শতাংশ, জেমিনি সি ফুডের দর পাঁচ দশমিক ৩৫ শতাংশ বেড়েছে।
অন্যদিকে ২৩ দশমিক ৬৬ শতাংশ কমে দরপতনের শীর্ষে উঠে আসে প্রোগ্রেসিভ লাইভ ইন্স্যুরেন্স। প্রাইম ব্যাংক ফার্স্ট আইসিবি এএমসিএল মিউচুয়াল ফান্ডের দর ১০ শতাংশ কমেছে। এছাড়া এসইএমএল এফবিএলএসএল গ্রোথ ফান্ডের ৯ দশমিক ৯০ শতাংশ, এসইএমএল লেকচার ইকুইটি ম্যানেজমেন্ট ফান্ডের দর ৯ দশমিক ৬০ শতাংশ, সিএপিএম আইবিবিএল মিউচুয়াল ফান্ডের দর ৯ দশমিক ২৫৬ শতাংশ, সিএপিএম বিডিবিএল মিউচুয়াল ফান্ডের দর ৯ দশমিক ৫২ শতাংশ, ভ্যানগার্ড এএমএল রূপালী ব্যাংক ব্যালান্সড ফান্ডের দর ৯ দশমিক শূন্য ৯ শতাংশ, আইসিবি এএমসিএল সেকেন্ড মিউচুয়াল ফান্ডের দর আট দশমিক ৯৮ শতাংশ কমেছে।
সিএসইতে গতকাল সিএসসিএক্স মূল্যসূচক দশমিক ৩২ পয়েন্ট বা দশমিক ০০৩ শতাংশ কমে ৯ হাজার ৫৫১ দশমিক ১৯ পয়েন্টে এবং সার্বিক সূচক সিএএসপিআই তিন দশমিক শূন্য ২ পয়েন্ট বা দশমিক শূন্য এক শতাংশ বেড়ে ১৫ হাজার ৭১৬ দশমিক ৭৮ পয়েন্টে অবস্থান করে। গতকাল সর্বমোট ২৭১টি কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ডের শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়। এর মধ্যে দর বেড়েছে ৯২টির, কমেছে ১৫১টির এবং অপরিবর্তিত ছিল ২৮টির দর।
সিএসইতে এদিন ২০ কোটি ৯৫ লাখ ৫৫ হাজার ৯১১ টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট লেনদেন হয়। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয়েছিল ২৮ কোটি ৮৪ লাখ ৭২ হাজার ৪৯২ টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। এ হিসাবে লেনদেন কমেছে সাত কোটি ৮৯ লাখ টাকা। সিএসইতে গতকাল লেনদেনের শীর্ষে অবস্থান করে শেফার্ড ইন্ডাস্ট্রিজ। কোম্পানিটির ছয় কোটি ৬৪ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। এরপর সি পার্ল রিসোর্টের এক কোটি শূন্য ছয় লাখ টাকার, ডরিন পাওয়ারের এক কোটি শূন্য তিন লাখ, বাংলাদেশ শিপিং করপোরেশনের ৮৬ লাখ টাকার, বেক্সিমকোর ৫৫ লাখ, ইন্ট্রাকো রিফুয়েলিং সাড়ে ৫১ লাখ, মুন্নু সিরামিক ৪৮ লাখ, ইউনাইটেড পাওয়ার ৪৬ লাখ, জেনেক্স ইনফোসিস সাড়ে ৪১ লাখ ও বিএটিবিসি ৩৭ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..