প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

ডিএসইতে বেড়েছে বৈদেশিক লেনদেন

নিজস্ব প্রতিবেদক: দেশের প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) চলতি পঞ্জিকা বছরের ১১ মাসে (জানুয়ারি-নভেম্বর) ডিএসইতে বিদেশি ও প্রবাসী বিনিয়োগকারীরা সাত হাজার ৭৯৭ কোটি ৩০ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন করেছেন। আগের বছরের একই সময় এর পরিমাণ ছিল ছয় হাজার ৭৭২ কোটি ২০ লাখ টাকা। সে হিসেবে ১১ মাসে বৈদেশিক বিনিয়োগকারীদের লেনদেন বেড়েছে ১৫ দশমিক ১৪ শতাংশ। ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

বাজার বিশ্লেষকদের মতে, বিদেশিদের আগ্রহ বাড়ার যে লক্ষণ দেখা যাচ্ছে, তা পুঁজিবাজারের জন্য ইতিবাচক। বিদেশিরা সাধারণত ভালো শেয়ারে বিনিয়োগ করে থাকেন; কিন্তু গত কয়েক বছরে বাজারে মালটিন্যাশনাল কোনো কোম্পানি তালিকাভুক্ত হয়নি। এসব কোম্পানি পুঁজিবাজারে এলে বাজারে ভালো শেয়ারের সংকট কেটে যাবে। তখন বিদেশি বিনিয়োগকারীদের আগ্রহ আরও বৃদ্ধি পাবে। বিদেশিরা বিনিয়োগ করলে অনেক সময় বাজারে গতি ফেরে। তাদের দেখাদেখি দেশি বিনিয়োগকারীরাও আশান্বিত হয়ে বাজারে আসবেন বলে মনে করছেন তারা।

ডিএসই সূত্রে জানা গেছে, চলতি বছরের প্রথম ১১ মাসে বিদেশি এবং প্রবাসী বিনিয়োগকারীরা চার হাজার ৩৭৬ কোটি ২৭ লাখ ৬৫ হাজার টাকার শেয়ার ও ইউনিট কিনেছেন। এর বিপরীতে তিন হাজার ৪২১ কোটি টাকার শেয়ার ও ইউনিট বিক্রি করেছেন। সে হিসেবে চলতি বছরের ১১ মাসে নিট বিনিয়োগ হয়েছে ৯৫৫ কোটি ২৫ লাখ টাকা।

এর আগের বছরের একই সময় বিদেশি ও প্রবাসী বিনিয়োগকারীরা তিন হাজার ৪৩৯ কোটি ৩৭ লাখ ৩৪ হাজার টাকার শেয়ার এবং ইউনিট কিনেছেন। বিপরীতে তিন হাজার ৩৩২ কোটি ৮৩ লাখ ৪৫ হাজার টাকার শেয়ার ও ইউনিট বিক্রি করেছেন। এ সময় নিট বিনিয়োগ ছিল ১০৬ কোটি ৫৩ লাখ ৮৮ হাজার টাকা। দেখা যাচ্ছে, গত বছরের একই সময়ের তুলনায় চলতি বছর বিদেশি বিনিয়োগ প্রায় ৮০০ কোটি টাকা বেড়েছে।

বিদায়ী নভেম্বরে পুঁজিবাজারে বিদেশি বিনিয়োগকারীদের প্রকৃত বিনিয়োগ হয়েছে ১৫৪ কোটি ৭৭ লাখ ৭২ হাজার টাকা। এ সময় বিদেশিরা মোট ৬৬৩ কোটি ৭১ লাখ ৯৭ হাজার টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন করেছেন। এর মধ্যে বিদেশিরা ৪০৯ কোটি ২৭ লাখ ৩৭ হাজার টাকার শেয়ার কিনেছেন, বিপরীতে ২৫৪ কোটি ৪৭ লাখ ১২ হাজার টাকার শেয়ার বিক্রি করেছেন।

এর আগে ডিএসইতে চলতি বছরের প্রথম ১০ মাসে (জানুয়ারি-অক্টোবর ’১৬) গত বছরের একই সময়ের তুলনায় নিট বৈদেশিক বিনিয়োগ বেড়েছে ৭১৬ কোটি টাকা বা ৮৫৬ দশমিক ৩২ শতাংশ। এ সময় নিট বৈদেশিক বিনিয়োগ হয়েছে ৮০০ কোটি ৪৭ লাখ টাকা; যা এর আগের বছর একই সময় ছিল ৮৩ কোটি ৭০ লাখ টাকা।

এ সময় বৈদেশিক বিনিয়োগকারীরা মোট শেয়ার ক্রয় করেছেন তিন হাজার ৯৬৭ কোটি দুই লাখ টাকার। যা গত বছরের চেয়ে ২৭ দশমিক ৬৮ শতাংশ বেশি। গত বছর যা ছিল তিন হাজার ১০৭ কোটি ১২ লাখ টাকা। আর ১০ মাসে তিন হাজার ১৬৬ কোটি ৫৫ লাখ টাকার শেয়ার বিক্রি করেন বিদেশিরা।