কোম্পানি সংবাদ

ডিএসইতে লেনদেন বেড়েছে ৪১ দশমিক ১৭ শতাংশ

 

নিজস্ব প্রতিবেদক: উভয় পুঁজিবাজার গত সপ্তাহে ইতিবাচক প্রবণতায় ছিল। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) পাঁচ কার্যদিবসের মধ্যে তিন দিন সূচক বেড়েছে, কমেছে দুদিন। সপ্তাহের ব্যবধানে লেনদেন বেড়েছে ৪১ দশমিক ১৭ শতাংশ। পাশাপাশি দৈনিক গড় লেনদেনও একই হারে বেড়েছে। সবগুলো সূচক ও বাজার মূলধন ইতিবাচক ছিল। বেড়েছে বেশিরভাগ শেয়ারের দর। অন্যদিকে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সবকটি সূচক ইতিবাচক থাকার পাশাপাশি  বেড়েছে বেশিরভাগ শেয়ারের দর ও লেনদেন।

সাপ্তাহিক বাজার পর্যালোচনায় দেখা গেছে, ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স এক দশমিক ৪২ শতাংশ বা ৮৪ দশমিক ৫৭ পয়েন্ট বেড়ে ছয় হাজার ৫০ দশমিক ২০ পয়েন্টে স্থির হয়। ডিএসইএস বা শরিয়াহ্ সূচক ১৫ দশমিক ৮৭ পয়েন্ট বা এক দশমিক ১৪ শতাংশ বেড়ে এক হাজার ৪০৫ দশমিক ৪৪ পয়েন্টে পৌঁছায়। ডিএসই ৩০ সূচক পাঁচ দশমিক ৪৪ পয়েন্ট বা দশমিক ২৪ শতাংশ বেড়ে দুই হাজার ২৩০ দশমিক ৯৩ পয়েন্টে স্থির হয়। মোট ৩৩৯টি কোম্পানির শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট লেনদেন হয়। এর মধ্যে দর বেড়েছে ২৪১টির, কমেছে ৭২টির এবং অপরিবর্তিত ছিল ২৫ কোম্পানির শেয়ারদর। লেনদেন হয়নি একটির। দৈনিক গড় লেনদেন হয়েছে ৫১৫ কোটি ৮২ লাখ ৫৬ হাজার ৯১৮ টাকা। আগের সপ্তাহে দৈনিক গড় লেনদেন হয় ৩৬৫ কোটি ৩৯ লাখ ১৪ হাজার ৩৯৭ টাকা। সপ্তাহের ব্যবধানে দৈনিক গড় লেনদেন বেড়েছে ১৫০ কোটি ৪৩ লাখ টাকা বা ৪১ দশমিক ১৭ শতাংশ।

অন্যদিকে সিএসইতে ২৮৭টি কোম্পানির শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট লেনদেন হয়। এর মধ্যে দর বেড়েছে ২২২টির, কমেছে ৪৯টির এবং অপরিবর্তিত ছিল ১৬টির দর।

গেল সপ্তাহে ডিএসইতে মোট টার্নওভার বা লেনদেনের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে দুই হাজার ৫৭৯ কোটি ১২ লাখ ৮৪ হাজার ৫৮৮ টাকা। আগের সপ্তাহে যা ছিল এক হাজার ৮২৬ কোটি ৯৫ লাখ ৭১ হাজার ৯৮৭ টাকা। অর্থাৎ সপ্তাহের ব্যবধানে ডিএসইতে টার্নওভার বেড়েছে ৭৫২ কোটি ১৭ লাখ টাকা বা ৪১ দশমিক ১৭ শতাংশ।

ডিএসইতে গত সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবস রোববার বাজার মূলধন ছিল চার লাখ ১৪ হাজার ৭৮৬ কোটি ৯১ লাখ ৯৯ হাজার টাকা। শেষ কার্যদিবসে যার পরিমাণ ছিল চার লাখ ১৭ হাজার ৭৮৪ কোটি ৩৩ লাখ ৯২ হাজার ৭০০ টাকা। সপ্তাহের ব্যবধানে বাজার মূলধন বেড়েছে দশমিক ৭২ শতাংশ বা দুই হাজার ৯৯৭ কোটি টাকা।

দেশের অপর পুঁজিবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) গত সপ্তাহে সার্বিক সূচক সিএসসিএক্স বেড়েছে এক দশমিক ৫১ শতাংশ। এছাড়া সিএএসপিআই সূচক বেড়েছে এক দশমিক ৫৯ শতাংশ, সিএসই৫০ সূচক দশমিক ৯২ শতাংশ এবং সিএসআই সূচক বেড়েছে এক দশমিক শূন্য ৯ শতাংশ। সিএসই৩০ সূচক বেড়েছে  দশমিক ২০ শতাংশ। সিএসইতে গেল সপ্তাহে টার্নওভারের পরিমাণ দাঁড়ায় ১৩১ কোটি ১৪ লাখ টাকা। যা আগের সপ্তাহে ছিল ১১৮ কোটি ৭৩ লাখ ৪৯ হাজার ৫০ টাকা। লেনদেন বেড়েছে ১২ কোটি ৪১ লাখ টাকা।

গত সপ্তাহে ডিএসইর টপ টেন গেইনার তালিকার শীর্ষে উঠে আসে ফাইন ফুডস। কোম্পানিটির দর ২৫ দশমিক ৮২ শতাংশ বেড়েছে। তালিকায় এর পরের অবস্থানগুলোয় ছিল এপেক্স ফুড, ইনটেক লিমিটেড, আনোয়ার গ্যালভানাইজিং, অগ্নি সিস্টেম, মেট্রো স্পিনিং, সেন্ট্রাল ফার্মাসিউটিক্যালস, ইয়াকিন পলিমার, ফু-ওয়াং ফুড।

 

 

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..