কোম্পানি সংবাদ পুঁজিবাজার

ডিএসইতে সূচকের পতন, লেনদেন কমেছে ৮৫ কোটি টাকা

নিজস্ব প্রতিবেদক: ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) গতকাল রোববার চলতি সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবসে সূচকের পতন হয়েছে। একই সঙ্গে লেনদেন আগের কার্যদিবসের তুলনায় ৮৫ কোটি টাকা কমেছে। এদিন মোট ৩৬৬টি কোম্পানির শেয়ার লেনদেন হয়। দর বেড়েছে ১০২টির এবং কমেছে ১২০টির। বাকি ১২৬টি কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ডের শেয়ারদর অপরিবর্তিত ছিল। গতকাল ডিএসইতে লেনদেন হয় ৬৬০ কোটি ৬৪ লাখ ২৭ হাজার টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয়েছিল ৭৪৬ কোটি দুই লাখ ৯৮ হাজার টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। অর্থাৎ লেনদেন কমেছে ৮৫ কোটি ৩৮ লাখ ৭১ হাজার টাকা। এদিন ১৬ কোটি ২০ লাখ ২৭ হাজার ৩৮৪টি শেয়ার এক লাখ ৩৪ হাজার ৫৭৯ বার হাতবদল হয়। গতকাল লেনদেনের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত পতনের চিত্র দেখা গেছে। অন্যদিকে চিটাগং স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) একই চিত্র দেখা গেছে।

বাজার পর্যবেক্ষণে দেখা গেছে, গতকাল ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ১১ দশমিক ৫৯ পয়েন্ট বা শূন্য দশমিক ২১ শতাংশ কমে পাঁচ হাজার ৪০৪ দশমিক ৭৯ পয়েন্টে পৌঁছায়। ডিএসইএস বা শরিয়াহ্ সূচক ৩ দশমিক ০৩ পয়েন্ট বা শূন্য দশমিক ২৪ শতাংশ কমে এক হাজার ২২২ দশমিক ৮৪ পয়েন্টে অবস্থান করে। অন্যদিকে ডিএস৩০ সূচক ৮ দশমিক ৯৬ পয়েন্ট বা শূন্য দশমিক ৪৩ শতাংশ কমে দুই হাজার ৫৬ দশমিক ৮৩ পয়েন্টে স্থির হয়। গতকাল ডিএসইর বাজার মূলধন এক হাজার ২১৮ কোটি ৯৩ লাখ ৯৭ হাজার টাকা কমে দাঁড়িয়েছে চার লাখ ৬৫ হাজার ৭৩৬ কোটি ৬০ লাখ ৮৯ হাজার টাকায়।

গতকাল টাকার অঙ্কে লেনদেনের শীর্ষে উঠে আসে বাংলাদেশ এক্সপোর্ট-ইমপোর্ট কোম্পানি (বেক্সিমকো) লিমিটেড। কোম্পানিটির ১৩১ কোটি ৬১ লাখ ৫০ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। শেয়ারটির দর ৫ টাকা কমেছে। দ্বিতীয় অবস্থানে থাকা রবি আজিয়াটা লিমিটেডের ৫৭ কোটি ৩৬ লাখ ৮২ হাজার টাকার লেনদেন হয়েছে। কোম্পানিটির শেয়ারদর ২০ পয়সা বেড়েছে। ব্রিটিশ আমেরিকান টোব্যাকো বাংলাদেশ কোম্পানি লিমিটেডের ৫২ কোটি ১৩ লাখ ৭৬ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। শেয়ারদর ১৭ টাকা ৮০ পয়সা বেড়েছে। এর পরের অবস্থানগুলোয় থাকা সামিট পাওয়ার লিমিটেডের ৪২ কোটি ৯ লাখ ৪৪ হাজার টাকার, লংকাবাংলা ফাইন্যান্স লিমিটেডের ৩১ কোটি ১৩ হাজার টাকার, লাফার্জহোলসিম বাংলাদেশ লিমিটেডের ২৪ কোটি ৫৯ লাখ ৭ হাজার টাকার, বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডের ২৪ কোটি ৩৪ লাখ ৭৭ হাজার টাকার, ওয়ালটন হাইটেক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের ১৬ কোটি ২৪ লাখ ২০ হাজার টাকার, জিবিবি পাওয়ার লিমিটেডের ১০ কোটি ৮৭ লাখ ৮৩ হাজার টাকার এবং ওরিয়ন ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডের ৮ কোটি ৯৪ লাখ ৭৯ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়।

৯ দশমিক ৯৯ শতাংশ বেড়ে দর বৃদ্ধির শীর্ষে ছিল আনোয়ার গ্যালভানাইজিং লিমিটেড। জিকিউ বলপেন ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের ৯ দশমিক ৯৬ শতাংশ, ই-জেনারেশন লিমিটেডের ৯ দশমিক ৭১ শতাংশ, অ্যাসোসিয়েটেড অক্সিজেন লিমিটেডের ৯ দশমিক ৫৩ শতাংশ, দেশ গার্মেন্টস লিমিটেডের ৭ দশমিক ২৪ শতাংশ, ভ্যানগার্ড এএমএল রুপালী ব্যাংক ব্যালেন্সড ফান্ডের ৬ দশমিক ৩৮ শতাংশ, লিবরা ইনফিউশনস লিমিটেডের ৬ দশমিক ২২ শতাংশ, সোনালী আঁশ ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের ৫ দশমিক ৬৫ শতাংশ, বাংলাদেশ ল্যাম্পস লিমিটেডের ৪ দশমিক ৯১ শতাংশ এবং ডমিনেজ স্টিল বিল্ডিং সিস্টেমস লিমিটেডের ৪ দশমিক ৮২ শতাংশ শেয়ারদর বেড়েছে।

অন্যদিকে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) প্রধান সূচক সিএসসিএক্স ৩০ দশমিক ৪০ পয়েন্ট বা শূন্য দশমিক ৩২ শতাংশ কমে ৯ হাজার ৪১০ দশমিক ৭৪ পয়েন্টে এবং সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ৪৬ দশমিক ৮০ পয়েন্ট বা শূন্য দশমিক ২৯ শতাংশ কমে ১৫ হাজার ৬০৩ দশমিক ৭৯ পয়েন্টে অবস্থান করে। সিএসইতে ২২৯টি কোম্পানির শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট লেনদেন হয়েছে। দর বেড়েছে ৭৫টির, কমেছে ৮০টির এবং ৭৪টির দর অপরিবর্তিত ছিল। সিএসইতে লেনদেন হয়েছে ২৪ কোটি ৪২ লাখ ৩১ হাজার ৩ টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয়েছিল ২৫ কোটি ৫৬ লাখ ৫ হাজার ৮৪৮ টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। এ হিসাবে লেনদেন কমেছে এক কোটি ১৩ লাখ ৭৪ হাজার ৮৪৫ টাকার।

সিএসইতে লেনদেনের শীর্ষে উঠে আসে রবি আজিয়াটা লিমিটেড। কোম্পানিটির ৪ কোটি ৮৩ লাখ ৯০ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। দ্বিতীয় অবস্থানে থাকা বাংলাদেশ এক্সপোর্ট-ইমপোর্ট কোম্পানি (বেক্সিমকো) লিমিটেডের ২ কোটি ৮১ লাখ ৯০ হাজার টাকার লেনদেন হয়েছে। ব্রিটিশ আমেরিকান টোব্যাকো বাংলাদেশ কোম্পানি লিমিটেডের ২ কোটি ৩৫ লাখ ৫০ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। এর পরের অবস্থানগুলোয় থাকা লংকাবাংলা ফাইন্যান্স লিমিটেডের এক কোটি ৪৬ লাখ ৭০ হাজার টাকার, লাফার্জহোলসিম বাংলাদেশ লিমিটেডের ৯৭ লাখ ৭০ হাজার টাকার, সামিট পাওয়ার লিমিটেডের ৯২ লাখ ৪০ হাজার টাকার, এনার্জিপ্যাক পাওয়ার জেনারেশন লিমিটেডের ৮১ লাখ ১০ হাজার টাকার, তাওফিকা ফুডস অ্যান্ড এগ্রো ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের ৬০ লাখ ৬০ হাজার টাকার, ন্যাশনাল ব্যাংক লিমিটেডের ৪৮ লাখ ৫০ হাজার টাকার এবং রংপুর ডেইরি অ্যান্ড ফুড প্রোডাক্টস লিমিটেডের ৪৭ লাখ ৩০ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..