কোম্পানি সংবাদ পুঁজিবাজার

ডিএসইতে সূচক কমলেও ১২৬ কোটি টাকার লেনদেন বেড়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদক: ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) গতকাল সোমবার সপ্তাহের দ্বিতীয় কার্যদিবসে সিংহভাগ শেয়ারের দর কমায় সূচক কমেছে, তবে লেনদেন আগের দিনের তুলনায় বেড়েছে। এদিন মোট ৩৫৯টি কোম্পানির শেয়ার লেনদেন হয়। দর বেড়েছে ৭৬টির এবং কমেছে ২০২টির। বাকি ৮১টি কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ডের শেয়ারদর অপরিবর্তিত ছিল। গতকাল ডিএসইতে লেনদেন হয় এক হাজার ৫৮৫ কোটি ২২ লাখ ৯ হাজার টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয়েছিল এক হাজার ৪৫৮ কোটি ৬২ লাখ ৬৫ হাজার টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। অর্থাৎ লেনদেন বেড়েছে ১২৬ কোটি ৫৯ লাখ ৪৪ হাজার টাকা। এদিন ৩৬ কোটি ৪১ লাখ ৭৭ হাজার ২০৩টি শেয়ার দুই লাখ ছয় হাজার ১৮২ বার হাতবদল হয়। গতকাল লেনদেনের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত উত্থান-পতনের মধ্য দিয়ে লেনদেন হয়। অন্যদিকে চিটাগং স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সূচক ও লেনদেন কমেছে।

বাজার পর্যবেক্ষণে দেখা গেছে, গতকাল ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ২৫ দশমিক ৬১ পয়েন্ট বা শূন্য দশমিক ৪৪ শতাংশ কমে পাঁচ হাজার ৭৮৯ দশমিক ৯২ পয়েন্টে পৌঁছায়। ডিএসইএস বা শরিয়াহ্ সূচক শূন্য দশমিক ৪১ পয়েন্ট বা শূন্য দশমিক শূন্য তিন শতাংশ কমে এক হাজার ২৯৬ দশমিক ৯১ পয়েন্টে অবস্থান করে। অন্যদিকে ডিএস৩০ সূচক আট দশমিক ১৭ পয়েন্ট বা শূন্য দশমিক ৩৭ শতাংশ কমে দুই হাজার ২০২ দশমিক শূন্য এক পয়েন্টে স্থির হয়। গতকাল ডিএসইর বাজার মূলধন দুই হাজার ৯৮১ কোটি ৫৩ লাখ ৩৬ হাজার টাকা কমে দাঁড়িয়েছে চার লাখ ৮৫ হাজার ৩০০ কোটি ৭৫ লাখ ৮৮ হাজার টাকায়।

গতকাল টাকার অঙ্কে লেনদেনের শীর্ষে উঠে আসে বাংলাদেশ এক্সপোর্ট-ইমপোর্ট কোম্পানি লিমিটেড। কোম্পানিটির ৩৩০ কোটি ৬০ লাখ ৪৬ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। শেয়ারটির দর ২০ পয়সা বেড়েছে। দ্বিতীয় অবস্থানে থাকা বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডের ১৫২ কোটি ৪৫ লাখ ৩৪ হাজার টাকার লেনদেন হয়েছে। কোম্পানিটির শেয়ারদর আট টাকা ৩০ পয়সা কমেছে। স্কয়ার ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডের ১০২ কোটি ৬৫ লাখ ৯১ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। শেয়ারদর ৯ টাকা ৫০ পয়সা বেড়েছে। এর পরের অবস্থানগুলোয় থাকা রবি আজিয়াটা লিমিটেডের ৯০ কোটি ৭০ লাখ এক হাজার টাকার, লংকাবাংলা ফাইন্যান্স লিমিটেডের ৬৬ কোটি ৭৪ লাখ ৯৪ হাজার, সামিট পাওয়ার লিমিটেডের ৫৪ কোটি ১১ লাখ ৪৪ হাজার, জিবিবি পাওয়ার লিমিটেডের ৩২ কোটি ২৪ লাখ ৭৯ হাজার, সিটি ব্যাংক লিমিটেডের ২৬ কোটি ৯৮ লাখ ৭৪ হাজার, আইএফআইসি ব্যাংক লিমিটেডের ২৪ কোটি ৭২ লাখ ৩২ হাজার এবং পাওয়ার গ্রিড কোম্পানি বাংলাদেশ লিমিটেডের ২২ কোটি ৬৯ লাখ ৬৩ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়।

৯ দশমিক ৯৭ শতাংশ বেড়ে দর বৃদ্ধির শীর্ষে ছিল এনার্জিপ্যাক পাওয়ার জেনারেশন লিমিটেড। আরএকে সিরামিকস বাংলাদেশ লিমিটেডের ৯ দশমিক ৮৯ শতাংশ, ক্রিস্টাল ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের ৬ দশমিক ১৩ শতাংশ, এশিয়া প্যাসিফিক জেনারেল ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের ৬ দশমিক ০২ শতাংশ ও ডমিনেজ স্টিল বিল্ডিং সিস্টেমস লিমিটেডের ৫ দশমিক ৫৫ শতাংশ শেয়ারদর বেড়েছে। রিপাবলিক ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের ৪ দশমিক ৮৪ শতাংশ, স্কয়ার ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডের ৪ দশমিক ১২ শতাংশ, পদ্মা অয়েল কোম্পানি লিমিটেডের ৪ দশমিক ১০ শতাংশ, আমান কটন ফাইব্রাস লিমিটেডের ৩ দশমিক ৯৪ শতাংশ এবং মার্কেন্টাইল ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের ৩ দশমিক ৬৬ শতাংশ শেয়ারদর বেড়েছে।

অন্যদিকে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) প্রধান সূচক সিএসসিএক্স ৬৫ দশমিক ৬৮ পয়েন্ট বা শূন্য দশমিক ৬৪ শতাংশ কমে ১০ হাজার ১৮৮ দশমিক শূন্য পাঁচ পয়েন্টে এবং সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ১০৮ দশমিক ১২ পয়েন্ট বা শূন্য দশমিক ৬৩ শতাংশ কমে ১৬ হাজার ৮৭৮ দশমিক শূন্য তিন পয়েন্টে অবস্থান করে। সিএসইতে ২৫৮টি কোম্পানির শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট লেনদেন হয়েছে। দর বেড়েছে ৬৪টির, কমেছে ১৪৬টির এবং ৪৮টির দর অপরিবর্তিত ছিল। সিএসইতে লেনদেন হয়েছে ৫২ কোটি ৪৬ লাখ ৯৫ হাজার ৬৯৮ টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয়েছিল ৫৬ কোটি ৮৪ লাখ ৪৪ হাজার ৪১৯ টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। এ হিসাবে লেনদেন কমেছে চার কোটি ৩৭ লাখ ৪৮ হাজার ৭২১ টাকার।

সিএসইতে লেনদেনের শীর্ষে উঠে আসে রবি আজিয়াটা লিমিটেড। কোম্পানিটির ১৫ কোটি ১৫ লাখ ১০ হাজার হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। দ্বিতীয় অবস্থানে থাকা বাংলাদেশ এক্সপোর্ট-ইমপোর্ট কোম্পানি লিমিটেডের ৭ কোটি ৪ লাখ ৫০ হাজার টাকার, বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডের ২ কোটি ছয় লাখ ৯০ হাজার, স্কয়ার ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডের এক কোটি ৯০ লাখ ৯০ হাজার টাকার এবং লংকাবাংলা ফাইন্যান্স লিমিটেডের এক কোটি ৭৪ লাখ ৪০ হাজার টাকার লেনদেন হয়েছে। বাংলাদেশ ন্যাশনাল ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের এক কোটি ৬৬ লাখ ৬০ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। এর পরের অবস্থানগুলোয় থাকা এনার্জিপ্যাক পাওয়ার জেনারেশন লিমিটেডের এক কোটি ৩২ লাখ ৪০ হাজার টাকার, লাফার্জহোলসিম বাংলাদেশ লিমিটেডের এক কোটি ৩০ লাখ টাকার, ন্যাশনাল ব্যাংক লিমিটেডের এক কোটি ১০ লাখ ১০ হাজার টাকার এবং আইএফআইসি ব্যাংক লিমিটেডের ৯৫ লাখ ৯০ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..