কোম্পানি সংবাদ পুঁজিবাজার

ডিএসইতে সূচক বাড়লেও লেনদেন কমেছে ২১৯ কোটি টাকা

নিজস্ব প্রতিবেদক: ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) গতকাল বুধবার সপ্তাহের চতুর্থ কার্যদিবসে সূচক বাড়লেও লেনদেন আগের দিনের তুলনায় ২১৯ কোটি টাকা কমেছে। এদিন মোট ৩৫৪টি কোম্পানির শেয়ার লেনদেন হয়। দর বেড়েছে ১২৮টির এবং কমেছে ১২৫টির। বাকি ১০১টি কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ডের শেয়ারদর অপরিবর্তিত ছিল। গতকাল ডিএসইতে লেনদেন হয় ৯০৫ কোটি ৯০ লাখ ৩৮ হাজার টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয়েছিল এক হাজার ১২৫ কোটি ৪৫ লাখ ৬১ হাজার টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। অর্থাৎ লেনদেন কমেছে ২১৯ কোটি ৫৫ লাখ ২৩ হাজার টাকা। এদিন ২১ কোটি ৯৬ লাখ ৮০ হাজার ২১৫টি শেয়ার এক লাখ ৫৪ হাজার ৯৭৭ বার হাতবদল হয়। গতকাল লেনদেনের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত উত্থান-পতনের মধ্য দিয়ে লেনদেন হয়। অন্যদিকে চিটাগং স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) একই চিত্র দেখা গেছে।

বাজার পর্যবেক্ষণে দেখা গেছে, গতকাল ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ১৯ দশমিক ৩৭ পয়েন্ট বা শূন্য দশমিক ৩৪ শতাংশ বেড়ে পাঁচ হাজার ৭১৪ দশমিক ৭৪ পয়েন্টে পৌঁছায়। ডিএসইএস বা শরিয়াহ্ সূচক শূন্য দশমিক ৪০ পয়েন্ট বা শূন্য দশমিক শূন্য তিন শতাংশ বেড়ে এক হাজার ২৭৯ দশমিক ৮৮ পয়েন্টে অবস্থান করে। অন্যদিকে ডিএস৩০ সূচক ১৫ দশমিক ৬০ পয়েন্ট বা শূন্য দশমিক ৭২ শতাংশ বেড়ে দুই হাজার ১৭৮ দশমিক ৬০ পয়েন্টে স্থির হয়। গতকাল ডিএসইর বাজার মূলধন তিন হাজার ৮৩২ কোটি ৮০ লাখ ১২ হাজার টাকা বেড়ে দাঁড়িয়েছে চার লাখ ৮২ হাজার ২৮০ কোটি ৮৪ হাজার টাকায়।

গতকাল টাকার অঙ্কে লেনদেনের শীর্ষে উঠে আসে বাংলাদেশ এক্সপোর্ট-ইমপোর্ট কোম্পানি লিমিটেড (বেক্সিমকো)। কোম্পানিটির ১৩২ কোটি ৪৪ লাখ ৩৬ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। শেয়ারটির দর তিন টাকা ২০ পয়সা কমেছে। দ্বিতীয় অবস্থানে থাকা রবি আজিয়াটা লিমিটেডের ৬৫ কোটি ৭৫ লাখ ১০ হাজার টাকার লেনদেন হয়েছে। কোম্পানিটির শেয়ারদর ৭০ পয়সা বেড়েছে। ব্রিটিশ আমেরিকান টোব্যাকো বাংলাদেশ কোম্পানি লিমিটেডের ৪৮ কোটি ২১ লাখ ৮০ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। শেয়ারদর ৮৩ টাকা ২০ পয়সা বেড়েছে। এর পরের অবস্থানগুলোয় থাকা বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডের ৪৪ কোটি ৭৮ লাখ ৮২ হাজার টাকার, লংকাবাংলা ফাইন্যান্স লিমিটেডের ৪৩ কোটি ৪১ লাখ ২২ হাজার টাকার, এনার্জিপ্যাক পাওয়ার জেনারেশন লিমিটেডের ৩৫ কোটি ৮৩ লাখ ৬৮ হাজার, স্কয়ার ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডের তিন কোটি ১৭ লাখ ৬৫ হাজার, ইউনাইটেড পাওয়ার জেনারেশন অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেডের ২৮ কোটি ৬০ লাখ ৭১ হাজার, সামিট পাওয়ার লিমিটেডের ২৫ কোটি ৭৫ লাখ ৪০ হাজার টাকার এবং সিটি ব্যাংক লিমিটেডের ১৫ কোটি সাত লাখ ৯৩ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়।

১০ শতাংশ বেড়ে দর বৃদ্ধির শীর্ষে ছিল বীকন ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড। ইস্টার্ন ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের আট দশমিক ২১ শতাংশ, ম্যাকসন্স স্পিনিং মিলস লিমিটেডের সাত দশমিক ৯২ শতাংশ, ইনভেস্টমেন্ট করপোরেশন বাংলাদেশের সাত দশমিক ৮৮ শতাংশ, হামিদ ফেব্রিকস লিমিটেডের ছয় দশমিক ২১ শতাংশ শেয়ারদর বেড়েছে। ন্যাশনাল ব্যাংক লিমিটেডের ছয় দশমিক শূন্য ৯ শতাংশ, সিটি ব্যাংক লিমিটেডের পাঁচ দশমিক ৭২ শতাংশ, ব্রিটিশ আমেরিকান টোব্যাকো বাংলাদেশ কোম্পানি লিমিটেডের পাঁচ দশমিক ৫২ শতাংশ, এস. আলম কোল্ড রোল্ড স্টিল লিমিটেডের পাঁচ দশমিক ১৮ শতাংশ এবং আলিফ ম্যানুফ্যাকচারিং কোম্পানি লিমিটেডের চার দশমিক ৮১ শতাংশ শেয়ারদর বেড়েছে।

অন্যদিকে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) প্রধান সূচক সিএসসিএক্স ৩৩ দশমিক ৩৬ পয়েন্ট বা শূন্য দশমিক ৩৩ শতাংশ বেড়ে ১০ হাজার ১৩ দশমিক ৩৭ পয়েন্টে এবং সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ৫৬ দশমিক ২৭ পয়েন্ট বা শূন্য দশমিক ৩৪ শতাংশ বেড়ে ১৬ হাজার ৫৮৮ দশমিক ৭৫ পয়েন্টে অবস্থান করে। সিএসইতে ২৪২টি কোম্পানির শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট লেনদেন হয়েছে। দর বেড়েছে ৯৩টির, কমেছে ৯৫টির এবং ৫৪টির দর অপরিবর্তিত ছিল। সিএসইতে লেনদেন হয়েছে ৪৭ কোটি ২৭ লাখ ৭৫ হাজার ১২৪ টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয়েছিল ৬৬ কোটি ৪৯ লাখ ৮৬ হাজার ৫২৬ টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। এ হিসাবে লেনদেন কমেছে ১৯ কোটি ২২ লাখ ১১ হাজার ৪০২ টাকার।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..