Print Date & Time : 9 May 2021 Sunday 2:11 pm

ডিএসইতে সূচক বাড়লেও লেনদেন কমেছে

প্রকাশ: March 2, 2021 সময়- 12:15 am

নিজস্ব প্রতিবেদক: ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) গতকাল সোমবার চলতি সপ্তাহের দ্বিতীয় কার্যদিবসে সূচকের উত্থান হয়েছে। তবে লেনদেন আগের কার্যদিবসের তুলনায় ৪৩ কোটি টাকা কমেছে। এদিন মোট ৩৫২টি কোম্পানির শেয়ার লেনদেন হয়। দর বেড়েছে ১২৯টির এবং কমেছে ১০৫টির। বাকি ১১৮টি কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ডের শেয়ারদর অপরিবর্তিত ছিল। গতকাল ডিএসইতে লেনদেন হয় ৬১৮ কোটি ৪০ হাজার টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয়েছিল ৬৬০ কোটি ৬৪ লাখ ২৭ হাজার টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। অর্থাৎ লেনদেন কমেছে ৪২ কোটি ৬৩ লাখ ৮৭ হাজার টাকা। এদিন ১৫ কোটি ৪২ লাখ ৫৮ হাজার ২২৭টি শেয়ার এক লাখ ২১ হাজার ৯৬৭ বার হাতবদল হয়। গতকাল লেনদেনের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত উত্থান পতনের চিত্র দেখা গেছে। অন্যদিকে চিটাগং স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) একই চিত্র দেখা গেছে।

বাজার পর্যবেক্ষণে দেখা গেছে, গতকাল ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ২২ দশমিক শূন্য দুই পয়েন্ট বা শূন্য দশমিক ৪০ শতাংশ বেড়ে পাঁচ হাজার ৪২৬ দশমিক ৮২ পয়েন্টে পৌঁছায়। ডিএসইএস বা শরিয়াহ্ সূচক ছয় দশমিক ২৩ পয়েন্ট বা শূন্য দশমিক ৫০ শতাংশ বেড়ে এক হাজার ২২৯ দশমিক শূন্য সাত পয়েন্টে অবস্থান করে। অন্যদিকে ডিএস৩০ সূচক ১২ দশমিক ৫৬ পয়েন্ট বা শূন্য দশমিক ৬১ শতাংশ বেড়ে দুই হাজার ৬৯ দশমিক ৩৯ পয়েন্টে স্থির হয়। গতকাল ডিএসইর বাজার মূলধন এক হাজার ৪৩৫ কোটি ৬১ লাখ ১৮ হাজার টাকা বেড়ে দাঁড়িয়েছে চার লাখ ৬৭ হাজার ১৭২ কোটি ২২ লাখ সাত হাজার টাকায়।

গতকাল টাকার অঙ্কে লেনদেনের শীর্ষে উঠে আসে বাংলাদেশ এক্সপোর্ট-ইমপোর্ট কোম্পানি (বেক্সিমকো) লিমিটেড। কোম্পানিটির ৯৮ কোটি ৬৫ লাখ ৪৭ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। শেয়ারটির দর দুই টাকা ৮০ পয়সা বেড়েছে। দ্বিতীয় অবস্থানে থাকা ব্রিটিশ আমেরিকান টোব্যাকো বাংলাদেশ কোম্পানি লিমিটেডের ৬২ কোটি ৬৩ লাখ ৭৬ হাজার টাকার লেনদেন হয়েছে। কোম্পানিটির শেয়ারদর এক টাকা ১০ পয়সা বেড়েছে। রবি আজিয়াটা লিমিটেডের ৪১ কোটি ৩১ লাখ ৩৮ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। শেয়ারদর এক টাকা ৪০ পয়সা বেড়েছে। এর পরের অবস্থানগুলোয় থাকা লংকাবাংলা ফাইন্যান্স লিমিটেডের ৩৩ কোটি চার লাখ তিন হাজার টাকার, জিবিবি পাওয়ার লিমিটেডের ২৮ কোটি ৪৩ লাখ ৭২ হাজার টাকার, বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডের ২৪ কোটি ৫৯ লাখ ৭৪ হাজার টাকার, ওরিয়ন ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডের ১৯ কোটি ৩২ লাখ ৫৬ হাজার টাকার, সামিট পাওয়ার লিমিটেডের ১৯ কোটি পাঁচ লাখ ৩৪ হাজার টাকার, স্কয়ার ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডের ১৩ কোটি ১৩ লাখ ২৮ হাজার টাকার এবং লাফার্জহোলসিম বাংলাদেশ লিমিটেডের ১৩ কোটি ৯ লাখ এক হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়।

৯ দশমিক ৯৬ শতাংশ বেড়ে দর বৃদ্ধির শীর্ষে ছিল ই-জেনারেশন লিমিটেড। জিবিবি পাওয়ার লিমিটেডের আট দশমিক ৭৪ শতাংশ, জিকিউ বলপেন ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের সাত দশমিক ৯৪ শতাংশ, তাওফিকা ফুডস অ্যান্ড এগ্রো ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের সাত দশমিক ৪৫ শতাংশ, এসএস স্টিল লিমিটেডের সাত দশমিক ৩৪ শতাংশ, এআইবিএল ফার্স্ট মিউচুয়াল ফান্ডের ছয় দশমিক ৯৭ শতাংশ, বীকন ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডের ছয় দশমিক ৭৫ শতাংশ, ওরিয়ন ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডের ছয় দশমিক ৩৬ শতাংশ, আলহাজ টেক্সটাইল লিমিটেডের ছয় দশমিক ২৫ শতাংশ এবং সাইফ পাওয়ারটেক লিমিটেডের ছয় দশমিক ১৫ শতাংশ শেয়ারদর বেড়েছে।

অন্যদিকে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) প্রধান সূচক সিএসসিএক্স ৪৯ দশমিক ৪০ পয়েন্ট বা শূন্য দশমিক ৫২ শতাংশ বেড়ে ৯ হাজার ৪৬০ দশমিক ১৪ পয়েন্টে এবং সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ৮৩ দশমিক ২২ পয়েন্ট বা শূন্য দশমিক ৫৩ শতাংশ বেড়ে ১৫ হাজার ৬৮৭ দশমিক শূন্য দুই পয়েন্টে অবস্থান করে। সিএসইতে ২২৬টি কোম্পানির শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট লেনদেন হয়েছে। দর বেড়েছে ৯৭টির, কমেছে ৫৭টির এবং ৭২টির দর অপরিবর্তিত ছিল। সিএসইতে লেনদেন হয়েছে ৩৫ কোটি ৭৯ লাখ ৪৭ হাজার ৬৮৭ টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয়েছিল ২৪ কোটি ৪২ লাখ ৩১ হাজার তিন টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। এ হিসাবে লেনদেন বেড়েছে ১১ কোটি ৩৭ লাখ ১৬ হাজার ৬৮৪ টাকার।

সিএসইতে লেনদেনের শীর্ষে উঠে আসে বাংলাদেশ বিল্ডিং সিস্টেমস লিমিটেড। কোম্পানিটির পাঁচ কোটি ছয় লাখ ৪০ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। দ্বিতীয় অবস্থানে থাকা রবি আজিয়াটা লিমিটেডের চার কোটি ৮৬ লাখ ৯০ হাজার টাকার লেনদেন হয়েছে। লংকাবাংলা ফাইন্যান্স লিমিটেডের দুই কোটি ৫১ লাখ ৫০ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়।