কোম্পানি সংবাদ পুঁজিবাজার

ডিএসইতে সূচক বাড়লেও লেনদেন কমেছে ১৪৮ কোটি টাকা

নিজস্ব প্রতিবেদক: ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) টানা দুদিন সূচকের পতনের পর গতকাল সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসে সূচক বেড়েছে। তবে লেনদেন আগের কার্যদিবসের তুলনায় প্রায় ১৪৮ কোটি ৬৭ লাখ ৫ হাজার টাকা কমেছে। গতকাল ডিএসইতে লেনদেন হয় ৯৬৩ কোটি ৩৫ লাখ ৯৭ হাজার টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয়েছিল এক হাজার ১১২ কোটি ৩ লাখ ২ হাজার টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। এদিন লেনদেনের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত বাজারের উত্থান দেখা যায়। অন্যদিকে চিটাগং স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) একই চিত্র দেখা গেছে। বাজার পর্যবেক্ষণে দেখা গেছে, গতকাল ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ৭ দশমিক ৫৭ পয়েন্ট বা শূন্য দশমিক ১৫ শতাংশ বেড়ে চার হাজার ৮৪৬ দশমিক ১০ পয়েন্টে পৌঁছায়। ডিএসইএস বা শরিয়াহ্ সূচক ৪ দশমিক ৫২ পয়েন্ট বা শূন্য দশমিক ৪১ শতাংশ বেড়ে এক হাজার ৯৮ দশমিক ৮০ পয়েন্টে অবস্থান করে। অন্যদিকে ডিএস৩০ সূচক ১৪ দশমিক ৬৩ পয়েন্ট বা শূন্য দশমিক ৮৭ শতাংশ বেড়ে এক হাজার ৬৮০ দশমিক ১৩ পয়েন্টে স্থির হয়। এদিন ৩৭ কোটি ৪৫ লাখ ৯৫ হাজার ৭৯টি শেয়ার এক লাখ ৭৬ হাজার ৯৮০ বার হাতবদল হয়।

এদিন মোট ৩৫৪টি কোম্পানির শেয়ার লেনদেন হয়। দর বেড়েছে ১৫৪টির এবং কমেছে ১৩৫টির। বাকি ৬৫টি কোম্পানির শেয়ারদর অপরিবর্তিত ছিল। গতকাল ডিএসইর বাজার মূলধন ২ হাজার ২৬৪ কোটি ৪৪ লাখ ৫৮ হাজার টাকা বেড়ে দাঁড়িয়েছে তিন লাখ ৯১ হাজার ২৫১ কোটি ৫০ লাখ ১২ হাজার টাকায়।

গতকাল টাকার অঙ্কে লেনদেনের শীর্ষে উঠে আসে বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড। কোম্পানিটির ৬৩ কোটি ২৯ লাখ ৭৭ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। শেয়ারটির দর ১০ পয়সা কমেছে। দ্বিতীয় অবস্থানে থাকা প্যারামাউন্ট ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের ৩৫ কোটি ৬৫ লাখ ৯৩ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। শেয়ারদর ৭০ পয়সা বেড়েছে। প্রভাতী ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের ৩৫ কোটি ৬১ লাখ ২০ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। কোম্পানিটির শেয়ারদর ২ টাকা ৫০ পয়সা কমেছে। এরপরের অবস্থানগুলোয় থাকা গ্লোবাল ইন্স্যুরেন্স লিমিটেডের ২৯ কোটি ৭০ লাখ ৮১ হাজার টাকার, এক্সপ্রেস ইন্স্যুরেন্স লিমিটেডের ২৫ কোটি ৮৯ লাখ ৪২ হাজার টাকার, পাইওনিয়র ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের ২৪ কোটি ৪ লাখ ৫৫ হাজার টাকার লেনদেন হয়েছে। বাংলাদেশ এক্সপোর্ট ইমপোর্ট কোম্পানি লিমিটেডের ২০ কোটি ৬৮ লাখ, এশিয়া ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের ২০ কোটি ৩৪ লাখ ৩৭ হাজার, এশিয়া প্যাসিফিক জেনারেল ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের ১৮ কোটি ১৭ লাখ ৩ হাজার এবং ইউনাইটেড পাওয়ার জেনারেশন অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেডের ১৬ কোটি ৫৯ লাখ ২৩ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়।

১১ দশমিক ২৭ শতাংশ বেড়ে দরবৃদ্ধির শীর্ষে ছিল হাওয়েল টেক্সটাইল লিমিটেড। খান বাহাদুর পিপি ওভেন ব্যাগ ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের ১০ দশমিক ২৫ শতাংশ, মিরাকল ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের ১০ শতাংশ, ইনফরমেশন সার্ভিসেস নেটওয়ার্ক লিমিটেডের ৯ দশমিক ৯১ শতাংশ, কাট্টলী টেক্সটাইল লিমিটেডের ৯ দশমিক ৯০ শতাংশ, দি পেনিনসুলা চিটাগং লিমিটেডের ৯ দশমিক ৮০ শতাংশ, সামিট অ্যালায়েন্স পোর্ট লিমিটেডের ৯ দশমিক ৭৯ শতাংশ শেয়ারদর বেড়েছে।

অন্যদিকে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) প্রধান সূচক সিএসসিএক্স ১৪ দশমিক ৯১ পয়েন্ট বা শূন্য দশমিক ১৭ শতাংশ বেড়ে আট হাজার ৩১৯ দশমিক ৭৪ পয়েন্টে এবং সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ২৮ পয়েন্ট বা শূন্য দশমিক ২০ শতাংশ কমে ১৩ হাজার ৮২৪ দশমিক ১৩ পয়েন্টে অবস্থান করে। সিএসইতে ২৫৬টি কোম্পানির শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট লেনদেন হয়েছে। দর বেড়েছে ১০৫টির, কমেছে ১০১টির এবং ৫০টির দর অপরিবর্তিত ছিল। সিএসইতে লেনদেন হয়েছে ৩৫ কোটি ৪৪ লাখ ৬৩ হাজার ৫২৮ টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয়েছিল ২৮ কোটি ৩৩ লাখ ৯৭ হাজার ৪৮১ টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। এ হিসাবে লেনদেন বেড়েছে ৭ কোটি ১০ লাখ ৬৬ হাজার ৪৭ টাকা।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..