কোম্পানি সংবাদ পুঁজিবাজার

ডিএসইতে ৭০% কোম্পানির দরপতনে সূচক নেতিবাচক

নিজস্ব প্রতিবেদক:ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) গতকাল ৭০ শতাংশ কোম্পানির দরপতন হয়। এতে করে ডিএসইএক্স সূচকের ২০ পয়েন্ট পতন হয়। বিক্রির চাপে লেনদেন সামান্য বেড়েছে। গতকাল দর বেড়েছে মাত্র ১৮ শতাংশ কোম্পানির। লেনদেনের শুরুতে সূচকের উঠানামা থাকলেও দুপুর ১২টার সূচক বিক্রির চাপ বাড়তে থাকে ফলে সূচকও নেমে যায়। বেলা ২টার পর একবার ওঠার চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়। শেষ পর্যন্ত প্রধান সূচক ২১ পয়েন্ট নেতিবাচক অবস্থানে চলে যায়। চিটাগং স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সূচক ও শেয়ারদর কমার পাশাপাশি লেনদেনও কমেছে।

বাজার পর্যবেক্ষণে দেখা গেছে, গতকাল ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ২০ দশমিক ৬৭ পয়েন্ট বা দশমিক ৪৩ শতাংশ কমে চার হাজার ৭৬১ দশমিক ৪২ পয়েন্টে অবস্থান করে।

ডিএসইএস বা শরিয়াহ্ সূচক ৯ দশমিক ৬৮ পয়েন্ট বা দশমিক ৮৮ শতাংশ কমে এক হাজার ৮৯ দশমিক ৫২ পয়েন্টে অবস্থান করে। আর ডিএস৩০ সূচক ১০ দশমিক ৪৫ পয়েন্ট বা দশমিক ৬২ শতাংশ কমে এক হাজার ৬৭৫ দশমিক ৪৯ পয়েন্টে অবস্থান করে। গতকাল ডিএসইর বাজার মূলধন এক হাজার ২৯০ কোটি ৯৫ লাখ টাকা কমে দাঁড়িয়েছে তিন লাখ ৫৮ হাজার ৮৮৩ কোটি ৭১ লাখ ১৮ হাজার টাকায়। ডিএসইতে লেনদেন হয় ৩৫০ কোটি ৪৯ লাখ ১৮ হাজার টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয়েছিল ৩১২ কোটি ৬৩ লাখ ৪৮ হাজার টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। এ হিসেবে লেনদেন বেড়েছে ৩৭ কোটি ৮৬ লাখ টাকা। এদিন ১১ কোটি ৫৮ লাখ ৮৮ হাজার ৭৮৭টি শেয়ার এক লাখ চার হাজার ৮২৫ বার হাতবদল হয়। লেনদেন হওয়া ৩৫৪ কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ৬৩টির, কমেছে ২৫০টির এবং অপরিবর্তিত ছিল ৪১টির দর।

গতকাল টাকার অঙ্কে লেনদেনের শীর্ষে উঠে আসে ইউনাইটেড পাওয়ার। কোম্পানিটির ১২ কোটি ৮২ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। দর বেড়েছে ২১ টাকা ৯০ পয়সা। এরপরে ন্যাশনাল টিউবসের ১১ কোটি ৯৭ লাখ টাকা লেনদেন হয়। দর কমেছে ১৩ টাকা ৮০ পয়সা। প্রিমিয়ার ব্যাংকের ১০ কোটি ৯৯ লাখ টাকা লেনদেন হয়। দর বেড়েছে ৩০ পয়সা। ওয়াটা কেমিক্যালের আট কোটি ৮৬ লাখ টাকা লেনদেন হয়, দর কমেছে ৫৫ টাকা ৪০ পয়সা। স্কয়ার ফার্মার আট কোটি ১৭ লাখ টাকা লেনদেন হয়, দর কমেছে পাঁচ টাকা ৮০ পয়সা। এছাড়া মুন্নু জুট স্টাফলার্সের সাত কোটি ৯ লাখ টাকা, প্যারামাউন্ট ইন্সুরেন্সের ছয় কোটি ২৬ লাখ টাকা লেনদেন হয়। কন্টিনেন্টাল ইন্স্যুরেন্সের ছয় কোটি ২৪ লাখ টাকার, সামিট পাওয়ারের পাঁচ কোটি ৬৪ লাখ টাকা, ইস্টার্ন ইন্স্যুরেন্সের পাঁচ কোটি ৫৫ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়।

সাত দশমিক ২০ শতাংশ বেড়ে দর বৃদ্ধির শীর্ষে উঠে আসে ইউনাইটেড পাওয়ার। ট্রাস্ট ব্যাংকের দর ছয় দশমিক ১৮ শতাংশ, ইস্টার্ন ইন্স্যুরেন্সের দর পাঁচ দশমিক ৯৬ শতাংশ, শাহাজালাল ব্যাংকের দর চার দশমিক ৬৮ শতাংশ, প্যারামাউন্ট ইন্স্যুরেন্সের দর চার দশমিক ৫৪ শতাংশ, মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংকের দর চার দশমিক ৩৭ শতাংশ, পূবালী ব্যাংকের দর চার শতাংশ, ফার্স্ট সিকিউরিটি ব্যাংকের দর তিন দশমিক শূন্য ৯ শতাংশ, আইএফআইসি ব্যাংকের তিন শতাংশ, গ্লাক্সোস্মিথক্লাইনের দর দুই দশমিক ৮৮ শতাংশ বেড়েছে।

৯ দশমিক ৬৯ শতাংশ কমে দরপতনের শীর্ষে উঠে আসে সিভিও পেট্রোকেমিক্যাল। মুন্নু সিরামিকের দর ৯ দশমিক ৪২ শতাংশ, সিলভা ফার্মার দর ৯ দশমিক ৪১ শতাংশ, জিকিউ বলপেনের দর ৯ দশমিক ২৬ শতাংশ, প্রগ্রেসিভ লাইফের দর ৯ শতাংশ, ভিএফএস থ্রেড ডায়িংয়ের দর আট দশমিক ৯২ শতাংশ, কাট্টলী টেক্সটাইলের দর আট দশমিক ৫২ শতাংশ, কে অ্যান্ড কিউ’র দর আট দশমিক ২৭ শতাংশ, খান ব্রাদার্স পিপির দর আট দশমিক ২৭ শতাংশ, মিরাকল ইন্ডাস্ট্রিজের দর সাত দশমিক ৯৭ শতাংশ কমেছে।

সিএসইতে গতকাল সিএসসিএক্স মূল্যসূচক ৩৫ দশমিক ১০ পয়েন্ট বা দশমিক ৩৯ শতাংশ কমে আট হাজার ৮০৫ দশমিক ৩৭ পয়েন্টে এবং সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ৫৯ দশমিক ৯৪ পয়েন্ট বা দশমিক ৪১ শতাংশ কমে ১৪ হাজার ৪৮২ পয়েন্টে অবস্থান করে। গতকাল সর্বমোট ২৫৫টি কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ডের শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়। এর মধ্যে দর বেড়েছে ৬৩টির, কমেছে ১৬৩টির এবং অপরিবর্তিত ছিল ২৯টির দর।

সিএসইতে এদিন ২০ কোটি ৯১ লাখ ৭১ হাজার ৫২৩ টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট লেনদেন হয়। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয়েছিল ৫১ কোটি ৬০ লাখ ৭৫ হাজার ৮৬৩ টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। এ হিসাবে লেনদেন কমেছে ৩০ কোটি ৬৯ লাখ টাকা। সিএসইতে লেনদেনের শীর্ষে অবস্থান করে সিলকো ফার্মা। কোম্পানিটির সাত কোটি ২৫ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। ডরিন পাওয়ারের এক কোটি ৬১ লাখ টাকার, জেএমআই সিরিঞ্জের ৫৯ লাখ টাকার, প্রিমিয়ার ব্যাংকের ৫৬ লাখ টাকার, ভিএফএস থ্রেডের ৪৯ লাখ টাকার, আইএফআইসি ব্যাংকের ৪৮ লাখ টাকার, কন্টিনেন্টাল ইন্স্যুরেন্সের ৩১ লাখ টাকার, বিএসআরএম লিমিটেডের ২৯ লাখ টাকার, এনবিএলের ২৭ লাখ টাকার, বেক্সিমকোর সাড়ে ২৬ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়।

সর্বশেষ..