পুঁজিবাজার বাজার বিশ্লেষণ

ডিএসইর গড় টার্নওভার ৯১৩ কোটি টাকা: সিএসইতে টার্নওভার ছিল ২৫৪ কোটি টাকা

 

নিজস্ব প্রতিবেদক: ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) গত সপ্তাহে দৈনিক গড় টার্নওভার ছিল ৯১৩ কোটি ১৪ লাখ টাকা। এটি আগের সপ্তাহের চেয়ে ৪ দশমিক ৯৪ শতাংশ বেশি। আগের সপ্তাহে গড় টার্নওভার ছিল ৮৭০ কোটি ১২ লাখ টাকা। তবে ঢাকা ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) মোট টার্নওভারের পরিমাণ সামান্য কমেছে।

সাপ্তাহিক বাজার পর্যালোচনায় দেখা গেছে, গত সপ্তাহে ডিএসইতে ৩৩১টি কোম্পানির শেয়ার লেনদেন হয়েছে। এর মধ্যে বেড়েছে ১২৭টির, কমেছে ১৭২টির এবং অপরিবর্তিত ছিল ৩০টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ারদর।

অন্যদিকে সিএসইতে ২৮৩টি কোম্পানির শেয়ার লেনদেন হয়েছে। এর মধ্যে বেড়েছে ৯৯টি, কমেছে ১৬০টি এবং অপরিবর্তিত ছিল ২৪টি কোম্পানির শেয়ারদর।

ডিএসইতে গত সপ্তাহে টার্নওভার ছিল তিন হাজার ৬৫২ কোটি ৫৬ লাখ ১৮ হাজার টাকা, যা আগের সপ্তাহের চেয়ে ৬৯৮ কোটি টাকা বা ১৬ দশমিক শূন্য ৫ শতাংশ কম। আগের সপ্তাহের টার্নওভার ছিল চার হাজার ৩৫০ কোটি ৬২ লাখ ৮৯ হাজার টাকা। ডিএসইতে গত সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবস রোববার বাজার মূলধন ছিল তিন লাখ ৩৬ হাজার ৬৮৬ কোটি টাকা। শেষ কার্যদিবসে এটি ছিল তিন লাখ ৩৭ হাজার ৫৬৪ কোটি টাকা। অর্থাৎ এক সপ্তাহের ব্যবধানে বাজার মূলধন বেড়েছে দশমিক ২৬ শতাংশ। ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স আগের সপ্তাহের চেয়ে ৩২ পয়েন্ট বেড়ে গত সপ্তাহের শেষ দিন চার হাজার ৯২৫ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে এবং শরিয়াহ সূচক ডিএসইএস ১০ পয়েন্ট  বেড়ে ১ হাজার ১৭২ পয়েন্ট এবং ডিএস ৩০ সূচক ১০ পয়েন্টে বেড়ে ১ হাজার ৮০৬ পয়েন্টে অবস্থান করছে। সিএসইতে এক সপ্তাহে সার্বিক সূচক সিএসসিএক্স বেড়েছে দশমিক ১৩ শতাংশ। এছাড়া সিএএসপিআই সূচক বেড়েছে দশমিক ১৯ শতাংশ, সিএসই৫০ সূচক দশমিক ২৪ শতাংশ এবং সিএসআই শরিয়াহ সূচক দশমিক ৪৩ শতাংশ। তবে সিএসই৩০ সূচক কমেছে দশমিক ১৪ শতাংশ। সিএসইতে গত সপ্তাহে টার্নওভার ছিল ২৫৪ কোটি টাকা, যা আগের সপ্তাহের চেয়ে সামান্য কম। আগের সপ্তাহে টার্নওভার ছিল ২৬১ কোটি টাকা।

গত সপ্তাহে ডিএসইর শীর্ষ দশ তালিকায় উঠে আসা কোম্পানির মধ্যে ছিল বাংলাদেশ বিল্ডিং সিস্টেমস লিমিটেড, গোল্ডেন হার্ভেস্ট এগ্রো ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড, লাফার্জ সুরমা সিমেন্ট লিমিটেড, রতনপুর স্টিল রি-রোলিং মিলস লিমিটেড, লংকাবাংলা ফাইন্যান্স লিমিটেড, ইসলামিক ফাইন্যান্স অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেড, ইউনিয়ন ক্যাপিটাল লিমিটেড, জেএমআই সিরিঞ্জ অ্যান্ড মেডিক্যাল ডিভাইস লিমিটেড, ইস্টার্ন লুব্রিক্যান্টস লিমিটেড ও ন্যাশনাল হাউজিং ফাইন্যান্স অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেড। অন্যদিকে ডিএসইতে শীর্ষ ১০ লোকসানি তালিকায় থাকা কোম্পানি হলো মডার্ন ডায়িং অ্যান্ড স্ক্রিন প্রিন্টিং লিমিটেড, বেক্সিমকো সিনথেটিকস লিমিটেড, দুলামিয়া কটন স্পিনিং মিলস লিমিটেড, আমরা টেকনোলজিস লিমিটেড, জিলবাংলা সুগার মিলস লিমিটেড, আরগন ডেনিমস লিমিটেড, ইভিন্স টেক্সটাইল লিমিটেড, প্যারামাউন্ট টেক্সটাইল লিমিটেড, স্ট্যান্ডার্ড ইন্স্যুরেন্স লিমিটেড ও তসরিফা ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড। সিএসইতে সাপ্তাহিক টপ টেন গেইনার তালিকায় থাকা কোম্পানি ছিল বাংলাদেশ বিল্ডিং সিস্টেমস লিমিটেড, আরএন স্পিনিং মিলস লিমিটেড, লাফার্জ সুরমা সিমেন্ট লিমিটেড, গোল্ডেন হার্ভেস্ট এগ্রো ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড, রতনপুর স্টিল রি-রোলিং মিলস লিমিটেড, লংকাবাংলা ফাইন্যান্স লিমিটেড, এইচআর টেক্সটাইল মিলস লিমিটেড, জেএমআই সিরিঞ্জ অ্যান্ড মেডিক্যাল ডিভাইস লিমিটেড, ফাইন ফুড ও সমতা লেদার কমপ্লেক্স লিমিটেড। অন্যদিকে শীর্ষ ১০ লোকসানি কোম্পানির তালিকায় থাকা  কোম্পানিগুলো হলো ইনফরমেশন সার্ভিসেস নেটওয়ার্ক, স্ট্যান্ডার্ড সিরামিক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড, এশিয়া প্যাসিফিক জেনারেল ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেড, আরগন ডেনিমস লিমিটেড, তসরিফা ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড, আমরা টেকনোলজিস লিমিটেড, সুহƒদ ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড, ম্যারিকো বাংলাদেশ লিমিটেড,  নর্দার্ন জেনারেল ইন্স্যুরেন্স ও ইভিন্স টেক্সটাইলস লিমিটেড।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..