প্রচ্ছদ প্রথম পাতা বাজার বিশ্লেষণ

ডিএসইর মোট লেনদেনের ১০% ইউনাইটেড পাওয়ারের

রুবাইয়াত রিক্তা: একদিন সংশোধনের পর গতকাল পুঁজিবাজারে ইতিবাচক গতিতে লেনদেন হয়েছে। সূচক ও শেয়ারদর ইতিবাচক ছিল। লেনদেন না বাড়লেও শেয়ার কেনার প্রবণতা দেখা গেছে লেনদেনের পুরো সময়জুড়ে। মূল লেনদেন চার খাতেই সীমাবদ্ধ ছিল। এর মধ্যে ১৬ শতাংশ লেনদেন হয় জ্বালানি ও বিদ্যুৎ খাতে। ১৫ শতাংশ করে লেনদেন হয় ওষুধ ও রসায়ন এবং প্রকৌশল খাতে। এছাড়া বস্ত্র খাতে লেনদেন হয় ১২ শতাংশ। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের মোট লেনদেনের প্রায় ৬০ শতাংশই ছিল এ চার খাতে। এছাড়া গতকাল ডিএসইর লেনদেনে একক নেতৃত্ব দেয় ইউনাইটেড পাওয়ার। কোম্পানিটির এককভাবে প্রায় ৪৭ কোটি টাকা লেনদেন হয়। যা ডিএসইর মোট লেনদেনের ১০ শতাংশ। দর বেড়েছে ১০ টাকা ১০ পয়সা। অন্যদিকে দর বৃদ্ধিতে এগিয়ে ছিল আর্থিক খাত।
জ্বালানি ও বিদ্যুৎ খাতে ৫২ শতাংশ কোম্পানির শেয়ারদর ইতিবাচক ছিল। খুলনা পাওয়ারের সাড়ে ৯ কোটি টাকা লেনদেন হয়, দর বেড়েছে ৫০ পয়সা। ওষুধ ও রসায়ন খাতে সাড়ে ৬২ শতাংশ শেয়ারদর বেড়েছে। ওরিয়ন ইনফিউশনের সোয়া ১৩ কোটি টাকা লেনদেন হয়, দর বেড়েছে দুই টাকা ৭০ পয়সা। জেএমআই সিরিঞ্জের সাড়ে আট কোটি টাকা লেনদেন হয়, দর কমেছে সাড়ে সাত টাকা। সিলকো ফার্মার পৌনে আট কোটি টাকা লেনদেন হয়, দর বেড়েছে ৪০ পয়সা। প্রকৌশল খাতে ৫৪ শতাংশ কোম্পানির দর বেড়েছে। প্রায় সাত শতাংশ বেড়ে ন্যাশনাল পলিমার ও সাড়ে পাঁচ শতাংশ বেড়ে রেনউইক যজ্ঞেশ্বর দর বৃদ্ধির শীর্ষ দশের তালিকায় অবস্থান করে। ন্যাশনাল টিউবসের সাড়ে ১৬ কোটি টাকা লেনদেন হয়, দর বেড়েছে চার টাকা ৬০ পয়সা। বস্ত্র খাতে লেনদেন হয় ১২ শতাংশ। এ খাতে ৫৮ শতাংশ কোম্পানির দর বেড়েছে। ৯ শতাংশ বেড়ে আরএন স্পিনিং, সাড়ে আট শতাংশ বেড়ে জেনারেশন নেক্সট, সোয়া আট শতাংশ বেড়ে ফ্যামিলি টেক্সটাইল দর বৃদ্ধির শীর্ষ দশের তালিকায় উঠে আসে। বিবিধ খাতে লেনদেন হয় মাত্র আট শতাংশ। এ খাতে দর বেড়েছে ৫৪ শতাংশ কোম্পানির। প্রায় ১৯ কোটি টাকা লেনদেন হয়ে বেক্সিমকো লিমিটেড লেনদেনের তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে এবং এক টাকা ৯০ পয়সা বেড়ে দর বৃদ্ধির শীর্ষে উঠে আসে। বাংলাদেশ শিপিং করপোরেশনের সোয়া ১০ কোটি টাকা লেনদেন হয়, দর বেড়েছে ৫০ পয়সা। আর্থিক খাতে ৭২ শতাংশ কোম্পানির দর বেড়েছে। দর বৃদ্ধির শীর্ষ দশের তালিকায় অবস্থান করা ইন্টারন্যাশনাল লিজিং ও ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিসেসের দর বেড়েছে সাড়ে ছয় শতাংশ, প্রিমিয়ার লিজিংয়ের পৌনে ছয় শতাংশ, ফাস ফাইন্যান্সের দর সাড়ে পাঁচ শতাংশ বেড়েছে। টেলিযোগাযোগ খাত শতভাগ নেতিবাচক ছিল। চামড়া শিল্প ও কাগজ ও মুদ্রণ খাতে কোনো কোম্পানির দর বাড়েনি।

সর্বশেষ..