প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

ড্রাগন সোয়েটারের ঋণমান‘এ মাইনাস’ ও ‘এসটি-২’

নিজস্ব প্রতিবেদক: পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত বস্ত্র খাতের কোম্পানি ড্রাগন সোয়েটার অ্যান্ড স্পিনিং লিমিটেডের ঋণমান অবস্থান (ক্রেডিট রেটিং) নির্ণয় করেছে ন্যাশনাল ক্রেডিট রেটিংস লিমিটেড (এনসিআর)। আর ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) মাধ্যমে প্রতিষ্ঠানটি তাদের স্টেকহোল্ডারদের উদ্দেশে প্রাপ্ত রেটিং প্রকাশ করেছে।

প্রাপ্ত তথ্যমতে, কোম্পানিটি দীর্ঘমেয়াদে রেটিং পেয়েছে ‘এ মাইনাস’ আর স্বল্পমেয়াদে পেয়েছে ‘এসটি-২’। ২০২১ সালের ৩০ জুন সমাপ্ত হিসাববছরের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন এবং অন্যান্য প্রাসঙ্গিক তথ্যের আলোকে এ মূল্যায়ন করা হয়েছে কোম্পানিটিকে।

২০২১ সালের ৩০ জুন সমাপ্ত হিসাববছরের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা করে বিনিয়োগকারীদের জন্য ৫ শতাংশ নগদ (উদ্যোক্তা ও পরিচালকরা ব্যতীত শুধু সাধারণ বিনিয়োগকারীদের জন্য) এবং ৫ শতাংশ বোনাস (সব বিনিয়োগকারীদের) লভ্যাংশ দিয়েছে। ২০২১ সালের ৩০ জুন সমাপ্ত হিসাববছরে কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে এক টাকা ২২ পয়সা এবং ৩০ জুন শেয়ারপ্রতি নেট সম্পদমূল্য (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ১৭ টাকা ৭২ পয়সা। এছাড়া আলোচিত সময়ে শেয়ারপ্রতি নগদ অর্থপ্রবাহ হয়েছে ৪৫ পয়সা।

এর আগে ২০২০ সালের ৩০ জুন সমাপ্ত হিসাববছরে ১৫ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ দিয়েছিল। আলোচিত সময়ে শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে এক টাকা ২৩ পয়সা এবং শেয়ারপ্রতি নেট সম্পদমূল্য (এনএভি) ছিল ১৮ টাকা ৯৮ পয়সা। ওই সময় কর-পরবর্তী মুনাফা করেছে ২১ কোটি ৩৯ লাখ ৫০ হাজার টাকা।

কোম্পানিটি ২০১৬ সালে তালিকাভুক্ত হয়ে বর্তমানে ‘এ’ ক্যাটেগরিতে অবস্থান করছে। কোম্পানির ৮০০ কোটি টাকা অনুমোদিত মূলধনের বিপরীতে পরিশোধিত মূলধন ২১০ কোটি ৭৯ লাখ ৩০ হাজার টাকা। রিজার্ভের পরিমাণ ১৪৪ কোটি ৯৮ লাখ টাকা। কোম্পানির মোট ২১ কোটি সাত লাখ ৯৩ হাজার ২৭৫ শেয়ারের মধ্যে উদ্যোক্তা ও পরিচালকদের ৩২ দশমিক ১৭ শতাংশ, প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের কাছে ১৫ দশমিক ৮০ শতাংশ ও বাকি ৫২ দশমিক ০৩ শতাংশ শেয়ার রয়েছে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছে।

এদিকে গতকাল ডিএসইতে কোম্পানিটির শেয়ারদর ৫ দশমিক ২৯ শতাংশ বা ৯০ পয়সা বেড়ে প্রতিটি শেয়ার সর্বশেষ ১৭ টাকা ৯০ পয়সায় হাতবদল হয়, যার সমাপনী দরও ছিল একই। দিনজুড়ে ১৯ লাখ ৯৬ হাজার ৪৬৮টি শেয়ার ৯০৩ বার হাতবদল হয়, যার বাজারদর তিন কোটি ৫৫ লাখ টাকা। দিনভর শেয়ারদর সর্বনি¤œ ১৭ টাকা ৪০ পয়সা থেকে সর্বোচ্চ ১৮ টাকা ১০ পয়সায় হাতবদল হয়। গত এক বছরে শেয়ারদর ১১ টাকা ৭০ পয়সা থেকে ২৪ টাকা ৮০ পয়সার মধ্যে ওঠানামা করে।