আজকের পত্রিকা খবর বাণিজ্য সংবাদ সর্বশেষ সংবাদ

ঢাকায় নিত্যপ্রয়োজনীয় সামগ্রী পৌঁছে দেবে উবার ইটস

শেয়ার বিজ ডেস্ক: দেশে কোভিড-১৯ -এর বিস্তার রোধে এবং সরকারকে এক্ষেত্রে সহযোগিতা করতে দেশের গ্রোসারি চেইন ও ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের সাথে অংশীদারীত্ব করে গ্রাহকদের দোরগোড়ায় নিত্যপ্রয়োজনীয় সামগ্রী পৌঁছে দেবে উবার।

সকল রেস্ট্রুরেন্ট ও শপিং সেন্টার অস্থায়ীভাবে বন্ধ থাকায় উবার ইটস সবধরনের স্বাস্থ্য সম্পর্কিত বিধিনিষেধ ও ট্রাফিক আইন মেনে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য একই দিনে গ্রাহকদের কাছে পৌঁছে দেবে। মানুষ যাতে সরকারি নির্দেশনা মেনে নিরাপদে বাসায় থেকে তাদের প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র পেতে পারেন সেটিই এই সেবার উদ্দেশ্য।

উবার ইটসের বাংলাদেশ লিড মিশা আলী বলেন, “উবার ইটসের মাধ্যমে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য সরবরাহের জন্য গ্রোসারি চেইন এবং ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের সাথে আমাদের এই অংশীদারিত্ব বাংলাদেশের সাপ্লাই চেইন ব্যবস্থাকে সচল রাখবে এবং কোভিড-১৯ রোধে চলমান দেশব্যাপী লকডাউনকে কার্যকর করতে সহায়তা করবে।”

তিনি আরও বলেন, “এই জরুরী মূহূর্তে আমরা গ্রাহকদের চাহিদা পূরণ করার মাধ্যমে সরকারকে সহায়তা করতে পেরে অত্যন্ত আনন্দিত। এই প্রচেষ্টা কুরিয়ার পার্টনারদের আয়ের সুযোগ করে দেয়ার পাশাপাশি স্থানীয় রেস্ট্রুরেন্ট ও ব্যবসাগুলোকে সচল রাখতেও সহায়তা করবে।”

নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের চাহিদা পূরণে সরকারের সাথে অংশীদারিত্বে উবার তার উন্নত প্রযুক্তি ও ডেলিভারি পার্টনারদের সাথে বিদ্যমান বিস্তৃত নেটওয়ার্ককে কাজে লাগিয়ে নগরবাসীর জীবন রক্ষায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে।

এক নজরে উবার ইটস

উবার ইটস তার গ্রাহকদের বিভিন্ন স্থানীয় রেস্টুরেন্ট খুঁজে পেতে ও আবিষ্কার করতে সাহায্য করে এবং মাত্র একটি বাটনে ক্লিক করে দ্রুত ও নির্ভরযোগ্য মাধ্যমে গ্রাহকরা এখন ঘরে বসেই পেয়ে যানতার পছন্দের খাবার। সাড়ে তিন বছর আগে যাত্রা শুরুর পর থেকে উবার টেকনোলজি ও লজিস্টিক এক্সপার্টিজ ব্যবহার করে উবার ইটস এখন সারা বিশ্বের ৫০০টিরও বেশি শহরে গড়ে ৩০ মিনিটের মধ্যে খাবার সরবরাহ করছে। আমরা বিশ্বাস করি, মোট বুকিং-এর ক্ষেত্রে চীনের বাইরেও বিশ্বের অন্যতম বৃহৎ ফুড ডেলিভারি প্ল্যাটফর্ম হিসেবে নিজের স্থান করে নিয়েছে উবার ইটস। বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকাতে উবার ইটসের যাত্রা শুরু হয় ২০১৯ সালের এপ্রিলে এবং বর্তমানে শহরের বিভিন্ন এলাকায় এর কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে। বিজ্ঞপ্তি

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..