বিশ্ব প্রযুক্তি

তথ্য ফাঁসের ঘটনা জেনেও সতর্ক করেনি ফেসবুক

শেয়ার বিজ ডেস্ক: বিপুলসংখ্যক গ্রাহকের তথ্য ফাঁসের প্রেক্ষিতে ঝুঁকির কথা জেনেও সতর্ক করতে কোনো পদক্ষেপ গ্রহণ করেনি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুক কর্তৃপক্ষ। ২০১৮ সালের ওই তথ্য ফাঁসের ঘটনায় আইনি জটিলতার মুখোমুখি হতে হচ্ছে ফেসবুককে। গত বৃহস্পতিবার এ বিষয়ে আদালতে দায়ের করে তাতে বলা হয়েছে, তথ্যের নিরাপত্তা নিয়ে ঝুঁকির কথা জানলেও গ্রাহকদের সতর্ক করেনি। এতে দোষী প্রমাণিত হলে বিপুল পরিমাণ অর্থ জরিমানা গুনতে হতে পারে ফেসবুককে। খবর: রয়টার্স।
সিঙ্গেল সাইন ইনের মাধ্যমে তৃতীয় পক্ষের সামাজিক যোগাযোগ অ্যাপ ও সেবার মাধ্যমে ফেসবুকের গ্রাহকদের তথ্য ফাঁস হয়। আদালতে মামলার মাধ্যমে ফেসবুকের বিরুদ্ধে একাধিক আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হতে পারে। গত সেপ্টেম্বর বিশাল ওই নিরাপত্তা ত্রুটির কারণে প্রায় দুই কোটি ৯০ লাখ গ্রাহকের লগইন তথ্য হাতিয়ে নেয় চক্রগুলো।
যুক্তরাষ্ট্রের সান ফ্রান্সিসকোর নর্দার্ন ডিস্ট্রিক্ট কোর্টে দায়ের করা অভিযোগে বলা হয়েছে, ওই নিরাপত্তা দুর্বলতার বিষয়ে ফেসবুক সব জানত। কিন্তু বছরের পর বছর ধরে তারা ওই দুর্বলতা ঠিক করেনি। আরও গুরুতর ব্যাপার হলো, নিরাপত্তা ঝুঁকি থেকে নিজেদের কর্মীদের রক্ষা করতে পদক্ষেপ নেয় ফেসবুক। তবে গ্রাহকদের এ বিষয়ে কিছুই জানানো হয়নি। যদিও এ বিষয়ে এখনও কোনো মন্তব্য করতে রাজি হয়নি ফেসবুক। এ ধরনের মামলায় শাস্তি হিসেবে মোটা অঙ্কের জরিমানা গুনতে হতে পারে ফেসবুককে।
তথ্য ফাঁসের মামলায় গত জানুয়ারিতে বিচারপতি উইলিয়াম অ্যালসাপ বলেছিলেন, এ ঘটনার ব্যাপ্তি খুঁজে বের করতে তিনি প্রয়োজনে কঠোর তদন্ত করার অনুমোদন দিতে পারেন।
তবে তথ্য ফাঁসের ওই ঘটনা সম্পর্কে এখন পর্যন্ত খুব সামান্যই তথ্য প্রকাশ করেছে ফেসবুক। ওই ঘটনায় গ্রাহকদের জš§ তারিখ, কর্মস্থল, শিক্ষাগত তথ্য, ধর্ম, গ্রাহক কোনো ধরনের ডিভাইস ব্যবহার করেন, সাম্প্রতিক লগ ইন ও স্থানের তথ্য বেগাত হয়। প্রায় এক কোটি ৪০ লাখ গ্রাহকের তথ্য এভাবে চুরি হয়।
এছাড়া আরও অন্তত দেড় কোটি গ্রাহকের নাম ও তার যোগাযোগের ঠিকানা বেহাত হয়। এসব গ্রাহকের মধ্যে চার লাখ অ্যাকাউন্টের বন্ধু তালিকা ও গ্রুপের তথ্যও তৃতীয় পক্ষের হাতে চলে যায়। তবে ফেসবুক বলেছে, তারা ব্যক্তিগত বার্তা কিংবা আর্থিক কোনো তথ্য চুরি করতে পারেনি। এছাড়া অন্য কোনো ওয়েবসাইটের অ্যাকাউন্টে প্রবেশ করতে পারেনি।

সর্বশেষ..