প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

তাইওয়ান-চীন উত্তেজনায় হুমকিতে বিশ্ববাণিজ্য

শেয়ার বিজ ডেস্ক: যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেসের নি¤œকক্ষ প্রতিনিধি পরিষদের স্পিকার ন্যান্সি পেলোসির তাইওয়ান সফর কেন্দ্র করে তাইওয়ান ঘিরে চীনের সামরিক মহড়ার কারণে বিশ্ববাণিজ্য এবং পূর্ব এশিয়ায় বাণিজ্যিক ভ্রমণ বিঘিœত হওয়ার হুমকিতে পড়েছে। সমরিক মহড়ার কারণে এরই মধ্যে বেশ কয়েকটি বিমান সংস্থা তাদের রুট বাতিল করেছে। চীন বলছে, তাইওয়ানের চারপাশে মহড়া দেয়ার অধিকার আছে তাদের। অন্যদিকে যুক্তরাষ্ট্রও তাইওয়ান প্রণালিতে সামরিক জাহাজ পাঠানোর ঘোষণা দিয়েছে। এদিকে পেলোসির ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে চীন। যদিও পেলোসির বলেছেন, তাইওয়ানের শান্তি চান তিনি। বাস্তবে ইউক্রেন-রাশিয়া যুদ্ধের মতো ছায়াযুদ্ধ দেখছেন বিশ্লেষকরা। এ অবস্থায় বিশ্ববাণিজ্য আবারও হুমকিতে পড়তে পারে। খবর: রয়টার্স, সিএনএন, বিবিসি।

তাইওয়ানের চারপাশের সমুদ্র দিয়ে পণ্য পরিবহনে বিশ্বের ব্যস্ততম কয়েকটি রুট রয়েছে। চীন সেখানে গোলাগুলির মহড়া চালানোয় বিপজ্জনক পরিস্থিতিতে পড়ার ঝুঁকি এড়াতে বাণিজ্যিক জাহাজগুলোকে অন্য পথ ধরতে হচ্ছে। ফলে ইউক্রেন যুদ্ধের কারণে আগে থেকেই নাজুক অবস্থায় থাকা বিশ্ববাজারের পণ্য সরবরাহ ব্যবস্থার ওপর চাপ আরও বাড়ছে। তাইওয়ানের চারপাশের আকাশ ও সমুদ্রে সামরিক মহড়ায় বিশ্ববাণিজ্য হুমকিতে পড়ার শঙ্কা দেখা দিয়েছে।

মঙ্গলবার রাতে তাইওয়ান ঘিরে ছয়টি পয়েন্টে সামরিক মহড়ার ঘোষণা দেয় চীন। সফরশেষে পেলোসির বিদায়ের প্রায় সঙ্গে সঙ্গেই চীনের নৌ, বিমান ও অন্যান্য সামরিক বাহিনী তাইওয়ানের চারপাশের আকাশ ও সমুদ্রে মহড়া শুরু করে।

মহড়ায় চীন দীর্ঘ পাল্লার ‘লাইভ-ফায়ার এক্সারসাইজ’ করছে। তারা যে ছয়টি পয়েন্টে মহড়া করছে, তার ?অন্তত তিনটি সমুদ্রে তাইওয়ানের দাবি করা ১২ নটিক্যাল মাইলের মধ্যে। এ এলাকার সমুদ্র ও আকাশ নিজেদের বলে দাবি করে তাইওয়ান। ১১০ মাইল চওড়া তাইওয়ান প্রণালী তাইওয়ান দ্বীপ এবং এশিয়া মহাদেশকে বিভক্ত করেছে। চীন, জাপান ও দক্ষিণ কোরিয়ার মতো উত্তর-পূর্ব এশিয়ার শক্তিশালী অর্থনীতির দেশগুলোর সঙ্গে বাকি বিশ্বের পণ্যবাহী জাহাজ যোগাযোগ এই প্রণালি দিয়েই হয়। এটি বিশ্বের ব্যস্ততম পণ্যবাহী জাহাজ চলাচলকারী সমুদ্রপথ।

তাইওয়ানের চারপাশের বাণিজ্যপথ যদি এমনকি সাময়িকভাবেও বন্ধ করে দেয়া হয়, তবে তার প্রভাব শুধু ভবিষ্যতের বাণিজ্য, ভ্রমণ ও অর্থনীতির ওপরই পড়বে না, বরং সেটি সম্ভাব্য প্রতিরক্ষামূলক এবং নিরাপত্তা পরিস্থিতির চিত্রেও প্রভাব ফেলবে বলে মনে করেন ইকোনমিস্ট ইনটেলিজেন্স ইউনিটের প্রধান বিশেষজ্ঞ নিক ম্যারো।

ফ্লাইট চলাচল বাতিল: এদিকে ন্যান্সি পেলোসির সফর ঘিরে চীন ও তাইওয়ানের মাঝে উত্তেজনা বাড়ছে। এরই জেরে ফ্লাইট চলাচল বাতিল করেছে এশিয়ার একাধিক এয়ারলাইনস। কোরিয়ান, এশিয়ানা ও সিঙ্গাপুরের মতো এয়ারলাইনস তাদের বেশ কয়েকটি ফ্লাইট বাতিল করেছে।

দক্ষিণ কোরিয়ার কোরিয়ান এয়ার তাইওয়ানে তাদের শুক্রবার ও শনিবারের যাত্রা বাতিল করেছে। এশিয়ানা শুক্রবারের ফ্লাইট বাতিল করেছে। সিঙ্গাপুর ও তাইপের রুটে চারটি ফ্লাইট বাতিল করেছে সিঙ্গাপুর এয়ারলাইনস। পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করে শিডিউলে আরও পরিবর্তন আনার কথাও জানিয়েছে তারা। তবে জাপানের এএনএ ও জাপান এয়ারলাইনস ফ্লাইট শিডিউলে পরিবর্তন আনেনি।

তাইওয়ান প্রণালিতে যাবে যুক্তরাষ্ট্রের রণতরি: এদিকে গতকাল রাশিয়া টুডের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বৃহস্পতিবার হোয়াইট হাউস ঘোষণা করেছে যে, আগামী দুই সপ্তাহের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রের নৌবাহিনীর জাহাজ ও বিমান তাইওয়ান প্রণালি অতিক্রম করবে। সে ক্ষেত্রে চীনের মহড়াকালে যুক্তরাষ্ট্রের রণতরি সেখানে উপস্থিত হলে দুই দেশের সরাসরি সংঘাতের আশঙ্কা রয়েছে।

পেলোসির ওপর নিষেধাজ্ঞা চীনের: তাইওয়ান সফরের জেরে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিনিধি পরিষদের স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি ও তার পরিবারের ওপর নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে চীন। গতকাল শুক্রবার চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এই ঘোষণা দেয়। মন্ত্রণালয় বলছে, চীন পেলোসি ও তার পরিবারের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করবে। তবে এ বিষয়ে বিস্তারিত কিছু বলেনি। এর আগে মঙ্গলবার রাতে তাইওয়ানে পৌঁছান পেলোসি। পেলোসির এই সফর ঘিরে ওয়াশিংটন ও বেইজিংয়ের মধ্যে উত্তেজনা চলছে। এজন্য ‘কঠিন পরিণতি’ ভোগ করতে হবে বলে হুশিয়ারি দিয়েছিল চীন।