পত্রিকা

তালিকাভুক্ত হলে করহার সাড়ে ২২ শতাংশ

নিজস্ব প্রতিবেদক: তালিকাভুক্ত কোম্পানির (ব্যাংক, বিমা, এনবিএফআই, টেলিকম ও তামাকজাত ব্যতীত) করহার কমানোর প্রস্তাব করেছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। বিদ্যমান ২৫ শতাংশের করহার কমিয়ে ২২ দশমিক ৫০ শতাংশ করার প্রস্তাব করেছেন। গতকাল বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদে ২০২১-২২ অর্থবছরের বাজেটে তিনি এ প্রস্তাব করেছেন।

বাজেটে তালিকাভুক্ত কোম্পানির পাশাপাশি অতালিকাভুক্ত কোম্পানির করহার কমানোরও প্রস্তাব করেছেন অর্থমন্ত্রী। এতে গতবারের ৩২ দশমিক ৫০ শতাংশ করহার কমিয়ে ৩০ শতাংশ করার প্রস্তাব করেছেন। তবে এবারের বাজেটে তালিকাভুক্ত ব্যাংক, বিমা, আর্থিক প্রতিষ্ঠান, মার্চেন্ট ব্যাংক, তামাকজাত পণ্য প্রস্তুতকারী কোম্পানি ও মোবাইল ফোন কোম্পানির করহার অপরিবর্তিত রাখার প্রস্তাব করেছেন অর্থমন্ত্রী।

অর্থমন্ত্রী বলেন, সরকার পুঁজিবাজারকে গতিশীল ও উজ্জীবিত করার লক্ষ্যে নানা সংস্কারমূলক পদক্ষেপ গ্রহণ ও বাস্তবায়ন করেছে। এছাড়া যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়ে আরও কিছু পদক্ষেপ শিগগির বাস্তবায়ন করা হবে। এসব করা হবে পুঁজিবাজারের স্বার্থে।

তিনি বলেন, পুঁজিবাজারে ট্রেজারি বন্ডের লেনদেন চালু করা হবে। এছাড়া আধুনিক পুঁজিবাজারের নানা ইন্সট্রুমেন্টের মধ্যে সুকুক, ডেরিভেটিভস, অপশনসের লেনদেন চালু, ওটিসি বুলেটিন বোর্ড চালু, ইটিএফ চালু ও ওপেন এন্ড মিউচুয়াল ফান্ড তালিকাভুক্ত করা হবে।

বিমা খাতের উন্নয়ন নিয়ে তিনি বলেন, বিমাসেবা জনবান্ধব ও কল্যাণমুখী করার জন্য প্রবাসী বিমা, কৃষি বিমা, স্বাস্থ্য বিমা, গবাদিপশু বিমা, হাওর এলাকার জন্য শস্য বিমা চালু করার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। এছাড়া দারিদ্র্য নিরসনে ক্ষুদ্র বিমা চালুর সম্ভাব্যতা যাচাই করা হচ্ছে।

অর্থমন্ত্রী বলেন, দরিদ্র নারীদের ক্ষুদ্র বিমার আওতায় এনে নারীর ক্ষমতায়ন বাড়ানোর উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। এছাড়া বিমা খাতে অটোমেশনের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। ইতোমধ্যে অভিন্ন নো ইউর কাস্টমার (কেওয়াইসি) পদ্ধতি চালু করা হয়েছে। বিমাসেবা জনবান্ধব ও কল্যাণমুখী করার জন্য নানা বিমা চালু করার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে বলে উল্লেখ করেন অর্থমন্ত্রী।

অর্থমন্ত্রী বলেন, কালোটাকায় পুঁজিবাজার শক্তিশালী হয়েছে। এর ফলে পুঁজিবাজারে অর্থের প্রবাহও বৃদ্ধি পেয়েছে। প্রস্তাবিত বাজেট উত্থাপনের সময় অর্থমন্ত্রী বলেছেন, পুঁজিবাজারকে গতিশীল করার লক্ষ্যে এক বছর লক-ইনসহ কিছু শর্ত সাপেক্ষে ব্যক্তিশ্রেণির করদাতারা পুঁজিবাজারে অপ্রদর্শিত অর্থ বিনিয়োগের আওতায় ফেব্রুয়ারি ২০২১ পর্যন্ত ৩১১ জন করদাতা পুঁজিবাজারে অর্থ বিনিয়োগপূর্বক ৪৩ কোটি ৫৪ লাখ ৫২ হাজার ৯৮ টাকা আয়কর পরিশোধ করেছেন। যার ফলে দেশের পুঁজিবাজারে অর্থের প্রবাহ বৃদ্ধি পেয়েছে এবং পুঁজিবাজার শক্তিশালী হয়েছে।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..