প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

তিন অর্থবছরে বিদেশি বিনিয়োগ লক্ষ্যমাত্রা ৬৯০০ মিলিয়ন ডলার

সংসদে আ ক ম মোজাম্মেল হক

নিজস্ব প্রতিবেদক: চলতি অর্থবছরসহ (২০২২-২৩) পরবর্তী দুই অর্থবছর (২০২৩-২৪ এবং ২০২৪-২৫) শতভাগ বিদেশি এবং যৌথ বিনিয়োগ প্রকল্পে বিনিয়োগ ও পুনঃবিনিয়োগের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে যথাক্রমে ২২০০, ২৩০০ ও ২৪০০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। গতকাল জাতীয় সংসদে এ তথ্য জানিয়েছেন সংসদ কাজে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক।

এ দিন আওয়ামী লীগ দলীয় সদস্য এম আব্দুল লতিফের এক প্রশ্নের লিখিত উত্তরে তিনি এ তথ্য জানান। এতে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী সভাপতিত্ব করেন।

মোজাম্মেল হক বলেন, বেসরকারি খাতে দেশে বিদেশি বিনিয়োগে উৎসাহ দেয়া, শিল্প স্থাপনে সুবিধা ও সহায়তা দিতে বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (বিডা) নিরলস কাজ করছে। বিনিয়োগ কার্যক্রম সহজ করতে ইন্টার অপারেবল অনলাইন প্ল্যাটফরম তৈরি করেছে। বিভিন্ন বিনিয়োগ সেবাদানকারী সংস্থার সঙ্গে সমন্বয় করে বিডার ওয়ান স্টপ সার্ভিসের (এএসএস) সফল কার্যক্রম পরিচালনা করা হচ্ছে। ফলে বিদেশি বিনিয়োগকারীদের মধ্যে ইতিবাচক ধারণা তৈরি হয়েছে।

মন্ত্রী বলেন, বিডার নির্বাহী চেয়ারম্যান এবং প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সিনিয়র সচিবের মধ্যে স্বাক্ষরিত বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি অনুযায়ী ২০২২-২৩ থেকে ২০২৪-২৫ অর্থবছর পর্যন্ত শতভাগ বিদেশি এবং যৌথ বিনিয়োগ প্রকল্পে বিনিয়োগ, পুনঃবিনিয়োগের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে যথাক্রমে ২২০০, ২৩০০ ও ২৪০০ মিলিয়ন ডলার। বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি অনুযায়ী লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের পাশাপাশি লক্ষ্যমাত্রা অতিক্রান্তের বিষয়ে বিনিয়োগ বিষয়ক সভা/সেমিনার/সিম্পোজিয়াম/দেশে-বিদেশে প্রচারণা প্রভৃতির মাধ্যমে বিনিয়োগের প্রচার ও প্রসারে বিডা নিরবচ্ছিন্নভাবে কাজ করে যাচ্ছে।

অন্যান্য ইনভেস্টমেন্ট প্রমোশন (আইপি) সংস্থাগুলো (বেজা, বেপজা, হাইটেক পার্ক অথরিটি, পিপিপি অথরিটি) কর্তৃক পৃথকভাবে বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি অনুযায়ী বিনিয়োগ বৃদ্ধির লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করছে।