বিশ্ব সংবাদ

তিন-চার সপ্তাহের মধ্যেই করোনার টিকার আশ্বাস ট্রাম্পের

শেয়ার বিজ ডেস্ক : করোনাভাইরাসের বিপদ সম্পর্কে যথেষ্ট আগে খবর পাওয়া সত্ত্বেও দেশ ও জনসাধারণের সুরক্ষার জন্য যথেষ্ট পদক্ষেপ নেননি যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। নির্বাচনী প্রচারের মাঝে এমন অভিযোগ খণ্ডনের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন তিনি। এবার তিনি দাবি করলেন, তিন থেকে চার সপ্তাহের মধ্যে করোনার টিকা প্রস্তুত হয়ে যাবে। এর আগে ফক্স নিউজ চ্যানেলে ট্রাম্প বলেন, চার থেকে আট সপ্তাহের মধ্যে করোনার টিকা আসতে চলেছে। খবর: এএফপি ও রয়টার্স।

ফিলাডেলফিয়া শহরে এবিসি নিউজ চ্যানেলের এক ‘টাউনহল’ অনুষ্ঠানে ট্রাম্প বলেন, টিকা প্রায় হাতের নাগালে চলে এসেছে। তার দাবি, লাল ফিতার ফাঁসের কারণে অতীতের কোনো প্রশাসন এমন টিকা মানুষের নাগালে আনতে হয়তো কয়েক বছর সময় নিত, অথচ তার আমলে দ্রুত টিকার ব্যবস্থা করা হচ্ছে। শুধু তাই নয়, চীন ও ইউরোপে ভ্রমণের ওপর নিষেধাজ্ঞা চাপিয়ে লাখ লাখ মানুষের জীবন বাঁচিয়েছেন বলেও দাবি করেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট।

রাজনৈতিক চাপ সত্ত্বেও যুক্তরাষ্ট্রের গণস্বাস্থ্য ব্যবস্থার সঙ্গে যুক্ত একাধিক প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তারা করোনা টিকা আবিষ্কার ও তা বিতরণ নিয়ে প্রত্যাশা সম্পর্কে বারবার সতর্ক করে দিচ্ছেন। সংক্রামক রোগ বিশেষজ্ঞ ড. অ্যান্টনি ফাউচি বলেন, নভেম্বর বা ডিসেম্বর মাসে করোনা টিকা প্রস্তুত হয়ে যাবে বলে বেশিরভাগ বিশেষজ্ঞের ধারণা। তবে অক্টোবরের মধ্যে সেই সাফল্যের সম্ভাবনা কম। মোটকথা, ৩ নভেম্বর প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আগে টিকা প্রস্তুত করার প্রত্যাশা যে অবাস্তব, সে বিষয়ে যথেষ্ট ঐকমত্য রয়েছে।

বিরোধী ডেমোক্র্যাটিক দলের প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী জো বাইডেন ট্রাম্পের বিরুদ্ধে প্রেসিডেন্ট হিসেবে কর্তব্যে অবহেলার অভিযোগ করছেন। তার মতে, ট্রাম্পের ব্যর্থতার কারণে যুক্তরাষ্ট্রে অত্যন্ত বেশি সংখ্যক মানুষ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ও মারা গেছেন। এ সংকটের অর্থনৈতিক পরিণাম সামলাতেও ট্রাম্প ব্যর্থ হয়েছেন বলে বাইডেন অভিযোগ করছেন।

টাউনহল অনুষ্ঠানে একাধিক প্রশ্নের জবাবে ট্রাম্প করোনা সংকটের শুরু থেকে নিজের আচরণ সম্পর্কে সমালোচনা উড়িয়ে দেন। অন্যান্য দেশের তুলনায় যুক্তরাষ্ট্রে বেশি পরীক্ষা হচ্ছে বলে আক্রান্তদের সংখ্যা বেশি বলে তিনি দাবি করেন। করোনাভাইরাস নিজে থেকেই উধাও

হয়ে যাবে, এমন অসমর্থিত দাবি সম্পর্কে অটল রয়েছেন তিনি। তবে টিকা থাকলে

এই ভাইরাস আরও দ্রুত দূর হবে বলে মনে করেন তিনি। করোনার বিপদ সম্পর্কে আগাম আভাস পেয়ে তিনি কেন উপযুক্ত পদক্ষেপ নেননি সেই প্রশ্নের জবাবে ট্রাম্প পাল্টা দাবি করেন, বরং প্রয়োজনের তুলনায় তিনি বাড়তি পদক্ষেপ নিয়েছেন।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..