বিশ্ব বাণিজ্য

তিন মাসের মধ্যে সর্বোচ্চে জ্বালানি তেলের দাম

শেয়ার বিজ ডেস্ক : ব্রিটেনের নির্বাচনে কনজারভেটিভ পার্টির জয়ে ব্রেক্সিট নিয়ে থাকা অনিশ্চয়তা কেটেছে। অন্যদিকে যুক্তরাষ্ট্র ও চীনের মধ্যে দীর্ঘদিনের চলা বাণিজ্যযুদ্ধ নিরসনে দুই দেশ প্রথম দফায় চুক্তিতে সম্মত হয়েছে। এর প্রভাব পড়েছে তেলের বাজারে। গত শুক্রবার আন্তর্জাতিক বাজারে জ্বালানি তেলের দাম বেড়ে তিন বছরের মধ্যে সর্বোচ্চে পৌঁছেছে। খবর: বিবিসি।

গত শুক্রবার লন্ডনের বাজারে প্রতি ব্যারেল তেল বিক্রি হয় ৬৪ ডলার ৬৪ সেন্টে, আগের দিনের তুলনায় যা ৪৫ সেন্ট বেশি। গত ২৩ সেপ্টেম্বরের পর এ দামই সর্বোচ্চ। এছাড়া যুক্তরাষ্ট্রের ফিউচার মার্কেটে এদিন প্রতি ব্যারেল জ্বালানি তেলের দাম পৌঁছায় ৫৯ ডলার ৩৯ সেন্টে। আগের দিনের তুলনায় এ দাম ২১ সেন্ট বেশি।

বিশ্লেষকরা বলছেন, গত ২৪ ঘণ্টায় যুক্তরাষ্ট্র-চীন বাণিজ্যযুদ্ধ এবং ব্রিটেনে কনজারভেটিভ পার্টির জয়Ñএ দুই বিষয় বিশ্ব অর্থনীতিতে যে অনিশ্চয়তা সৃষ্টি করেছিল, তা অনেকটা কমিয়ে দিয়েছে। এতে বিনিয়োগকারীদের মধ্যে ঝুঁকি নেওয়ার প্রবণতা বাড়বে। এতে তেলের দাম বাড়ছে। এছাড়া পাউন্ড-স্টার্লিংয়ের বিপরীতে ডলারের দাম হ্রাসও তেলের দাম বৃদ্ধিতে ভূমিকা রেখেছে।

জ্বালানি তেলের বাজার চাঙা করতে আগামী বছর উত্তোলন ও সরবরাহ আরও কমিয়ে আনছে ওপেক প্লাস জোট। জোটটির দীর্ঘদিনের এ চেষ্টার ফলে আগামী বছরের শুরুতে বাজার কিছুটা চাঙা হলেও বাকি সময়টা আবারও নিম্নমুখী হওয়ার আশঙ্কা করছে যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক বহুজাতিক বিনিয়োগকারী ব্যাংক ও আর্থিক সেবা প্রতিষ্ঠান মরগান স্ট্যানলি।

জ্বালানি তেলের বাজার নিয়ে ব্যাংকটি তাদের প্রাক্কলন প্রতিবেদনে বলছে, ওপেক প্লাস জোটের উত্তোলন হ্রাসের ফলে আগামী বছরের প্রথম প্রান্তিকে অল্প সময়ের জন্য বাজার চাঙা থাকবে। এ সময় বেন্ট ক্রুডের দাম ব্যারেলপ্রতি ৬২ ডলার ৫০ সেন্ট হতে পারে। তবে বছরের মাঝামাঝি সময় থেকে বাকি মাসগুলোয় দাম ব্যারেলপ্রতি ৬০ ডলারে নেমে আসতে পারে। যুক্তরাষ্ট্রের ওয়েস্টে টেক্সাস ইন্টারমিডিয়েটে জ্বালানি তেলের দাম প্রথম প্রান্তিকে ৫৭ ডলার ৫০ সেন্ট থাকবে। যেখানে বছরের বাকি মাসগুলোয় দাম কমে ব্যারেলপ্রতি ৫৫ সেন্টে নেমে আসবে।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..