দিনের খবর শেষ পাতা সুশিক্ষা

তিন সহস্রাধিক শিক্ষার্থী বাড়ি পৌঁছে দিল জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়

আশিকুল ইসলাম, জবি: কভিড-১৯ মহামারিতে লকডাউনের কারণে ঢাকায় আটকে পড়া তিন হাজার শিক্ষার্থীর আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে দ্রুততম সময়ের মধ্যে নিজস্ব পরিবহন ও ব্যবস্থাপনায় দেশের বিভিন্ন জেলায় পৌঁছে দিয়েছে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় (জবি) কর্তৃপক্ষ।

বিশ্ববিদ্যালয়ের দেয়া তথ্যমতে জানা গেছে, সিলেট বিভাগে ২৯৩ শিক্ষার্থী, রাজশাহী বিভাগে ৫০২, রংপুর বিভাগে ৭১২, বরিশাল বিভাগে ২৮৯, খুলনা বিভাগে ৮০৭, চট্টগ্রাম বিভাগে ২২০ ও ময়মনসিংহ বিভাগে ১৮০ শিক্ষার্থী মিলে মোট তিন হাজার আট শিক্ষার্থী বাড়ি যাওয়ার জন্য আবেদন করেন। পরে তাদের এ আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে গত ১৭ জুলাই সিলেট, রাজশাহী ও রংপুর বিভাগে, ১৮ জুলাই খুলনা ও বরিশাল বিভাগে এবং গতকাল ১৯ জুলাই চট্টগ্রাম ও ময়মনসিংহ বিভাগে শিক্ষার্থীদের নিজ জেলায় তাদের বাড়ি পৌঁছে দেয় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

কভিড পরিস্থিতি মাথায় রেখে সর্বোচ্চ সুরক্ষা নিশ্চিতে শিক্ষার্থীদের বাসে ওউঠানোর আগে শিক্ষার্থীদের শরীরের তাপমাত্রা মেপে দেখার পাশাপাশি বাসে হ্যান্ড সানিটাইজার ও মাস্কসহ স্বাস্থ্যবিধি মানার জন্য অন্যান্য সামগ্রী সরবরাহ করা হয়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের বাসে বাড়ি ফিরতে পেরে বেশ উচ্ছ্বসিত শিক্ষার্থীরা। বিশ্ববিদ্যালয়ের এ ধরনের শিক্ষার্থীবান্ধব উদ্যোগের জন্য সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম-সহ নানাভাবে প্রশাসনের প্রতি ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন শিক্ষার্থীরা।

তারা বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়ের বাসে করে বাড়ি ফেরা হবে, তা কখনও ভাবিনি। মনে হচ্ছে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সবাই মিলে কোথাও বনভোজনে যাচ্ছি। আমরা কালের সাক্ষী হয়ে রইলাম। আমার ক্যাম্পাসের বাস আমার জেলায় যাচ্ছে, এটা যেমন আনন্দের তেমনি গর্বের বিষয়। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে অসংখ্য ধন্যবাদ, এমন উদ্যোগের জন্য।’

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর মোস্তফা কামাল বলেন, করোনা পরিস্থিতিতে আমাদের জন্য এ কাজটি বেশ চ্যালেঞ্জিং ছিল। তবে শিক্ষার্থীদের বাড়ি পৌঁছে দিতে পেরেছি, এটি অত্যন্ত আনন্দের বিষয়। আমরা শিক্ষার্থীদের মাস্ক, শরীরের তাপমাত্রা, হ্যান্ড স্যানিটাইজিং প্রভৃতি বিষয়াবলি কঠোরভাবে নিশ্চিত করেই সবাইকে বাসে উঠিয়েছি। তারা বাড়ি যাওয়া পর্যন্ত খোঁজ-খবর রেখেছি।

বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবহন প্রশাসক আব্দুল্লাহ্-আল্-মাসুদ বলেন, শিক্ষার্থীদের কল্যাণে কাজ করাই আমাদের কর্তব্য। করোনা পরিস্থিতি বিবেচনায় তিন হাজার শিক্ষার্থীকে বাড়িতে পৌঁছে দিয়েছি। এতে নিয়মিত-অনিয়মিত সব শিক্ষার্থীকেই আমরা অগ্রাধিকার দিয়েছি।

শিক্ষার্থীদের এ ঈদযাত্রায় শুরু থেকেই সব ক্ষেত্রে সার্বিক নজরদারি রেখেছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. ইমদাদুল হক। ঈদযাত্রার সার্বিক ব্যাপারে আনন্দিত বলে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘শিক্ষার্থীদের বাড়ি পৌঁছে দিতে পেরেছি, এটা আমাদের জন্য আনন্দের। আমরা চেয়েছি তারা বাড়িতে গিয়ে তাদের পরিবারের সঙ্গে ঈদ করুক। এছাড়া শিক্ষার্থীরা বাড়ি পৌঁছানো পর্যন্ত আমরা খোঁজ-খবর রাখছি। আমাদের এই কার্যক্রমে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরিয়াল বডি, পরিবহন প্রশাসন, ছাত্র উপদেষ্টা, ছাত্রকল্যাণ পরিচালক-সহ সবাই নিরলসভাবে কাজ করেছে। আমি তাদের ধন্যবাদ জানাই। শিক্ষার্থীদের সব সমস্যায় আমরা সবসময় পাশে থাকব।’

উল্লেখ্য, জবি ছাত্রলীগ, সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্ট ও সাধারণ শিক্ষার্থীদের আবেদন ও স্মারকলিপির পরিপ্রেক্ষিতে লকডাউনের কারণে শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন জেলায় বাড়ি পৌঁছে দিতে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের পক্ষে বাস দেয়ার এ উদ্যোগ নেয়া হয়।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..