প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

তৃতীয় প্রান্তিকে ইপিএস বেড়েছে লাফার্জহোলসিমের

নিজস্ব প্রতিবেদক: চলতি হিসাববছরের তৃতীয় প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর, ২০২২) পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত সিমেন্ট খাতের কোম্পানি লাফার্জহোলসিম বাংলাদেশ লিমিটেডের শেয়ারপ্রতি আয় বা ইপিএস আগের বছরের তুলনায় বেড়েছে ২১ শতাংশ। মূলত এই প্রান্তিকে ভালো ফলাফল অর্জনে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রেখেছে ব্যয় সংকোচন নীতি। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

প্রাপ্ত তথ্যমতে, তৃতীয় প্রান্তিকে কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে  ৯৮ পয়সা, আগের বছরের একই সময়ে যা ছিল ৮১ পয়সা। অর্থাৎ ইপিএস বেড়েছে ১৭ পয়সা। জানুয়ারি থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত প্রথম ৯ মাসের হিসাবে শেয়ারপ্রতি আয় হয়েছে ২ টাকা ৮৫ পয়সা, আগের বছরের একই সময়ে ছিল ২ টাকা ৬৬ পয়সা। ২০২২ সালের ৩০ সেপ্টেম্বরে শেয়ারপ্রতি নেট সম্পদমূল্য দাঁড়িয়েছে ১৫ টাকা ৯৯ পয়সা।

কোম্পানির কর-পূর্ববর্তী আয় গত বছরের একই প্রান্তিকের তুলনায় শতকরা ৪১ ভাগ বেড়ে ১৭১ কোটি টাকা হয়েছে। নীট বিক্রি শতকরা ২৪ ভাগ বেড়ে ৫৭১ কোটি টাকা হয়েছে। গত বছর একই সময়ে এর পরিমাণ ছিল ৪৬০ কোটি টাকা।

কোম্পানিটি এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানিয়েছে, মূলত বিক্রি বৃদ্ধির কারণেই গত প্রান্তিকের এই ফলাফল অর্জন সম্ভব হয়েছে। নতুন পণ্য এবং নতুন বিপণন চ্যানেল এক্ষেত্রে সহায়ক ভূমিকা পালন করেছে। গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখেছে ডিজিটাল উদ্ভাবন ও নতুন নতুন ব্যবসা ক্ষেত্রগুলো। ২০৫০ সালের মধ্যে কার্বন নিঃসরণ শূন্যের কোঠায় নামিয়ে আনার যে লক্ষ্য রয়েছে তাতে সহযোগিতা করছে তাদের বর্জ্য ব্যবস্থাপনা পদ্ধতি, যা তাদের জ্বালানি খরচও কমাচ্ছে। কোম্পানিটি জানিয়েছে তাদের নতুন পণ্য ‘হোলসিম ওয়াটার প্রোটেক্ট’ এবং ‘হোলসিম শক্তি’ বাজারে আনার অল্প সময়ের মধ্যেই মোট বিক্রিতে শতকরা ৫ ভাগ অবদান রেখেছে। গ্রাহকদের কাছ থেকে নতুন ও উদ্ভাবনী পণ্য দুটির ভালো সাড়া পেয়েছে। নতুন বিপণন চ্যানেল ‘ডিরেক্ট টু রিটেইল’ নতুন মাইল ফলক অতিক্রম করেছে এবং মোট বিক্রিতে শতকরা ১০ ভাগ অবদান রেখেছে।