স্পোর্টস

দাপুটে জয়ে নিউজিল্যান্ড সফর শেষ যুবাদের

ক্রীড়া ডেস্ক : সিরিজ জয় আগেই নিশ্চিত হয়েছিল বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দলের। তবে সিরিজের চতুর্থ ম্যাচে নিউজিল্যান্ড অনূর্ধ্ব-১৯ দলের কাছে হেরে কিছুটা মন ভার হয়েছিল আকবর আলীর দলের। গতকাল অবশ্য পঞ্চম ও শেষ ওয়ানডেতে নিজেদের সর্বোচ্চ দলীয় সংগ্রহের রেকর্ড গড়ে প্রতিপক্ষকে হারিয়ে সেটা কাটিয়েছেন তারা। এর ফলে কিউই সফর তাদের শেষ হয়েছে ৪-১ ব্যবধানে জিতে।

লিঙ্কনে সিরিজের ৫ম ও শেষ ম্যাচে গতকাল নিউজিল্যান্ড যুবাদের ৭৩ রানে হারিয়েছে বাংলাদেশ। আগে ব্যাট করতে নেমে তানজিদ হাসান (৭১), পারভেজ হোসেন ইমন (৪৮), শাহদাত হোসেন (৪৮) ও অভিষেক দাসের (৪৮) নৈপুণ্যে নির্ধারিত ৫০ ওভারে টাইগার যুবারা করে ৮ উইকেটে ৩১৬ রান। এরপর শরিফুল ইসলাসের (৫/৪৩) তোপে কিউইদের ৪৩.৪ ওভারে মাত্র ২৪৩ রানে গুটিয়ে যায় সফরকারীরা।

শেষ যুব ওয়ানডেতে গতকাল টস জিতে আগে ব্যাট করতে নেমে তানজিদ ও পারভেজের নৈপুণ্যে ১৯ ওভারে ১২০ তোলে বাংলাদেশ। এর মধ্যে ৫৯ বলে ১১ চার ও ২ ছয়ে ৭১ রান তানজিদের। এরপর নিজের ইনিংস তিনি আর বড় করতে পারেননি। ১৬তম ওভারে করা ডিকসনের বলে এ তরুণ ক্যাচ হয়ে ফেরেন সাজঘরে। এর কিছুক্ষণ পরই ক্লার্কের শিকার পারভেজ। ফেরার আগে তিনি করেন ৫৫ বলে ৮ চারে ৫৫ রান।

দুই ওপেনার ফেরায় কিছুটা বিপদে পড়েছিল বাংলাদেশ। তবে সফরকারীদের কক্ষপথে ফেরান শাহদাত হোসেন। ৫ম উইকেটে অধিনায়ক আকবর আলীকে নিয়ে তিনি গড়েন ৩৬ রানের জুটি। এরপর আকবর ফিরে গেলে শেষদিকের ব্যাটসম্যানদের নিয়ে ছোট ছোট জুটিতে দলের রানের চাকা সচল রাখেন তিনি। শেষদিকে অবশ্য ঝড় তোলেন অভিষেক। তিনি অপরাজিত ছিলেন ৩৬ বলে ৬ চারে ৪৮ রানে। তার আগেই ৬৯ বলে ১ চার ও ১ ছয়ে ৪৮ রানে সাজঘরের পথ ধরেন শাহদাত। তাতে বাংলাদেশ পেয়ে যায় বড় পুঁজি।

বড় পুঁজি নিয়ে বল হাতে বাংলাদেশের দারুণ শুরু এনে দেন পেসার শরিফুল ইসলাম। প্রথম বলেই তানজিদ হাসান তামিমের ক্যাচে তিনি ফেরান হোয়াইটকে। এরপর ৭ম ওভারে ফের উইকেটের দেখা পান শরিফুল। ১৮ রান করা অপর ওপেনার পোমারকে আকবার আলীর ক্যাচে ফেরান এ তরুণ। ৯ম ওভারে নিজের তৃতীয় শিকার তুলে নেন শরিফুল। ৬ রান করে ক্লার্ক ফেরেন আকবর আলিকে ক্যাচ দিয়ে।

৪৯ রানে কিউইদের ৩ উইকেট তুলে নিলেও একটু অস্বস্তিতে ছিল বাংলাদেশ। কেননা, সে সময় চতুর্থ উইকেট জুটিতে ৬২ রান যোগ করেন লেলম্যান ও অধিনায়ক তাশকফ। তবে দ্রুতই মারমুখী লেলম্যানকে ফিরিয়ে স্বস্তি ফেরান তানজিম হাসান সাকিব। ৪৬ বলে ৭ চার ও ২ ছয়ে ৫৬ রান করেন লেলম্যান। তার বিদায়ের পর তাশকফকেও দ্রুত ফেরায় জুনিয়র টাইগাররা। ৪২ বলে ৪ চারে ৩৯ রান করে অভিষেক দাসের বলে এলবিডব্লিউ হন তিনি।

জমে উঠছিল ম্যাকেঞ্জি ও সান্ডের ৭ম উইকেট জুটি। শেষ পর্যন্ত তাদের ৫৭ রানের জুটি ভাঙে ৪৭ রান করা ম্যাকেঞ্জিকে রাকিবুল হাসান ফেরালে। শেষমেশ ৪৩.৪ ওভারে ২৪৩ রান করে অলআউট হয় নিউজিল্যান্ড অনূর্ধ্ব-১৯ দল।

বাংলাদেশের সেরা বোলার শরিফুল। এ পেসার ৪৩ রানে নেন ৫ উইকেট। এছাড়া ২ উইকেট নেন রাকিবুল হাসান।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব ১৯ দল: ১৯ ৩১৬/৮ (৫০), তানজিদ হাসান তামিম ৭১, পারভেজ হোসেন ইমন ৪৮, মাহমুদুল হাসান জয় ১৫, তৌহিদ হƒদয় ৮, শাহাদত হোসেন ৪৮, আকবর আলী ১৪, শামীম হোসেন ৮, তানজিম হাসান সাকিব ১০, অভিষেক দাস ৪৮*, রাকিবুল হাসান ১৩*; ক্লার্ক ৬০/১, জ্যাকসন ৭৩/১, তাশকফ ৫৩/১, ডিকসন ৬৬/১, প্রিঙ্গল ৪৮/১, লেলম্যান ১২/২।

নিউজিল্যান্ড অনূর্ধ্ব ১৯ দল: ২৪৩/১০ (৪৩.৪), লেলম্যান ৫৬, ম্যাকেঞ্জি ৪৭, তাশকফ ৩৯; শরিফুল ৮.৪-১-৪৩-৫, তানজিম ৭-১-৩৮-১, অভিষেক ৯-০-৫৮-১, রাকিবুল ১০-০-৫৫-২, শামীম ৮-০-৩৬-১।

ফল: বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব ১৯ দল ৭৩ রানে জয়ী।

সর্বশেষ..