স্পোর্টস

দুঃসময় পেছনে ফেলে এগোনোর লক্ষ্য বাংলাদেশের

জিতলেই টিকে থাকবে ফাইনালের আশা

ক্রীড়া প্রতিবেদক: মাঠ, কন্ডিশন, দর্শক সবই অনুকূলে বাংলাদেশের। তারপরও নিজেদের ঠিক মেলে ধরতে পারছে না টাইগাররা। গত রোববার আফগানিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচ হারের পর ব্যাপারটি আরও স্পষ্ট হয়েছে। এখন থেকে অবশ্য আজই বের হতে চায় রাসেল ডমিঙ্গোর শিষ্যরা। তার আগে কিন্তু সবার মনে একটি
প্রশ্ন বড় করেই জেগেছে: পারবেন তো সাকিব আল হাসানরা।
ত্রিদেশীয় সিরিজে নিজেদের তৃতীয় ম্যাচে আজ সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে জিম্বাবুয়ের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। এ ম্যাচ জিততেই এ টুর্নামেন্টে ফাইনালের রাস্তা কিছুটা পরিষ্কার হবে টাইগারদের। কিন্তু বর্তমানে সাকিব আল হাসানরা ব্যাট-বল হাতে যে দুঃসময় পার করছেন, তাতেই সমর্থকদের মনে জেগেছে প্রশ্ন।
চলতি সিরিজে প্রথম ম্যাচে আফিফ হোসেন ধ্রুবর নৈপুণ্যে জিম্বাবুয়েকে হারিয়েছিল বাংলাদেশ। কিন্তু নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে আফগানিস্তানের কাছে হারে দলটি। এরপর সাকিব আল হাসান সংবাদ সম্মেলনে বলেছিলেন, সতীর্থদের আত্মবিশ্বাস তলানিতে, আবার মাইন্ডসেটও পরিষ্কার নয়। আজ এ দুটি ব্যাপারে অবশ্য চোখ রাখছেন তারা।
বাংলাদেশের আত্মবিশ্বাস যখন তলানিতে, তখন এর সুযোগ নিতে চাইবে জিম্বাবুয়ে। গতকালই তো দলটির অলরাউন্ডার শন উইলিয়ামস সংবাদ সম্মেলনে জানিয়ে দেন ব্যাপারটি। তার কাছে মনে হয়েছে টি-টোয়েন্টিতে টাইগার ব্যাটসম্যানরা বেশি শর্ট খেলতে পছন্দ করেন। আজ তাই সফরকারীরা চাইছে, এ লোভ দেখিয়ে দ্রুত মুশফিক-সাকিবদের ফিরিয়ে দিতে। যদিও স্বাগতিকরা সে ভুলে পা দিতে চাইবে না। এদিক দিয়ে বেশ সতর্ক মাহমুদউল্লাহ-লিটন দাসরা।
গত দুই ম্যাচেই বাংলাদেশের টপ অর্ডার পুরোপুরি ব্যর্থতার পরিচয় দিয়েছে। আজ এ জায়গায় উন্নতি চান সাকিব আল হাসান, ‘প্রতি ম্যাচেই এক-দুজন হয়তো পারফর্ম করছে। কিন্তু বেশিরভাগ ক্রিকেটারই ব্যর্থ হচ্ছে। সাধারণত যেটি হয়Ñবেশিরভাগই পারফর্ম করে, দু-একজন ব্যর্থ হয়; তাই খুব সমস্যা হয় না। দিনশেষে এটি দলীয় খেলা। দল হিসেবে খেলতে না পারলে আমাদের জন্য জেতাটা খুবই কষ্টকর।’
ব্যাটসম্যানরা ব্যর্থ হলেও বোলাররা দারুণ করছেন। গত দুই ম্যাচেই মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন-মোস্তাফিজুর রহমান নিজেদের ধারাবাহিকতা ধরে রেখেছেন। আজও তাদের কাছ থেকে সেটাই চান সাকিব।
এখন পর্যন্ত জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টিতে ১০ বারের সাক্ষাতে ৬ বার জিতেছে বাংলাদেশ। নিজেদের শেষ ৬ ম্যাচের ৪টিতেই হাসি নিয়ে ফিরেছে টিম টাইগার্স। তাইতো আজ তারুণ্যে ভর করে সেই ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে বদ্ধপরিকর টিম টাইগার্স। যদিও সেটা হতে দিতে চায় না জিম্বাবুয়ে। গতকাল সংবাদ সম্মেলনে সে আভাস কিন্তু দিয়ে রেখেছেন শন উইলিয়ামস, ‘বাংলাদেশ খুব ভালো অলরাউন্ড দল। টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে যে কোনো কিছুই হতে পারে। ওদের দারুণ কিছু ক্রিকেটার আছে, অভিজ্ঞ ক্রিকেটারও আছে। সাকিব, মাহমুদউল্লাহ, মুশি ওরা সবাই খুব ভালো ক্রিকেটার। সেটিকে আমরা সমীহ করি। কোনো ম্যাচই আমরা হালকাভাবে নেব না। তারা চাপে আছে, আমরা সেটা জানি। কিন্তু আমাদের মৌলিক দিকগুলো ঠিকঠাক করতে হবে।’
নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচেও জিম্বাবুয়ে হেরেছিল আফগানিস্তানের কাছে। তাই আজ তাদের জিততেই হবে। না হলে যে সফরকারীদের ফাইনালের আশা শেষ হয়ে যাবে! সেটাই খুব করে চাইছে টিম বাংলাদেশ। এ লক্ষ্যেই আজ সন্ধ্যায় চট্টগ্রামে বাঘের গর্জন তুলতে চান সাকিব আল হাসানরা।

সর্বশেষ..