কোম্পানি সংবাদ পুঁজিবাজার

দ্বিতীয় প্রান্তিকে ইপিএস কমেছে সোনার বাংলা ইন্স্যুরেন্সের

নিজস্ব প্রতিবেদক: চলতি হিসাববছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকের (এপ্রিল-জুন, ২০২১) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে সোনার বাংলা ইন্স্যুরেন্স লিমিটেড। আর এ প্রান্তিকে কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) কমেছে। তবে প্রথমার্ধের (জানুয়ারি-জুন, ২০২১) হিসাবে ইপিএস বেড়েছে। এছাড়া সম্প্রতি ট্রেক (ট্রেডিং রাইট এনটাইটেলমেন্ট সার্টিফিকেট) লাইসেন্স পেয়েছে সোনার বাংলা ইন্স্যুরেন্সের সহযোগী প্রতিষ্ঠান ‘এসবিআই সিকিউরিটিজ লিমিটেড’। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

প্রাপ্ত তথ্যমতে, কোম্পানিটির দ্বিতীয় প্রান্তিকে ইপিএস হয়েছে ৪৬ পয়সা, যা আগের বছরের একই সময়ে ছিল ৫১ পয়সা। অর্থাৎ, শেয়ারপ্রতি আয় বা ইপিএস কমেছে পাঁচ পয়সা। আর প্রথম দুই প্রান্তিক বা প্রথমার্ধে (জানুয়ারি-জুন, ২০২১) ইপিএস হয়েছে এক টাকা ৮৫ পয়সা, যা আগের বছরের একই সময়ে ছিল এক টাকা ৭১ পয়সা। অর্থাৎ, প্রথমার্ধে ইপিএস ১৪ পয়সা বেড়েছে। এছাড়া চলতি সালের ৩০ জুন তারিখে শেয়ারপ্রতি নেট সম্পদমূল্য (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ২১ টাকা ৬০ পয়সা, যা ২০২০ সালের ৩০ জুনে ছিল ১৯ টাকা ৬২ পয়সা। আর প্রথমার্ধে কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি নগদ অর্থপ্রবাহ (এনওসিএফপিএস) দাঁড়িয়েছে দুই টাকা ৭৬ পয়সা, যা আগের বছরের একই সময়ে ছিল ৭৪ পয়সা।

সোনার বাংলা ইন্স্যুরেন্সের সহযোগী প্রতিষ্ঠান ‘এসবিআই সিকিউরিটিজ লিমিটেড’ সম্প্রতি ডিএসই থেকে ট্রেক লাইসেন্স পেয়েছে। আর এ সহযোগী কোম্পানির ৫২ শতাংশ শেয়ার ধারণ করছে সোনার বাংলা ইন্স্যুরেন্স।

‘এ’ ক্যাটেগরির কোম্পানিটি ২০০৬ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হয়। তাদের ১০০ কোটি টাকা অনুমোদিত মূলধনের বিপরীতে পরিশোধিত মূলধন ৪০ কোটি চার লাখ ১০ হাজার টাকা। রিজার্ভের পরিমাণ ৩২ কোটি ৯২ লাখ টাকা। কোম্পানিটির মোট চার কোটি ৪১ হাজার ৪৪৫ শেয়ার রয়েছে। মোট শেয়ারের মধ্যে উদ্যোক্তা ও পরিচালকের কাছে ৩৬ দশমিক ৭৮ শতাংশ, প্রাতিষ্ঠানিক ৯ দশমিক শূন্য দুই শতাংশ এবং ৫৪ দশমিক ২০ শতাংশ শেয়ার রয়েছে সাধারণ বিনিয়োগকারীর হাতে।

৩১ ডিসেম্বর, ২০২০ সমাপ্ত হিসাববছরের জন্য কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদ ১৫ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ দিয়েছে। আলোচিত সময়ে ইপিএস হয়েছে দুই টাকা ৯ পয়সা এবং ৩১ ডিসেম্বর, ২০২০ তারিখে শেয়ারপ্রতি নেট সম্পদমূল্য (এনএভিপিএস) দাঁড়িয়েছে ১৬ টাকা ৬২ পয়সা। আর এই হিসাববছরে শেয়ারপ্রতি নগদ অর্থপ্রবাহ হয়েছে তিন টাকা ৬৬ পয়সা।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..